Connect with us

দেশ

করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দ্বিগুণ হওয়ার মেয়াদ ফের ঊর্ধ্বমুখী

Harsh Vardhan

নয়াদিল্লি: করোনাভাইরাস (Coronavirus) সংক্রমণ ঠেকাতে সঠিক সময়েই দেশে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছিল বলে দাবি করলেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. হর্ষ বর্ধন (Harsh Vardhan)।

রবিবার স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, “সঠিক সময়েই সারা দেশে লকডাউন (Lockdown) ঘোষণা করা হয়েছিল। যে কারণে করোনা সংক্রমণ ঠেকানোর পরিকল্পনায় আশাব্যঞ্জক ফলাফল হাতেনাতে পাওয়া যাচ্ছে”।

তাঁর কথায়, “গত ২৫ মার্চ লকডাউন ঘোষণার আগে সারা দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দ্বিগুণ হওয়ার সময় ছিল ৩.৪ দিন। রবিবার যা ১৩ দিনে ঠেকেছে”।

একই সঙ্গে তিনি দাবি করেন, “বিশ্বের অনেক দেশ এই সিদ্ধান্ত নিতে বিলম্ব করেছে। পরিস্থিতি হাতের বাইরে চলে যাওয়ার পর তারা লকডাউনের পথে হাঁটতে শুরু করে। আবার কিছু দেশ আংশিক লকডাউন ঘোষণা করে”।

তবে এর আগেও আক্রান্তের সংখ্যা দ্বিগুণ হওয়ার মেয়াদ বর্তমান পরিস্থিতির মতোই ছিল। কিন্তু গত এপ্রিল মাসের শেষের দিকে তা ১০ দিনের (৯.৯ দিন) নীচে নেমে যায়। তখন লকডাউনের নিয়ম শিথিল হওয়া এবং নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা বেড়ে যাওয়ার কারণেই আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছিল বলে দাবি করা হয়।

এ দিন সোশ্যাল মিডিয়ায় আলোচনার সময় মন্ত্রী আরও বলেন, করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন (Vaccine) তৈরিতেও ইতিবাচক ইঙ্গিত মিলছে। ১৪টির মধ্যে চারটি সম্ভাব্য ভ্যাকসিন ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে শীঘ্রই যেতে চলেছে।

দেশ

কেরল সোনা পাচারকাণ্ড: এনআইএ-র হাতে গ্রেফতার স্বপ্না সুরেশ, উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য

টানা ছ’দিন ধরে চলে ‘লুকোচুরি’ খেলা।

ওয়েবডেস্ক: বেঙ্গালুরু থেকে কেরল সোনা পাচারের ঘটনায় মূল দুই অভিযুক্ত স্বপ্না সুরেশ (Swapna Suresh) ও তাঁর সঙ্গী সন্দীপ নায়ারকে গ্রেফতার করেছে এনআইএ (National Investigation Agency)। শনিবার রাতে তাঁদের আটক করার পর এ দিন কোচিতে তাঁদের হেফাজতে নেয় তদন্তকারী সংস্থা।

গত শুক্রবার তদন্তভার হাতে নেওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই গত শনিবার রাতে স্বপ্না এবং সন্দীপ নায়ারকে (Sandeep Nair) আটক করে এনআইএ। এই দু’জন ছাড়াও কেরল সোনা পাচারের ঘটনায় (Kerala gold smuggling case) সরিৎ কুমার (আগেই গ্রেফতার) এবং ফজিল ফরিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। এনআইএ তাঁদের বিরুদ্ধে ১৯৬৭ সালের বেআইনি কার্যকলাপ (প্রতিরোধ) আইনের ১৬, ১৭ এবং ১৮ ধারায় মামলা দায়ের করেছে। তাঁদের মারফত মোটা অঙ্কের অর্থ সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপে ব্যবহার করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে ইতিমধ্যেই।

