Connect with us

দেশ

গণনা আপডেট: রাজস্থান, ছত্তীসগঢ় কংগ্রেসের; মধ্যপ্রদেশেও সরকার গড়ার দাবি জানাল কংগ্রেস

ওয়েবডেস্ক: ছত্তীসগঢ়ে বিজেপি কার্যত ধুয়েমুছে সাফ। কংগ্রেস জোরকদমে সরকার গড়ার পথে। রাজস্থানেও ধরাশায়ী বিজেপি। সরকার গড়ার ম্যাজিক ফিগার ১০০ ছুঁয়ে ফেলেছে কংগ্রেস। এই দুই রাজ্যেরই বিজেপি মুখ্যমন্ত্রী হার স্বীকার করে নিয়েছে। মধ্যপ্রদেশেও সরকার গড়ার দাবি জানাল কংগ্রেস।

মঙ্গলবার রাতেই মধ্যপ্রদেশের রাজ্যপাল আনন্দিবেন পটেলকে চিঠি লিখে সরকার গড়ার দাবি জানিয়েছেন কংগ্রেস নেতা কমল নাথ। চিঠিতে কমল নাথ লিখেছেন, “কংগ্রেস একক বৃহত্তম দল হয়েছে। সংখ্যাগরিষ্ঠের সমর্থন রয়েছে কংগ্রেসের। তার ওপর সব জয়ী নির্দল প্রার্থী কংগ্রেসকে সমর্থন করার আশ্বাস দিয়েছেন।” সম্ভব হলে সব কেন্দ্রের ফল বেরোনোর পর মঙ্গলবার রাতেই রাজ্যের সিনিয়র কংগ্রেস নেতাদের সঙ্গে নিয়ে রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করতে চান কমল নাথ। কিন্তু রাজ্যপালের অফিস থেকে জানানো হয়েছে নির্বাচন কমিশন নির্বাচন সংক্রান্ত ছবিটি স্পষ্ট করে দেওয়ার পর রাজ্যপাল নেতাদের সঙ্গে দেখা করবেন। ভোটগণনার সর্বশেষ পরিস্থিতি জানার জন্য চোখ রাখুন খবর অনলাইনে।

====================================================

রাত ০০.২০ – চার রাজ্যে দলগত ফল (সূত্র: নির্বাচন কমিশন)

ছত্তীসগঢ়

মোট আসন – ৯০: কংগ্রেস – জয়ী ৪৭, এগিয়ে ২১; বিজেপি – জয়ী ১০, এগিয়ে ৫; জনতা কংগ্রেস (ছত্তীসগঢ়) – জয়ী ৩, এগিয়ে ২; বিএসপি – জয়ী ১, এগিয়ে ১।

মধ্যপ্রদেশ

মোট আসন- ২৩০: বিজেপি – জয়ী ৮৭, এগিয়ে ২২; কংগ্রেস – জয়ী ৮৮, এগিয়ে ২৬; সমাজবাদী পার্টি – জয়ী ১, এগিয়ে ১, বিএসপি – এগিয়ে ২; নির্দল – জয়ী ৩, এগিয়ে ১।

রাজস্থান (১টি বাদে সব ফল প্রকাশিত) 

মোট আসন – ১৯৮: কংগ্রেস – ৯৯; বিজেপি – ৭৩; বিএসপি -৬; সিপিআইএম – ২; ভারতীয় ট্রাইবাল পার্টি – ২; রাষ্ট্রীয় লোক দল – ১; রাষ্ট্রীয় লোকতান্ত্রিক পার্টি – ৩; নির্দল – জয়ী ১২, এগিয়ে ১।

তেলঙ্গানা (সব ফল প্রকাশিত)

মোট আসন – ১১৯: বিজেপি – ১; কংগ্রেস – ১৯; এআইএমআইএম – ৭; টিআরএস – ৮৮; তেলুগু দেশম – ২; ফরোয়ার্ড ব্লক – ১; নির্দল – ১।

২২:১৫– ‘নির্বাচন ফলে মেনে নিলাম,’ টুইট করলেন মোদী। তাহলে কি রাজস্থান, ছত্তীসগঢ়ের পাশাপাশি মধ্যপ্রদেশেও হার স্বীকার করে নিল বিজেপি?

