Connect with us

দেশ

ফের অধীর চৌধুরীর নিশানায় নরেন্দ্র মোদী

নয়াদিল্লি: লোকসভায় কংগ্রেস দলনেতা অধীররঞ্জন চৌধুরী (Adhir Ranjan Chowdhury) ফের একবার করোনাভাইরাস (Coronavirus) প্রকোপ এবং লকডাউন (Lockdown) নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi) এবং তাঁর সরকারকে নিশানা করলেন। অধীর বলেন, ফেব্রুয়ারিতেই দেশে লকডাউন ঘোষণার প্রয়োজন ছিল।

একটি সংবাদ মাধ্যমে সাক্ষাৎকারের সময় বহরমপুরের কংগ্রেস সাংসদ বলেন, করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে গত ফেব্রুয়ারি মাসেই দেশে লকডাউন ঘোষণা উচিত ছিল। কিন্তু বিজেপি তখন মধ্যপ্রদেশের সরকার ভাঙার খেলায় ব্যস্ত ছিল। তখন তাদের কাছে দেশ নিয়ে চিন্তাভাবনা করার মতো সময় ছিল না।

ওই সাক্ষাৎকারে অধীর বলেন, ফ্রেবুয়ারিতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ না নিয়ে ২৫ মার্চ বিশৃঙ্খল ভাবে লকডাউন ঘোষণা করে কেন্দ্র। তখন পরিস্থিতি নাগালের বাইরে চলে গিয়েছে। সরকারের ভুল পদক্ষেপের ফল আজ গোটা দেশের মানুষ ভুগছেন।

ক্ষমা চান মোদী!

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী মোদীর ভুলেই সারা দেশকে করোনা গ্রাস করে ফেলেছে। প্রধানমন্ত্রীর উচিত, দেশের মানুষের কাছে এই ভুলের জন্য ক্ষমা চেওয়া নেওয়া। বিশ্বের অনেক দেশেই লকডাউন জারি হয়েছে। কিন্তু লকডউনকে কেন্দ্র করে ভারতের মতো দু:খজনক ঘটনা আর কোথাও দেখা যায়নি।

করোনা নিয়ে রাজনীতি করছে কংগ্রেস?

কেন্দ্রের শাসক দল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে করোনা নিয়ে রাজনীতির অভিযোগ তুলছেন। এ প্রসঙ্গে অধীর বলেন, করোনার আবহে কংগ্রেস মোটেই রাজনীতি করছে না। আটকে পড়া শ্রমিকদের ঘরে পৌঁছানোর জন্য উত্তরপ্রদেশে কংগ্রেস বাসের ব্যবস্থাও করেছিল। কিন্তু এই উদ্যোগ নিয়ে উত্তরপ্রদেশ সরকারই রাজনীতি করেছে। প্রথমে বাস প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হয়, তার পরে উত্তরপ্রদেশের সীমানায় বাস প্রবেশে নিষেধ করা হয়। একের পর এক অজুহাত খাড়া করে রাজ্য সরকার।

দেশ

জয়া বচ্চন, ঐশ্বর্য রাই বচ্চন করোনা নেগেটিভ

দু’ জনকেই ১৪ দিনের জন্য কোয়ারান্টাইনে রাখা হয়েছে।

খবরঅনলাইন ডেস্ক: জয়া বচ্চন (Jaya Bachchan) ও তাঁর পুত্রবধূ ঐশ্বর্য রাই বচ্চনের (Aishwarya Rai Bachchan) করোনা (coronavirus) পরীক্ষার ফল নেগেটিভ এসেছে। রবিবার এই খবর দিয়েছেন মুম্বইয়ের মেয়র কিশোরী পেড়নেকর।  

আরও পড়ুন: অমিতাভ বচ্চনের ‘জলসা’কে কনটেনমেন্ট জোন ঘোষণা করল স্থানীয় পুরপ্রশাসন

এর আগে অমিতাভ বচ্চন ও পুত্র অভিষেক টুইট করে জানান, তাঁরা করোনা পজিটিভ হয়েছেন এবং নানাবতী হাসপাতালে ভরতি আছেন। এর পর পরিবারের অন্যদের ও কর্মীদের করোনা পরীক্ষা হয়। সেই করোনা পরীক্ষার ফল নেগেটিভ এল জয়া আর ঐশ্বর্যের ক্ষেত্রে।

মুম্বইয়ের মেয়র কিশোরী পেড়নেকর বলেন, “র‍্যাপিড আন্টিজেন কিট ব্যবহার করে গত রাতেই জয়া বচ্চন ও ঐশ্বর্য রাই বচ্চনের করোনা পরীক্ষা হয়। দু’ জনেরই ফল নেগেটিভ আসে। তবে দু’ জনকেই ১৪ দিনের জন্য কোয়ারান্টাইনে রাখা হয়েছে। কোয়ারান্টাইনের সময়সীমা পেরিয়ে গেলেই আবার তাঁদের করোনা পরীক্ষা করা হবে।”