তদন্তের সূত্রপাত

গত ৫ জুলাই কোচি (Kochi) শুল্ক দফতর বিমানবন্দর থেকে প্রায় ১৫ কোটি টাকা মূল্যের ৩০ কেজি সোনা (২৪ ক্যারাট) আটক করে। প্রাথমিক তদন্তে জানা যায়, সংযুক্ত আরব আমিরশাহি (UAE) থেকে কূটনীতিবিদদের জিনিসপত্রের সঙ্গে লুকিয়ে ওই সোনা নিয়ে আসা হয়।

তিরুঅনন্তপুরমে (Thiruvananthapuram) সংযুক্ত আরব আমিরশাহির কনস্যুলেটের এক প্রাক্তন আধিকারিকের ঠিকানায় ওই সোনা পাঠানো হয়েছিল। এই ঘটনায় স্বপ্নার নাম উঠে আসে।

সোনা পাচারের ঘটনায় স্বপ্নার নাম উঠে আসার পর থেকেই তিনি নিখোঁজ ছিলেন। হদিশ মিলছিল না সন্দীপেরও। বেঙ্গালুরু থেকে ধৃত দু’জনকে এ দিন কোচিতে এনআইএ-র কার্যালয়ে পেশ করা হয়। এর আগে টানা ছ’দিন ধরে চলে ‘লুকোচুরি’ খেলা।

কে এই স্বপ্না?

*খাতায়-কলমে জন্ম ৪ জুন, ১৯৮৪।

*ভারতীয় বংশোদ্ভূত আরব আমিরশাহির বাসিন্দা।

*শিক্ষাগত যোগ্যতা স্নাতকস্তর পর্যন্ত। তবে বেশ কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের জাল ডিগ্রি রয়েছে বলে অভিযোগ।

*এয়ার ইন্ডিয়ান স্যাটস-এর এইচআর এগজিকিউটিভ হিবেসে যোগ দেন ২০১৩ সালে।

*আরবি ভাষা জানার সুবাদে ২০১৯ সালে যোগ দেন কনস্যুলেট-জেনারেলের অফিসে।

*বর্তমানে কনস্যুলেট-জেনারেল বিভাগের প্রাক্তন এগজিকিউটিভ সেক্রেটারি স্বপ্না।

*স্বপ্নার বিরুদ্ধে উপসাগরীয় দেশ থেকে সোনা নিয়ে আসার অভিযোগ রয়েছে।

*স্বপ্নার সঙ্গে কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারই বিজয়নের প্রধান সচিব এম শিবশঙ্করের সঙ্গে যোগসূত্র পাওয়া গিয়েছে।

*কেরলের সরকারি দফতরে ছিল অবাধ বিচরণ। এমনকী মুখ্যমন্ত্রী পিনারই বিজয়নের (Pinarayi Vijayan) কার্যালয়েও তাঁর ঘনঘন যাতায়াত ছিল বলে জানা যায়।

*খাতায়-কলমে অবিবাহিত উল্লেখ করলেও সূত্রের খবর, দু’বার বিয়ে হয়েছে স্বপ্নার। একটি কন্যাসন্তানও রয়েছে।

রাজনৈতিক যোগসাজশের অভিযোগ

কেরলের বিরোধী দলগুলি অভিযোগ করেছে, মুখ্যমন্ত্রী কার্যালয়ের সঙ্গে স্বপ্নার যোগসাজশ রয়েছে। ফলে তাঁকে আত্মগোপনের জন্য সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে। যদিও স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। বিরোধী দলের বিক্ষোভের মধ্যে একজন আইএএস কর্মকর্তাকে মুখ্যমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে সরিয়ে নিয়ে তথ্যপ্রযুক্তিসচিব পদে স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

তবে এখানেই শেষ নয়, কেরল কংগ্রেস এবং বিজেপির তরফে অভিযোগ করা হয়েছে, করোনাভাইরাস লকডাউনের মধ্যেই স্বপ্নাকে কেরল থেকে বেঙ্গালুরু পালাতে সাহায্য করেছিলেন পুলিশের উপর মহল।