২১:৪০– চার রাজ্যের ফলাফল নিশ্চিত হলেও, এখনও নিশ্চিত নয় মধ্যপ্রদেশ। এই মুহূর্তে পাঁচটা আসনের ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছে কংগ্রেস।

২০:৪৫– পদত্যাগ করলেন বসুন্ধরা রাজে সিন্ধিয়া। বিজেপির হার স্বীকার করলেন।

২০:২৫– রাজস্থানে হারলেন ভারতের প্রথম গোরু মন্ত্রী। নির্দলের বিরুদ্ধে হেরে গিয়েছে মন্ত্রী ওটারাম দেবাসী

২০:১৫– রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ এবং ছত্তীসগঢ়ে বিজেপির থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে শহরাঞ্চল এবং আদিবাসীদের একটা বড়ো অংশ।

২০:০৫– এখনও অনিশ্চয়তার মোড়কে মধ্যপ্রদেশ। রাহুল বললেন রাজ্যটি জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী তিনি।

১৯:৫০– প্রতিশ্রুতি পূরণে ব্যর্থ মোদী, বললেন রাহুল।

১৯:৪৫– সাংবাদিক সম্মেলনে রাহুল গান্ধী। কৃষক, যুবসম্প্রদায়ের জয়, বললেন রাহুল।

১৯:৪০– ১১১:১১০ অনুপাতে মধ্যপ্রদেশে আবার এগিয়ে গেল বিজেপি।

১৯:২৫– কংগ্রেসের দিকেই সমর্থনের ইঙ্গিত বিএসপি। রাজস্থান এবং মধ্যপ্রদেশে তাদের দরকার হতে পারে কংগ্রেসের।

১৯:২০– মধ্যপ্রদেশ নিয়ে এখনও অনিশ্চয়তা। যদিও কংগ্রেসই এগিয়ে রয়েছে। তাদের এবং বিজেপির মধ্যে ব্যবধানে ৪-৫-এ ঘোরাফেরা করছে।

১৮:৫০– মধ্যপ্রদেশে গণনায় বিলম্বের কারণ ব্যক্ত করার জন্য কিছুক্ষণের মধ্যেই কমিশনের সাংবাদিক সম্মেলন।

১৮:৪৫– মধ্যপ্রদেশের ৩৪টা আসনে বিজেপি এবং কংগ্রেস প্রার্থীদের ব্যবধান ১০০০ ভোটের থেকেও কম। তাই কার ভাগ্যে যাচ্ছে মধ্যপ্রদেশ, সেটা এখনও বোঝা যাচ্ছে না। সর্বশেষ পরিস্থিতিতে কংগ্রেস ১১৪ এবং বিজেপি ১০৯ ভোটে এগিয়ে।

১৮:১৫– এই মুহূর্তের ইঙ্গিতে আবার ত্রিশঙ্কুর দিকে রাজস্থান। নির্বাচন কমিশনের হিসেব বলছে একক সংখ্যাগরিষ্ঠ হলেও কংগ্রেস এখন এগিয়ে ৯৭ আসনে এগিয়ে।

১৮:০০– কংগ্রেসের বিধায়কদের মত নিয়েই মুখ্যমন্ত্রী বাছা হবে। জানাল রাজস্থান কংগ্রেস।

১৭:৪০– হারের পুরো দায় আমি নিলাম, ইস্তফা দিয়ে বললেন ছত্তীসগঢ়ের বিদায়ী মুখ্যমন্ত্রী রমন সিংহ

১৭:৩৫– রাজস্থানে বিধানসভা ত্রিশঙ্কু হলে কংগ্রেসকে সমর্থনের বার্তা দিল রাষ্ট্রীয় লোক দল। এই মুহূর্তে একটি আসনে এগিয়ে তারা।