পেড়নেকর জানান, “আজ সকালে অমিতাভ বচ্চনের বাড়ি ‘জলসা’ স্যানিটাইজ করেছে বৃহন্মুম্বই মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন (বিএমসি BMC)। আজ থেকেই এই বাড়ি কনটেনমেন্ট জোন করা হয়েছে। কাউকেই ওই বাড়িতে ঢুকতে দেওয়া হবে না বা কাউকেই ওই বাড়ি থেকে বেরোতে দেওয়া হবে না। বাড়িকে ঘিরে ব্যারিকেড করে দিয়েছে মুম্বই পুলিশ। শুধু নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী ঢুকতে দেওয়া হবে।”

নানাবতী সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, অমিতাভের হালকা উপসর্গ আছে। তাঁকে আইসোলেশন ইউনিটে রাখা হয়েছে।

Continue Reading

দেশ

অমিতাভ বচ্চনের ‘জলসা’কে কনটেনমেন্ট জোন ঘোষণা করল স্থানীয় পুরপ্রশাসন

বিগ-বি’র বাংলো ‘জলসা’ এবং সংলগ্ন এলাকাকে কনটেনমেন্ট জোন হিসাবে ঘোষণা করল বৃহন্মমুম্বই পুরসভা

ওয়েবডেস্ক: করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভরতি হয়েছেন অমিতাভ বচ্চন (Amitabh Bacchan)। মেগাস্টারকে নিয়ে উদ্বিগ্ন গোটা দেশ। একই সঙ্গে বিগ-বি’র বাংলো ‘জলসা’ এবং সংলগ্ন এলাকাকে কনটেনমেন্ট জোন হিসাবে ঘোষণা করল বৃহন্মমুম্বই পুরসভা (BMC)।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিও পোস্ট করে নিজের শারীরিক পরিস্থিতির খবর জানিয়েছেন বিগ-বি। বলেছেন, তাঁর মৃদু উপসর্গ রয়েছে। হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মীরা তাঁর যথোপযুক্ত যত্ন নিচ্ছে। নতুন একটা অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হয়েছেন তিনি।

শনিবার টুইটারে অমিতাভ জানিয়েছেন, ”আমার কোভিড ১৯ (Covid-19)-এর টেস্ট পজিটিভ এসেছে। আমাকে হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। আমার পরিবারের সমস্ত সদস্য ও কর্মীদের টেস্ট করা হচ্ছে। এখন রিপোর্ট আসার অপেক্ষা। পরিবারের সকলেই গত ১০দিন ধরে আমার কাছাকাছিই থাকতেন। এখন সকলকেই পরীক্ষা করতে বলা হয়েছে।” এর পরই জানা যায়, অভিষেক বচ্চনের রিপোর্টও পজিটিভ এসেছে।

রবিবার সকালে জানা যায়, বিএমসি কর্তৃপক্ষ জলসার সামনে কনেটনমেন্ট জোনের ব্যানার টাঙিয়ে দিয়েছেন। একই সঙ্গে পিতা-পুত্রের করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর পরবর্তী পদক্ষেপ হিসাবে বাংলোটি জীবাণুমুক্ত করার কাজ চলছে। পাশাপাশি অমিতাভের আরও দু’টি বাংলো জীবাণুমুক্ত করা হচ্ছে।

অমিতাভ এবং অভিষেক, দু’জনেই নানাবতী হাসপাতালে ভরতি হয়েছেন। তাঁদের শারীরিক পরিস্থিতি স্থিতিশীল বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে। অন্য দিকে একদল চিকিৎসক এবং স্বাস্থ্যকর্মী তাঁদের বাংলোয় গিয়ে পরিবারের অন্যান্য সদস্যের লালারসের নমুনা সংগ্রহ করেন।

Continue Reading

দেশ

দৈনিক আক্রান্তে রেকর্ড, সুস্থতার হারেও ধারাবাহিক বৃদ্ধি

গত শনিবার সুস্থতার হার ছিল ৬২.৭৮ শতাংশ। এ দিন তা বেড়ে হয়েছে ৬২.৯২ শতাংশ।

ওয়েবডেস্ক: গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে করোনাভাইরাস (Coronavirus) আক্রান্তের সংখ্যা রেকর্ড গড়লেও সামান্য হলেও বাড়ল সুস্থতার হার।

রবিবার সকালে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের প্রকাশিত পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত শনিবার সকাল ৮টার পর থেকে শেষ চব্বিশ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ২৮,৬৩৭ জন। যা এখনও পর্যন্ত এক দিনের সর্বোচ্চ। এখনও পর্যন্ত দেশে করোনা পজিটিভ হয়েছেন ৮ লক্ষ ৪৯ হাজার ৫৫৩ জন।