শুল্ক দফতরের চাঞ্চল্যকর তথ্য

শুল্ক দফতর বলেছে. এখন পর্যন্ত সংগৃহীত তথ্য থেকে প্রমাণিত হয়েছে যে স্বপ্না সুরেশ কূটনৈতিক সুরক্ষার মোড়ক ব্যবহার করে সরকারি সংস্থা এবং শুল্ক বিভাগের সঙ্গে প্রতারণা করে ভারতে প্রচুর পরিমাণে সোনা পাচারের কাজে জড়িত এক চক্রের মূল সদস্য। তিনি আরও বেশ কিছু ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। চোরাচালানের কাজটি সহজ করার জন্য নিজের প্রভাব খাটিয়ে সক্রিয় ভাবে অংশ নিয়েছিলেন।

Continue Reading

দেশ

ঘোড়া আস্তাবল থেকে পালালে তবেই কংগ্রেসের ঘুম ভাঙবে? সচিন পায়লট প্রসঙ্গে বিস্ফোরক মন্তব্য কপিল সিবালের

দল কখন জেগে উঠবে, তা নিয়েই কঠিন প্রশ্ন তুলে দিলেন সিব্বল।

ওয়েবডেস্ক: বিজেপির বিরুদ্ধে রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গহলৌতের (Ashok Gehlot) সরকার ভেঙে দেওয়ার চক্রান্তের অভিযোগ তুলেছিলেন গত শনিবার। রবিবার কংগ্রেসের বর্ষীয়ান নেতা কপিল সিবাল (Kapil Sibal) সেই মন্তব্যের রেশ ধরেই দলকে ‘খোঁচা’ দিলেন।

কংগ্রেস যদি সংকটের দ্রুত সমাধান চায়, তা হলে দল কখন জেগে উঠবে, তা নিয়েই কঠিন প্রশ্ন তুলে দিলেন সিব্বল।

টুইটারে বর্যীয়ান কংগ্রেস নেতা তথা সুপ্রিম কোর্টের দুঁদে আইনজীবী লিখেছেন, “আমাদের দলকে নিয়ে চিন্তিত। ঘোড়া আস্তাবল থেকে পালিয়ে যাওয়ার পরই কি আমাদের ঘুম ভাঙবে”।

সূত্রের খবর, মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বনিবনা না হওয়ার কারণে উপ-মুখ্যমন্ত্রী সচিন পায়লট (Sachin Pilot) অনুগামী বিধায়কদের নিয়ে দল ছাড়তে পারেন।

গত শনিবার কংগ্রেস বিধায়কদের টাকার বিনিময়ে কেনার অভিযোগ তুলেছিলেন গহলৌত। এ ব্যাপারে স্পেশাল অপারেশন গ্রুপ ঘোড়া কেনাবেচায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে তদন্তে নেমেছে। তলব করা হয়েছে সচিনকেও। রাজ্যসভার ভোটের আগে বিধায়ক কেনাবেচা প্রসঙ্গে চিফ হুইপ মহেশ জোশীর অভিযোগের ভিত্তিতেই ওই তদন্ত চলছে বলে জানা যায়।

কিন্তু বিষয়টিতকে যে খোদ কংগ্রেস হাইকমান্ডও ভালো চোখে দেখছে না, তার ইঙ্গিত মিলেছে কংগ্রেসের দলীয় সূত্রে।

আরও পড়তে পারেন: কর্নাটক, মধ্যপ্রদেশের পর কংগ্রেসের হাতছাড়া হতে পারে আরও এক রাজ্য?

আরও পড়তে পারেন: সংকটে রাজস্থানের কংগ্রেস সরকার! জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার পথে সচিন পায়লট?

তবে রাজস্থান কংগ্রেসের তরফে দাবি করা হয়েছে, সাম্প্রতিক ঘটনায় সরকারের গায়ে আঁচড় পড়বে না। রবিবার রাত ৯টার সময় পরিষদীয় দলের বৈঠক ডেকেছেন মুখ্যমন্ত্রী। ওই বৈঠকে সচিনকেও আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। দলের এক প্রথমসারির নেতা জানিয়েছেন, “মধ্যপ্রদেশের মতো পরিস্থিতি এখানে বরদাস্ত করা হবে না”।