১৭:২৫- কমিশনের তথ্য অনুযায়ী ছত্তীসগঢ়ে কংগ্রেস পক্ষে পড়েছে ৪২.৮ শতাংশ ভোট, বিজেপির ৩২.৮ শতাংশ ভোট। রাজস্থানে কংগ্রেস এবং বিজেপি পেয়েছে যথাক্রমে ৩৯.২ এবং ৩৮.৭ শতাংশ ভোট। মধ্যপ্রদেশে দু’দলই ৪১.৪ শতাংশ করে ভোট পেয়েছে।

১৭:১৫– মিজোরাম ছাড়া সরকারি ভাবে এখনও কোথাওই ফলপ্রকাশ হয়নি। এই মুহূর্তে রাজস্থানে কংগ্রেস ১০২, বিজেপি ৭২ আসনে এগিয়ে। মধ্যপ্রদেশে কংগ্রেস ১১৯ এবং বিজেপি ১০২ আসনে এগিয়ে। ছত্তীসগঢ়ে কংগ্রেস ৬২ এবং বিজেপি ১৯ আসনে এগিয়ে। তেলঙ্গানায় টিআরএস ৮৭ এবং কংগ্রেস ২২ আসনে এগিয়ে।

১৭:০০– উন্নয়নের প্রতিশ্রুতিত মদলে রাম মন্দির নিয়ে বারাবারি করাই বিপদ ডেকে এনেছে। মন্তব্য বিজেপি নেতা সঞ্জয় কাকাড়ের।

১৬:৫০– মিজোরামে ভোটগণনা শেষ। ২৬টা আসন পেয়ে ক্ষমতা দখল করল মিজো জাতীয় ফ্রন্ট। কংগ্রেসের ভাগ্যে জুটেছে সাকুল্যে পাঁচটি আসন। নির্দলরা পেয়েছে ৮টি আসন। বিজেপি জিতেছে একটি আসনে। অন্যদিকে রাজস্থানে কংগ্রেস ১০৩ এবং বিজেপি ৭০টি আসনে এগিয়ে। মধ্যপ্রদেশে কংগ্রেস ১১৩ এবং বিজেপি ১০৩ আসনে এগিয়ে।

১৬:২৫ বুধবার সকালে রাজস্থান কংগ্রেসের পরিষদীয় কমিটির বৈঠক: সচিন পায়লট

১৬:১৫– কমিশনের তথ্য অনুযায়ী সর্বশেষ পরিস্থিতি। রাজস্থান- কংগ্রেস ১০২টা আসনে এগিয়ে/জয়ী, বিজেপি ৭১টা আসনে এগিয়ে/জয়ী। মধ্যপ্রদেশে কংগ্রেস ১১৪টা আসনে এগিয়ে/জয়ী, বিজেপি ১০৬টা আসনে এগিয়ে/জয়ী। ছত্তীসগঢ়ে কংগ্রেস ৬২টা আসনে এগিয়ে/জয়ী এবং বিজেপি ১৩টা আসনে এগিয়ে/জয়ী।

১৫:৫৫– কংগ্রেসকে হারিয়ে মিজোরামে ক্ষমতা দখল করল মিজো জাতীয় ফ্রন্ট। জানাল নির্বাচন কমিশন।

১৫:৪০– কমিশনের ইঙ্গিত রাজস্থানে একক সংখ্যাগরিষ্ঠ হওয়ার পথে কংগ্রেস। এই মুহূর্তে ১০৩টি আসনে এগিয়ে তারা। বিজেপি এগিয়ে ৬৮ আসনে। নির্দলরা এগিয়ে ১২টি আসনে। মধ্যপ্রদেশে কংগ্রেস এবং বিজেপি যথাক্রমে ১১৫ এবং ১০৫টি আসনে এগিয়ে। ছত্তীসগঢ়ে কংগ্রেস ৬২ এবং বিজেপি ১৩টি আসনে এগিয়ে

