ঘর বাঁচাতে কংগ্রেস গুজরাতের ৪৪ বিধায়ককে রাতেই বেঙ্গালুরু উড়িয়ে নিয়ে গেল

0
390

অমদাবাদ: প্রবীণ রাজনীতিবিদ শংকরসিন বাঘেলার চালের মুখে দলের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে কংগ্রেস তার ৪৪ জন বিধায়ককে শুক্রবার রাতে বেঙ্গালুরু উড়িয়ে নিয়ে গেল। এঁদের বেঙ্গালুরুর কেম্পেগৌড়া বিমানবন্দরের কাছে একটি রিসর্টে রাখা হয়েছে।

উল্লেখ্য, বাঘেলা কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর গত দু’ দিনে ছ’ জন কংগ্রেস বিধায়ক দল ছেড়েছেন। এঁদের মধ্যে তিন জন বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। ওয়াকিবহাল মহলের ধারণা, এ সবই শংকরসিন বাঘেলার খেলা। রাজ্যসভায় প্রবীণ কংগ্রেস নেতা আহমেদ পটেলের যাওয়া ঠেকাতেই তিনি এই খেলা খেলছেন। আগামী সপ্তাহে রাজ্যসভার ভোট হওয়ার কথা।

শুক্রবার সন্ধে পর্যন্ত ১১ জন কংগ্রেস বিধায়ককে রাজকোটে রেখে দেওয়া হয়েছিল। আর ১৫ জনকে রাখা হয়েছিল অমদাবাদ থেকে ১০০ কিনি দূরে বোরসাদের এক রিসর্টে। সেখানে দলের প্রধান ভরতসিন সোলাঙ্কি বিধায়কদের সঙ্গে বৈঠক করেন। রাজ্যসভা ভোটের আগে গুজরাতে তাদের দলে ভাঙন ধরানোর জন্য বিজেপি ‘টাকা, গায়ের জোর ও সরকারি ক্ষমতা’ ব্যবহার করছে বলে অভিযোগ করছে কংগ্রেস।

“ঘোড়া কেনাবেচার জন্য বিজেপি গুজরাতে কোটি কোটি টাকা খরচ করছে। এই খোলামেলা নাটক আপনারা নিজেদের চোখেই দেখতে পাচ্ছেন” – কংগ্রেসের মুখপাত্র অভিষেক সিঙ্ঘভি এ কথা বলেন। তিনি দলের বিধায়কদের সতর্ক করে দিয়ে বলেন, দলত্যাগ করলে আইন অনুযায়ী আগামী ছ’ বছর ভোটে লড়া যায় না। এ নিয়ে কংগ্রেস যে আদালতে যাওয়ার রাস্তাও খোলা রেখেছে তারও ইঙ্গিত দেন সিঙ্ঘভি।

উল্লেখ্য, ১৮২ আসনের গুজরাত বিধানসভায় এখনও পর্যন্ত কংগ্রেসের বিধায়ক সংখ্যা ৫১।

৮ আগস্ট রাজ্য থেকে রাজ্যসভার তিনটি আসনে ভোট নেওয়া হবে। বিজেপি তাদের দু’ জন প্রার্থী দলের জাতীয় সভাপতি অমিত শাহ এবং কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানিকে সহজেই জিতিয়ে আনতে পারবে। দল ভাঙার খেলায় নেমে বিজেপি তৃতীয় আসনটি থেকেও তাদের প্রার্থীকে জিতিয়ে আনার চেষ্টা করছে। এই আসনটিতেই দলের সভাপতি সনিয়া গান্ধীর রাজনৈতিক সচিব আহমেদ পটেলকে প্রার্থী করেছে কংগ্রেস।

এ বছরের শেষের দিকে গুজরাত বিধানসভার নির্বাচন হওয়ার কথা। শংকরসিন বাঘেলা চেয়েছিলেন তাঁকে ভাবী মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে তুলে ধরে কংগ্রেস সেই নির্বাচন লড়ুক। এই নিয়ে দলে বিরোধ। তারই জেরে বাঘেলার কংগ্রেস-ত্যাগ এবং বিজেপিতে যোগদান। এর পর যে সব বিধায়ক কংগ্রেস ছেড়েছেন তাঁরা সবাই বাঘেলার ঘনিষ্ঠ বলে জানা গিয়েছে। এঁদের মধ্যে এক জন বলবন্তসিন রাজপুত ঘনিষ্ঠ আত্মীয় বাঘেলার। তিনি গতকালই কংগ্রেস ছেড়ে তৃতীয় আসনে বিজেপি প্রার্থী হয়ে গিয়েছেন।

সূত্রের খবর, বাঘেলা-ঘনিষ্ঠ আরও কয়েকজন বিধায়ক কংগ্রেস ছাড়তে পারেন। এবং আরও কিছু কংগ্রেস বিধায়ক আগামী সপ্তাহে রাজ্যসভার নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে ভোট দিতে পারেন, যেমনটি হয়েছিল রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে। তাতে ১১ জন কংগ্রেস বিধায়ক দলীয় প্রার্থী মীরা কুমারকে ভোট না দিয়ে বিজেপি প্রার্থী রামনাথ কোবিন্দকে ভোট দিয়েছিলেন।

এই পরিস্থিতিতে কংগ্রেস কী করে ঘর সামাল দেয় সেটাই দেখার।

ছবি এএনআই নিউজের টুইট করা।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here