Continue Reading

দেশ

ভারাভারা রাওয়ের শারীরিক অবস্থা খুব খারাপ, জানালেন ভগ্নীপতি

এলগার পরিষদ মামলায় অভিযুক্ত হয়ে এক বছরেরও বেশি সময় ধরে জেলবন্দি হয়ে রয়েছেন ভারাভারা রাও।

খবরঅনলাইন ডেস্ক: কবি-সমাজকর্মী ভারাভারা রাও (Varavara Rao) বেঁচে আছেন, কিন্তু তাঁকে অবিলম্বে হাসপাতালে ভরতি করা দরকার।

কিছু দুষ্ট লোক ভারাভারা রাওকে নিয়ে গুজব ছড়াচ্ছে। বলা হচ্ছে তিনি নাকি মারা গেছেন। কিন্তু তিনি মারা যাননি, বেঁচেই আছেন। তবে তাঁর শরীরের অবস্থা খুবই খারাপ। তাঁকে আর দেরি না করে হাসপাতালে ভরতি করা দরকার। ‘আউটলুক’ পত্রিকায় এক সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেছেন কবির ভগ্নীপতি এন বেণুগোপাল (N Venugopal)।

বেণুগোপাল জানান, তালোজা জেলে (Taloja central jail) বন্দি ৮০ বছরের এই কবি-সমাজকর্মী-সাংবাদিকের শারীরিক অবস্থা দিন দিন খারাপ হচ্ছে। আইনজীবী মহল থেকে এবং পরিবারের পক্ষ থেকে কর্তৃপক্ষের কাছে বার বার অনুরোধ করা হচ্ছে তাঁকে হাসপাতালে ভরতি করার জন্য। কিন্তু কর্তৃপক্ষ হাসপাতালে তাঁর ভরতির ব্যাপারটা বিলম্ব করে তাঁকে হত্যা করতে চাইছে। এলগার পরিষদ মামলায় (Elgaar Parishad Case) অভিযুক্ত হয়ে এক বছরেরও বেশি সময় ধরে জেলবন্দি হয়ে রয়েছেন ভারাভারা রাও।

বেণুগোপাল কী বলেছেন

বেণুগোপাল বলেন, “রাত সাড়ে ১২টা নাগাদ কেউ ফেসবুকে পোস্ট করে ভারাভারা রাও গত হয়েছেন। আমাদের আইনজীবীরা সঙ্গে সঙ্গে জেল কর্তৃপক্ষকে ফোন করেন। তাঁরা জানান, খবরটি ঠিক নয়। কিছু দুষ্ট লোক এই গুজব ছড়িয়েছে। ১০ মিনিটের মধ্যে শত শত লোক খবরটা শেয়ার করে। আগুনের  মতো ছড়িয়ে যায়। সে কারণে সকালে ফেসবুকে সব ব্যাপারটা বুঝিয়ে লিখলাম।”

বেণুগোপাল জানান, তাঁর পরিবার ভারাভারার সঙ্গে শেষ কথা বলেছে শনিবার সন্ধ্যায়।

“ওঁর কথা শুনে মনে হল উনি ভুল বকছেন। ওঁর বোন যে সব কথা জিগগেস করলেন, সেগুলো ঠিক ধরতে পারছিলেন না। ওঁর বাবার শেষকৃত্যের কথা বলছিলেন, কিন্তু তিনি যখন মারা যান, তখন ভারাভারার বয়স মাত্র তিন বছর। বোধহয় সোডিয়াম-পটাশিয়াম লেভেল নেমে গিয়েছে”, বলেন বেণুগোপাল।

বেণুগোপাল আরও বলেন, “দু’ মিনিট কথাবার্তায় একই জেলে বন্দি তাঁর সহযোগী বার্নান গনজালভেজ জানালেন, ভারাভারার অবস্থা ক্রমশ খারাপ হচ্ছে। ওঁকে ধরে ধরে হাঁটাতে হয়, এমনকি দাঁতটাও মাজিয়ে দিতে হয়। অবিলম্বে হাসপাতালে ভরতি করা দরকার।”

এলগার পরিষদ মামলা

এলগার পরিষদ মামলায় ভারাভারা রাওয়ের অন্তর্বর্তী জামিনের আবেদন গত মাসে এক বিশেষ আদালতে খারিজ হয়ে যায়। এর পরে বোম্বে হাইকোর্টে আবেদন করা হয়। সেই আবেদন এখনও ঝুলে রয়েছে।