১৫:০০ রাজস্থানে জিতলেন তিন মহারথী। ৫০ হাজার ভোটে জিতলেন সচিন পায়লট, ৪৫ হাজার ভোটে জিতলেন বসুন্ধরা রাজে সিন্ধিয়া এবং ৩০ হাজার ভোটে জিতলেন অশোক গেহলট

১৪:৩০– চূড়ান্ত হাড্ডাহাড্ডি লড়াই চলছে মধ্যপ্রদেশে। এই মুহূর্তে বিজেপি ১১১ এবং কংগ্রেস ১০৯ আসনে এগিয়ে। রাজস্থানে কংগ্রেস ১০০ এবং বিজেপি ৭৩ আসনে এগিয়ে। ছত্তীসগঢ়ে কংগ্রেস ৬১ এবং বিজেপি ১৫ আসনে এগিয়ে।

১৩:৫৫– রাজস্থানে ১০১ আসনে এগিয়ে কংগ্রেস এবং ৭১ আসনে এগিয়ে বিজেপি। মধ্যপ্রদেশে ১১১ আসনে বিজেপি এবং কংগ্রেস ১০৯ আসনে। ছত্তীসগঢ়ে ৫৯ আসনে এগিয়ে কংগ্রেস এবং বিজেপি ১৭ আসনে

১৩:২০– নির্বাচন কমিশনের সর্বশেষ তথ্য। রাজস্থানে কংগ্রেস ৯৬, বিজেপি ৭৬ আসনে এগিয়ে। ছত্তীসগঢ়ে কংগ্রেস ৫৮, বিজেপি ১৭ আসনে এগিয়ে। মধ্যপ্রদেশে বিজেপি ১১১ এবং কংগ্রেস ১০৮ আসনে এগিয়ে। তেলঙ্গানায় টিআরএস ৮৭ এবং কংগ্রেস ২২ আসনে এগিয়ে।

১২:৫৫– অসমর্থিত সূত্রের খবর রাজস্থানে দুটি আসন জিতেছে সিপিএম। সরকারের গড়ার ক্ষেত্রে মুখ্য ভূমিকা পালন করতে হতে পারে সিপিএমকে।

১২:৩০– ছত্তীসগঢ়ে ভরাডুবি বিজেপির। ৬২টা আসনে কংগ্রেস এবং ১৯টা আসনে এগিয়ে বিজেপি।

১২:১৫– একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে কংগ্রেস। আশাবাদী অশোক গেহলট

১২:০০-রাজস্থানে নির্বাচন কমিশনের হিসেব- কংগ্রেস ৯৯, বিজেপি ৭৯, বিএসপি ২, সিপিএম ২, অন্যান্য ১৫

১১:৪০– মধ্যপ্রদেশে লড়াই হাড্ডাহাড্ডি। কংগ্রেসকে কিছুটা পেছনে রেখে আবার এগিয়ে গিয়েছে বিজেপি।

১১:৩০– মিজোরামে হেরে গেলেন মুখ্যমন্ত্রী তথা কংগ্রেস নেতা লাল ঠানওয়ালা

১১:২৫– রাজস্থানে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে কংগ্রেস, বললেন সচিন পায়লট।

১১:০৭– তিন রাজ্যেই বিজেপির থেকে এগিয়ে রয়েছে কংগ্রেস। তবে রাজস্থান এবং মধ্যপ্রদেশ ত্রিশঙ্কু হওয়ার ইঙ্গিত দিচ্ছে।

১১:০৫– নিজের কেন্দ্র এগিয়ে রয়েছেন শিবরাজ সিংহ চৌহান

১০:৫০– রাজস্থানের ভদ্রা এবং দুঙ্গরগড় কেন্দ্রে এগিয়ে রয়েছেন সিপিআইএম প্রার্থীরা।

১০:৪৫– কমিশনের তথ্য অনুযায়ী রাজস্থানে কংগ্রেস ৯১, বিজেপি ৭১ এবং অন্যান্যরা ২২টি আসনে এগিয়ে।

