কর্নাটকের বিদ্রোহীদের দল থেকে তাড়াল কংগ্রেস

কার্যত সব কূলই চলে গেল কর্নাটকের বিদ্রোহী কংগ্রেস বিধায়কদের

0
representational pic.

ওয়েবডেস্ক: কার্যত সব কূলই চলে গেল কর্নাটকের বিদ্রোহী কংগ্রেস বিধায়কদের। এক দিকে স্পিকারের নির্দেশ অনুযায়ী তাঁরা যেমন ২০২৩ পর্যন্ত কোনো ভাবেই আর বিধায়ক হতে পারবেন না, তেমনই পুরোনো দলেও কোনো ঠাঁই হল না তাঁদের। মোট ১৪ জন বিদ্রোহী বিধায়ককে দল থেকে তাড়িয়ে দিল কংগ্রেস।

গত রবিবার ওই বিধায়কদের বিধানসভা থেকে বরখাস্ত করেন স্পিকার। তবে তার আগে বৃহস্পতিবার তিন জনকে বরখাস্ত করেছিলেন। তাঁদের মধ্যে ছিলেন কংগ্রেসের টিকিটে নির্বাচন জেতা রমেশ জারকিহোলি এবং মহেশ কুমতহল্লী। রবিবার আরও ১২ বিধায়ককে বরখাস্ত করেন তিনি। এর পর দলীয় ভাবে এঁদের মধ্যে ব্যবস্থা নিতে আর কোনো বাধা ছিল না কংগ্রেসের।

আরও পড়ুন দু’সপ্তাহ আগে প্রধান বিচারপতিকে চিঠি দিয়ে প্রাণ সংশয়ের আশঙ্কা করেছিলেন উন্নাওয়ের ধর্ষিতা

এই বিদ্রোহী বিধায়করাই কর্নাটকের কংগ্রেস-জেডিএস সরকার ফেলে দেওয়ার জন্য দায়ী। কারণ আস্থাভোটে প্রমাণিত হয়ে গিয়েছে, বিজেপি বাড়তি কোনো বিধায়ককে নিজেদের দিকে আনতে পারেনি। অর্থাৎ, ওই বিদ্রোহীরা তৎকালীন শাসকের পক্ষে থেকে গেলে এই যাত্রায় বেঁচে যেত কুমারস্বামীর সরকার। ফলে দলবিরোধী কাজ করার জন্য তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা হতই।

তবে কংগ্রেস বিদ্রোহীদের তাড়ালেও, এখনও এমন কিছু সিদ্ধান্ত নেয়নি জেডিএস। বিদ্রোহীদের মধ্যে তাদেরও তিন জন রয়েছেন। তবে ওই বিধায়কদেরও যে সহজে ছেড়ে দেওয়া হবে না, সেই ইঙ্গিত আগে থেকেই দিয়ে রেখেছেন জেডিএস নেতা কুমারস্বামী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here