২০১৮-এর জানুয়ারিতে ভিমা-কোরেগাঁও (Bhima-Koregaon) হিংসাত্মক ঘটনার পর দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ন’ জন মানবাধিকার কর্মীকে মহারাষ্ট্র পুলিশ গ্রেফতার করে। তাঁদের বিরুদ্ধে এলগার পরিষদ মামলার চার্জশিটে পুলিশ এমনও অভিযোগ করে যে ওই কর্মীরা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে হত্যার ষড়যন্ত্র করেছিলেন।

কিন্তু মানবাধিকার কর্মীদের বক্তব্য, পুলিশ এ ব্যাপারে এখনও কোনো চূড়ান্ত সাক্ষ্যপ্রমাণ হাজির করতে পারেনি। যার ফলে তাঁদের জামিন পেতে অযথা দেরি হচ্ছে।

Continue Reading
Advertisement
ক্রিকেট5 hours ago

ক্রিকেটের প্রত্যাবর্তনে ঐতিহাসিক জয় ওয়েস্ট ইন্ডিজের

বাংলাদেশ8 hours ago

জাল করোনা-শংসাপত্র চক্রের অন্যতম পাণ্ডা ধৃত ও চাকরি থেকে বরখাস্ত

রাজ্য9 hours ago

রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ হাজার পার, কমছে মৃত্যুহার

রাজ্য9 hours ago

রাজ্যের লক্ষ্য দৈনিক ১ লক্ষ করোনা নমুনা পরীক্ষা করা, আসছে নতুন যন্ত্র

পরিবেশ10 hours ago

একুশ শতকে প্রথম মুক্ত অবস্থায় ঘুরে বেড়াতে দেখা গেল সোনালি বাঘকে

দেশ10 hours ago

কেরল সোনা পাচারকাণ্ড: এনআইএ-র হাতে গ্রেফতার স্বপ্না সুরেশ, উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য

indian post
শিল্প-বাণিজ্য11 hours ago

দেখে নিন পোস্ট অফিসের ক্ষুদ্র সঞ্চয় প্রকল্পগুলিতে সর্বশেষ সুদের হার

দেশ12 hours ago

ঘোড়া আস্তাবল থেকে পালালে তবেই কংগ্রেসের ঘুম ভাঙবে? সচিন পায়লট প্রসঙ্গে বিস্ফোরক মন্তব্য কপিল সিবালের

কেনাকাটা

কেনাকাটা3 days ago

ঘরের একঘেয়েমি আর ভালো লাগছে না? ঘরে বসেই ঘরের দেওয়ালকে বানান অন্য রকম

খবরঅনলাইন ডেস্ক : একে লকডাউন তার ওপর ঘরে থাকার একঘেয়েমি। মনটাকে বিষাদে ভরিয়ে দিচ্ছে। ঘরের রদবদল করুন। জিনিসপত্র এ-দিক থেকে...

কেনাকাটা5 days ago

বাচ্চার জন্য মাস্ক খুঁজছেন? এগুলোর মধ্যে একটা আপনার পছন্দ হবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিউ নর্মালে মাস্ক পরাটাই দস্তুর। তা সে ছোটো হোক বা বড়ো। বিরক্ত লাগলেও বড়োরা নিজেরাই নিজেদেরকে বোঝায়।...

কেনাকাটা6 days ago

রান্নাঘরের টুকিটাকি প্রয়োজনে এই ১০টি সামগ্রী খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক : লকডাউনের মধ্যে আনলক হলেও খুব দরকার ছাড়া বাইরে না বেরোনোই ভালো। আর বাইরে বেরোলেও নিউ নর্মালের সব...

কেনাকাটা1 week ago

হ্যান্ড স্যানিটাইজারে ৩১ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

অনলাইনে খুচরো বিক্রেতা অ্যামাজন ক্রেতার চাহিদার কথা মাথায় রেখে ঢেলে সাজিয়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের সম্ভার।

নজরে