১০:৪০– মিজোরামে প্রাথমিক ইঙ্গিতে ম্যাজিক ফিগার পেরিয়ে গিয়েছে মিজো ন্যাশনাল ফ্রন্ট। ৪০-এর মধ্যে ২৫টা আসনে এগিয়ে তারা।

১০:৩৫– নির্বাচন কমিশনের তথ্য অনুযায়ী ছত্তীসগঢ়ে কংগ্রেস ২১, বিজেপি ৫ এবং অজিত যোগীর জনতা কংগ্রেস ২টি আসনে এগিয়ে।

১০:৩০– নিজেদের কেন্দ্রে এগিয়ে রয়েছেন বসুন্ধরা রাজে সিন্ধিয়া, অশোক গেহলট এবং সচিন পায়লট।

১০:১০– তেলঙ্গানা আর মিজোরাম ছাড়া গোবলয়ের তিন রাজ্যেই নিজেদের প্রভাব বিস্তার করছে কংগ্রেস। এর মধ্যে ছত্তীসগঢ়ে সব থেকে বেশি প্রভাব তাদের। প্রাথমিক ইঙ্গিতে রাজস্থান এবং ছত্তীসগঢ়ে ম্যাজিক ফিগার পেরিয়েছে কংগ্রেস। মধ্যপ্রদেশেও ম্যাজিক ফিগারের কাছাকাছি তারা।

১০:০২– হায়দরাবাদে নিজের আসনে জিতলেন এআইএমআইএম নেতা আখবারুদ্দিন ওয়াইসি।

১০:০০– ভোটের ফলের ট্রেন্ড আসা শুরু হতেই উচ্ছ্বাসে মেতে উঠেছেন কংগ্রেস কর্মীরা।

৯:৫০– তিন রাজ্যেই ব্যবধান বাড়াচ্ছে কংগ্রেস। রাজস্থানে ৯৬, মধ্যপ্রদেশে ৯৩ এবং ছত্তীসগঢ়ে ৪৯ আসনে এগিয়ে কংগ্রেস। এই তিন রাজ্যে যথাক্রমে ৬৭, ৮২ এবং ২৬ আসনে এগিয়ে কংগ্রেস।

৯:৩০– রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ এবং ছত্তীসগঢ়ে এগিয়ে কংগ্রেস। এই মুহূর্তে রাজস্থানে কংগ্রেস ৮৩, বিজেপি ৬৯ আসনে এগিয়ে, মধ্যপ্রদেশে কংগ্রেস ৬৪ এবং বিজেপি ৫৭ আসনে এগিয়ে। ছত্তীসগঢ়ে কংগ্রেস ৩৯ এবং বিজেপি ২৭ আসনে এগিয়ে। তেলঙ্গানায় দাপট টিআরএস। এগিয়ে ৮২ আসনে। কংগ্রেসের হাতছাড়া হতে চলেছে মিজোরাম। তবে সবকিছুই প্রাথমিক ইঙ্গিত।

৯:২৫– নিজের আসনে পিছিয়ে রয়েছে তিন বারের মুখ্যমন্ত্রী রমন সিংহ।

০৯:১০– রাজস্থানে কংগ্রেস এগিয়ে ৬৬ আসনে এবং বিজেপি এগিয়ে ৪৬ আসনে এগিয়ে। ছত্তীসগঢ়ে বিজেপি ২৭, কংগ্রেস ২১ এবং বিএসপি তিনটে আসনে এগিয়ে। মধ্যপ্রদেশে বিজেপি ৪১ এবং কংগ্রেস ৩৪ আসনে এগিয়ে। তেলঙ্গানায় ৬৫ আসনে এগিয়ে টিআরএস। মিজোরামে এমএনএফ ৭টা এবং কংগ্রেস দুটি আসনে এগিয়ে।

