অমানবিক! বাড়ি ফেরার পথে পরিযায়ী শ্রমিককে চরম হেনস্থা পুলিশকর্মীর

0

লখনউ: দেশ জুড়ে ২১ দিনের লকডাউন (Lock Down) বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় দিনে পড়েছে। এ দিন কারফিউ এবং নিষেধাজ্ঞা অমান্যকারীদের পুলিশি শাস্তির একাধিক ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় উঠে এসেছে। এগুলির মধ্যেই উত্তরপ্রদেশের বদায়ুঁর একটি ভিডিও দেখে লজ্জায় মাথা হেঁট করছেন স্বয়ং পুলিশকর্তাই।

ওই ভিডিয়োটিতে দেখা যাচ্ছে, প্রখর সূর্যতাপের মধ্যেই পায়ে হেঁটে বাড়ি ফিরছেন কয়েকজন যুবক। তাঁরা পরিযায়ী শ্রমিক। লকডাউনের জেরে আটকে পড়েছিলেন। থাকা-খাওয়ার জন্য পর্যাপ্ত ব্যবস্থা না থাকায় তাঁরা পায়ে হেঁটেই বাড়ি ফিরছেন। রাস্তায় তাঁদের পথ আটকায় পুলিশ। সে সময়ই তাঁদের হেনস্থার শিকার হতে হয়।

ভিডিয়োয় দেখা যাচ্ছে, তাঁদের হামাগুড়ি দিয়ে হাঁটতে বাধ্য করা হচ্ছে। কয়েক কিমি হেঁটে এমনিতেই তাঁরা ক্লান্ত, তার উপর তাঁদের পিঠে রয়েছে বড়ো আকারের ব্যাগ।

পুলিশকর্মীর এই অমানবিক আচরণ দেখে বদাযুঁর পুলিশ প্রধান একে ত্রিপাঠী জানিয়েছেন, “ভিডিওতে যে পুলিশকর্মীকে দেখা যাচ্ছে, তাঁর অভিজ্ঞতা কম। সবে মাত্র পুলিশে ঢুকেছেন। তবে সেখানে সিনিয়র অফিসাররাও ছিলেন, তাঁরা অন্য কাজ করছিলেন। এর প্রতিকারমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ ধরনের ঘটনার জন্য আমি সত্যিই দু‌ঃখিত”।

তবে শুধু এটাই নয়, দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকেই এমনই কিছু হৃদয়বিদারক ছবি এবং ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় জায়গা করে নিয়েছে। তাঁদের বেশিরভাগই দিনমজুর। তাঁরা চরম সংকটের হাত থেকে বাঁচতে পায়ে হেঁটেই কিমির পথ কিমি পায়ে হেঁটে পাড়ি দিচ্ছেন। পাচ্ছেন না কোনো খাবারও।

আরও পড়ুন: দেশে ১৫ হাজার লিটার দুধ, ১০ হাজার কেজি সবজি নষ্ট: অভিযোগ ই-কমার্স ব্যবসায়ীদের

কোভিড-১৯ (Covid-19) মহামারী রুখতে দেশ জুড়ে লকডাউন ঘোষণার পরে সব থেকে সমস্যায় পড়েছেন সমাজের গরিব এবং দু‌ঃস্থ মানুষেরা। তাঁদের জন্য সরকারি ভাবে বিভিন্ন উদ্যোগ ঘোষণা করলেও সে সবের সুবিধা মিলতে এখনও ঢের বাকি! একই সঙ্গে ভিন রাজ্য আটকে পড়া শ্রমিকদের অবস্থা আরও করুণ। এমনতিতে কাজ বন্ধ। তার উপর বাসস্থান, খাবার এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের অভাবের কারণেই তাঁরা নিজের বাড়িতে ফেরার জন্য চরম ঝুঁকি নিয়ে ফেলছেন।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.