তবে ধারাবাহিকতা বজায় রেখে সামান্য হলেও বেড়েছে সুস্থতার হার। গত শনিবার সুস্থতার হার ছিল ৬২.৭৮ শতাংশ। এ দিন তা বেড়ে হয়েছে ৬২.৯২ শতাংশ। উল্লেখ্য, গত শুক্রবার এই হার ছিল ৬২.৪২ শতাংশ।

আশা জোগাচ্ছে দিল্লি

গত শনিবার সন্ধ্যায় দিল্লির স্বাস্থ্য দফতর জানায়, শেষ ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ৭৮১ জন। ফলে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ঠেকেছে ১ লক্ষ ১০ হাজার ৯২১-এ। তবে শেষ ৩১ দিনে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা সব থেকে কম। জুলাই মাসের শুরু থেকে এখনও পর্যন্ত হোম আইসোলেশনে রয়েছেন, এমন কোভিড-১৯ (Covid-19) রোগীর মৃত্যু হয়নি।

সরকারি বিবৃতিতে জানানো হয়, শেষ দু’সপ্তাহে মৃত্যুর হারে বড়োসড়ো পতন দেখা দিয়েছে। দিল্লিতে এখনও পর্যন্ত করোনা আক্রান্তের মৃত্যুর সংখ্যা ৩ হাজার ৩৩৪ জন। শেষ ২৪ ঘণ্টায় মৃত ৩৪ জন। যা শেষ দু’সপ্তাহে সব থেকে কম।

পশ্চিমবঙ্গের পরিস্থিতি

গত শনিবার সন্ধ্যায় রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর জানায়, এক দিনেই আক্রান্ত হলেন ১,৩৪৪ জন। দৈনিক হিসেবে যা এখনও পর্যন্ত সর্বোচ্চ। তবে মৃত্যুর হার কিছুটা হলেও কমেছে। গত বৃহস্পতিবার থেকে রাজ্যের কনটেনমেন্ট জোনগুলিতে নতুন করে লকডাউনের কড়াকড়ি শুরু হয়েছে।

রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের তথ্য অনুযায়ী বর্তমানে রাজ্যে মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৮,৪৫৩। শনিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত শেষ ২৪ ঘণ্টায় ২৬ জনের মৃত্যু হওয়ায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৯০৬। তবে এক দিনে সুস্থ হয়েছেন ৬১১ জন। ফলে এখনও পর্যন্ত মোট ১৭,৯৫৯ জন করোনামুক্ত হয়েছেন।

রাজ্যে সুস্থতার হার একটু কমে ৬৩.১১ শতাংশ রয়েছে। সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৯,৫৮৮ জন। মৃত্যুহার আরও কিছুটা কমে এখন ৩.১৮ শতাংশে নেমে এসেছে।

প্রসঙ্গত, লকডাউনের পর আনলক পর্যায় শুরু হওয়ার পর সংক্রমণ হু হু করে বাড়তে থাকায় ফের নতুন করে লকডাউনের পথ ধরেছে দেশের একাধিক রাজ্য। অঞ্চল বিশেষে বিভিন্ন মেয়াদে শুরু হয়েছে মিনি লকডাউন

Continue Reading
Advertisement

কেনাকাটা

কেনাকাটা3 days ago

ঘরের একঘেয়েমি আর ভালো লাগছে না? ঘরে বসেই ঘরের দেওয়ালকে বানান অন্য রকম

খবরঅনলাইন ডেস্ক : একে লকডাউন তার ওপর ঘরে থাকার একঘেয়েমি। মনটাকে বিষাদে ভরিয়ে দিচ্ছে। ঘরের রদবদল করুন। জিনিসপত্র এ-দিক থেকে...

কেনাকাটা5 days ago

বাচ্চার জন্য মাস্ক খুঁজছেন? এগুলোর মধ্যে একটা আপনার পছন্দ হবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিউ নর্মালে মাস্ক পরাটাই দস্তুর। তা সে ছোটো হোক বা বড়ো। বিরক্ত লাগলেও বড়োরা নিজেরাই নিজেদেরকে বোঝায়।...

কেনাকাটা6 days ago

রান্নাঘরের টুকিটাকি প্রয়োজনে এই ১০টি সামগ্রী খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক : লকডাউনের মধ্যে আনলক হলেও খুব দরকার ছাড়া বাইরে না বেরোনোই ভালো। আর বাইরে বেরোলেও নিউ নর্মালের সব...

কেনাকাটা7 days ago

হ্যান্ড স্যানিটাইজারে ৩১ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

অনলাইনে খুচরো বিক্রেতা অ্যামাজন ক্রেতার চাহিদার কথা মাথায় রেখে ঢেলে সাজিয়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের সম্ভার।

নজরে