৯:০০– বেশিরভাগ জায়গাতেই এখনও পোস্টাল ব্যালটেই গণনা চলছে।

৮:৫৫– পাঁচ বছর আগে রাজস্থানে মোট ২১টা আসন জিতেছিল কংগ্রেস। এ বার ৬৫টা আসনের মধ্যেই তারা এগিয়ে ৩৮ আসনে। নিজের আসনে এগিয়ে কংগ্রেস প্রার্থী অশোক গেহলট। টঙ্ক আসনে এগিয়ে সচিন পায়লট।

৮:৪০- এনডিটিভি অনুযায়ী এই মুহূর্তে রাজস্থানের ২৮টা আসনের মধ্যে কংগ্রেস ১৯ এবং বিজেপি ন’টা আসনে এগিয়ে। মধ্যপ্রদেশের ১৭টা আসনের মধ্যে বিজেপি ন’টা এবং কংগ্রেস ৮টা আসনে এগিয়ে। ছত্তীসগঢ়ে ১৭টা আসনের মধ্যে কংগ্রেস ৮টা, বিজেপি ৬টা এবং বিএসপি জোট ২টো আসনে এগিয়ে। তেলঙ্গানায় ২৪টা আসনের মধ্যে টিআরএস ১৭টা আসনে, কংগ্রেস ৬টা, বিজেপি একটি আসনে এগিয়ে।

৮:২৫– রাজস্থানে ১৭ আসনের ট্রেন্ড এসেছে। ১২টা আসনে কংগ্রেস এবং পাঁচটা আসনে বিজেপি এগিয়ে। মধ্যপ্রদেশে ন’টা আসনের ট্রেন্ড এসেছে। কংগ্রেস পাঁচটা এবং বিজেপি চারটে আসনে এগিয়ে। ছত্তীসগঢ়ে চারটে আসনের মধ্যে বিজেপি এবং কংগ্রেস উভয়েই দুটি করে আসনে এগিয়ে। তেলঙ্গানায় ছ’টার মধ্যে টিআরএস চারটে এবং কংগ্রেস দুটি আসনে এগিয়ে।

৮:২০– এনডিটিভি সূত্রে জানা যাচ্ছে, এই মুহূর্তে রাজস্থানের দশটা আসনের ট্রেন্ড এসেছে। কংগ্রেস ছ’টা এবং বিজেপি চারটে আসনে এগিয়ে। মধ্যপ্রদেশের পাঁচটা আসনের মধ্যে কংগ্রেস দুটো এবং বিজেপি ৩টে আসনে এগিয়ে। তবে এগুলি সবই পোস্টাল ব্যালট।

৮:১৫– এই মুহূর্তে রাজস্থানে কংগ্রেসের দুই মহারথী অশোক গেহলট এবং সচিন পায়লট নিজেদের আসনে এগিয়ে রয়েছেন। অন্যদিকে পিছিয়ে রয়েছেন বসুন্ধরা রাজে সিন্ধিয়া

৮:১২– এই মুহূর্তে পোস্টাল ব্যালটের গণনা চলছে। কিছুক্ষণের মধ্যেই ট্রেন্ড আসা শুরু হয়ে যাবে।

৮:০৫– রাজস্থানে আসন সংখ্যা ১৯৯, সেখানে ম্যাজিক ফিগার ১০১। মধ্যপ্রদেশে আসন সংখ্যা ২৩০, সেখানে ম্যাজিক ফিগার ১১৬। ছত্তীসগঢ়ে আসন সংখ্যা ৯০, সেখানে ম্যাজিক ফিগার ৪৫। তেলঙ্গানার আসন সংখ্যা ১১৯, সেখানে ম্যাজিক ফিগার ৬০। মিজোরামে আসন সংখ্যা ৪০, সেখানে ম্যাজিক ফিগার ২১।

