rajasthan elections
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: সামনের বছর লোকসভা নির্বাচনের আগে উত্তরাখণ্ডের স্থানীয় নির্বাচন কিছুটা স্বস্তি দিল কংগ্রেসকে। প্রত্যাশার থেকেও ভালো প্রদর্শন করে তাক লাগিয়ে দিল তারা।

সোমবার রাজ্যে বিভিন্ন পুরনিগম, পুরসভা এবং নগর পালিকা পরিষদের নির্বাচন হয়। মঙ্গলবার থেকেই তার ফলপ্রকাশ হতে শুরু করে। মঙ্গলবার রাত পর্যন্ত এই নির্বাচনের অনেকটাই ফলপ্রকাশ করে ফেলেছ রাজ্য নির্বাচন কমিশন। দেখা গিয়েছে রাজ্যে সাতটা পুরনিগমের মধ্যে তিনটে পুরনিগমের মেয়র পদ জিতে গিয়েছেন কংগ্রেস প্রার্থীরা।

হরিদ্বার, হলদোয়ানি-কাঠগোদাম এবং কোটদ্বার পুরনিগমের মেয়র পদ দখল করেছে কংগ্রেস প্রার্থীরা। এ ছাড়া নৈনিতাল, আলমোড়া এবং চম্পাবত পুরসভার চেয়ারম্যানের পদেই জিতেছেন কংগ্রেস প্রার্থীরা। পাশাপাশি কাউন্সিলর পদে রাজ্য জুড়ে অন্তত দেড়শোটি আসন দখল করতে পেরেছে কংগ্রেস।

যদিও পুরো নির্বাচনের নিরিখে বিজেপির থেকে পিছিয়েই রয়েছে কংগ্রেস, তবুও এই ফল তাদের কাছে বাড়তি অক্সিজেনের মত, কারণ পাঁচ বছর আগে স্থানীয় নির্বাচনের সময়ে, একটা মেয়র পদে জিততে পারেননি কংগ্রেস প্রার্থীরা। কাউন্সিলরও ছিল বেশ কম।

আরও পড়ুন ভোটে লড়বেন না মোদী-মন্ত্রিসভার গুরুত্বপূর্ণ মুখ, জানিয়ে দিলেন অমিত শাহকে

তবে বিজেপি বড়োসড়ো ধাক্কা খেয়েছে শৈলশহর মুসৌরিতে। পুরসভার ১৩টি ওয়ার্ডের মধ্যে নির্দলরা ন’টি এবং কংগ্রেস চারটে ওয়ার্ড দখল করেছে। বিজেপির ভাগ্যে একটাও জোটেনি। দেহরাদুনেও অপ্রত্যাশিত ভাবে খারাপ ফল বিজেপির। শহরের ৩৪টা ওয়ার্ডের মধ্যে কংগ্রেস জিতেছে ১৫টা, বিজেপি ১৪টা। বাকি ওয়ার্ডগুলি গিয়েছে নির্দলদের দখলে।

উল্লেখ্য, গত বছর বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যে ভরাডুবি হয়েছিল কংগ্রেসের। ৭০ আসনের বিধানসভায় বিজেপি একাই জিতেছিল ৫৭টা আসন। কংগ্রেসের ভাগ্যে জুটেছিল সাকুল্যে ১১টা। তবে এই ফল জানান দিল, ২০১৯-এর নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে এখন থেকে জোরদার প্রচার শুরু করে এই পাহাড়ি রাজ্যেও বিজেপিকে ধাক্কা দেওয়া সম্ভব।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here