৮:০০– রাজস্থানে প্রতি পাঁচ বছর অন্তর পালটে যায় সরকার। সুতরাং এ বার যদি সেখানে কংগ্রেস ক্ষমতা দখল করে তা হলে সেই ঐতিহ্যই বহাল থাকবে মরুরাজ্যে। অন্যদিকে পনেরো বছর পর মধ্যপ্রদেশের ক্ষমতা দখল করতে মরিয়া রাহুল গান্ধীর দল। ছত্তীসগঢ়েও কী হতে পারে, আন্দাজ করা যাচ্ছে না। সেখানে কংগ্রেস এবং বিজেপির ভবিষ্যৎ নিয়ে জনমত সমীক্ষা দু’ভাগ। মিজোরামে কংগ্রেস হেরে যাওয়া মানে সমগ্র উত্তরপূর্ব ভারত কংগ্রেস-মুক্ত। তেলঙ্গানায় টিআরএসের জিতে যাওয়া মানে বোঝা যাবে মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাওয়ের ম্যাজিক এখনও বহাল রয়েছে।

দেশ

উত্তরপ্রদেশে ৮ পুলিশ হত্যা: ‘ভেতরের’ ভূমিকা নিয়ে পুলিশের তদন্ত, স্টেশন অফিসার সাসপেন্ড

কল ডিটেলস দেখে খুঁজে বার করা হবে বিকাশ দুবের সঙ্গে স্টেশন অফিসারের কত বার কথা হয়েছে।

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আট পুলিশ হত্যার এক দিন পরেই সাসপেন্ড করা হল চৌবেপুর থানার (Chaubeypur Police Station) স্টেশন অফিসার বিনয় তেওয়ারিকে (Vinay Tiwari)। ঘটনা নিয়ে তদন্ত চলার মধ্যেই এই পুলিশ অফিসারকে সাসপেন্ড করার নির্দেশ চলে এল।

কুখ্যাত অপরাধী বিকাশ দুবেকে (Vikas Dubey) ধরতে গিয়ে প্রাণ গেল এক জন ডিএসপি-সহ আট পুলিশকর্মীর। শুক্রবার উত্তরপ্রদেশের (Uttar Pradesh) কানপুরের (Kanpur) বিকারু (Bikru) গ্রামের এই ঘটনা নানা প্রশ্ন সামনে এনে দিয়েছে। তার মধ্যে সব চেয়ে বড়ো যে প্রশ্ন তা হল, বিকাশকে ধরতে যে পুলিশি অভিযান হবে, এই খবর কি কেউ তাকে আগাম জানিয়ে দিয়েছিল। না হলে সে এ রকম বিরাট প্রস্তুতি নিয়ে পুলিশের উপর অতর্কিত হামলা চালালো কী করে? এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে গিয়ে সামনে আসছে পুলিশের একাংশের ভূমিকার কথা।

স্টেশন অফিসার (station officer) বিনয় তেওয়ারির সাসপেনশনের খবরের সত্যতা স্বীকার করে পুলিশের ডিজিপি হীতেশ চন্দ্র অবস্থি জানিয়েছেন, বিকারু গ্রামের ঘটনায় স্টেশন অফিসারের ভূমিকা নিয়ে তদন্ত হচ্ছে।

কী ঘটেছিল সে দিন

বসপার (BSP) প্রাক্তন জেলা পঞ্চায়েত সদস্য বিকাশ দুবের বিরুদ্ধে হত্যার চেষ্টার অভিযোগে এফআইআর দায়ের করা হয়। তার আগে থেকে অবশ্য তার বিরুদ্ধে ৬০টি বিভিন্ন ধরনের অপরাধের মামলা রয়েছে। বিকাশের মাথার দাম ধরা হয়েছিল ৫০ হাজার টাকা। সেই বিকাশকে ধরতে তিনটি থানার পুলিশকর্মীরা শুক্রবার বিকারু গ্রামে হানা দেয়।

আরও পড়ুন: উত্তরপ্রদেশে দুষ্কৃতীদের গুলিতে নিহত ৮ পুলিশকর্মী

গ্রামে ঢোকার রাস্তাই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। পুলিশ গিয়ে সেই রাস্তা সাফ করে দেওয়ার পরেই দুষ্কৃতীরা পুলিশকে লক্ষ করে গুলি চালাতে শুরু করে। ঘটনায় নিহত হন ডেপুটি সুপারিন্টেনডেন্ট পদমর্যাদার এক পুলিশ আধিকারিক, তিন জন সাব ইনস্পেক্টর আর চার জন কনস্টেবল।

পুলিশের ‘ভেতরের’ ভূমিকা

পুলিশের সন্দেহ, তাদেরই ভেতর থেকে কেউ বিকারু গ্রামে তল্লাশি অভিযানের খবর আগাম জানিয়ে দিয়েছিল বিকাশকে। বিকাশকে সত্যিই এই খবর কেউ পাচার করেছিল কি না, তা নিয়ে তদন্ত চালানোর কথা স্বীকার করে কানপুর রেঞ্জের ইনস্পেকটর জেনারেল (আইজি) মোহিত আগরওয়াল বলেন, “পুলিশের দলকে স্বাগত জানানোর জন্য বিকাশের লোকেরা বেশ ভালো রকম প্রস্তুত ছিল। আর এতেই সন্দেহ হয়, “বিকাশকে এই খবর যে দিয়েছিল সে পুলিশেরই লোক”।

“এটা যদি সত্যি হয়, তা হলে যে পুলিশকর্মী এই কাণ্ড করেছে তাকে জেলে পাঠানো হবে এবং তাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হবে”, বলেন আইজি।

স্টেশন অফিসারের ভূমিকা

এক সিনিয়ার পুলিশ অফিসার জানান, ব্যক্তিগত লাভালাভের কারণে স্টেশন অফিসার বিনয় তেওয়ারি বা ওই থানার একাধিক পুলিশের সঙ্গে বিকাশের যোগাযোগ ছিল কি না তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। ওই অফিসার বলেন, “কল ডিটেলস দেখে আমরা খুঁজে বার করব দুবের সঙ্গে স্টেশন অফিসারের কত বার কথা হয়েছে।”

এর আগে আইজি বলেছিলেন, বিকাশ দুবের বিরুদ্ধে হত্যার চেষ্টার অভিযোগে যিনি এফআইআর করেছিলেন, স্টেশন অফিসারের সামনেই তাঁর সঙ্গে বিকাশকে ঝগড়া করতে শুনেছি।   

Continue Reading

দেশ

এই প্রথম ভারতে এক দিনে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২৪ হাজারের বেশি

গত শনিবার সকাল ৮টা থেকে শেষ ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ২৪ হাজার ৮৫০ জন কোভিড-১৯ আক্রান্তকে শনাক্ত করা হয়েছে।

ওয়েবডেস্ক: ভারতে এক দিনে নতুন করে করোনাভাইরাস (Coronavirus) আক্রান্ত হওয়ার সংখ্যা এই প্রথম ২৪ হাজার পার হল। রবিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের প্রকাশিত পরিসংখ্যানে জানানো হয়, গত শনিবার সকাল ৮টা থেকে শেষ ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ২৪ হাজার ৮৫০ জন কোভিড-১৯ (Covid-19) আক্রান্তকে শনাক্ত করা হয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানায়, এই নিয়ে টানা ন’দিন ভারতে এক দিনে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১৮ হাজারের বেশি।

স্বাভাবিক ভাবেই নতুন সপ্তাহের শুরুতেই বিশ্ব তালিকায় তৃতীয় স্থানে থাকা রাশিয়াকে টপকে যেতে পারে ভারত। তবে স্বাস্থ্যমন্ত্রক একই সঙ্গে জানিয়েছে, নুমনা পরীক্ষার হার দ্রুতগতিতে বাড়ার ফলেই শনাক্তের সংখ্যাও বাড়ছে।

মন্ত্রকের রিপোর্ট অনুযায়ী, এ মুহূর্তে সারা দেশে ১,০৮৭টি ল্যাবরেটরিতে নমুনা পরীক্ষা হচ্ছে। এর মধ্যে ৭৮০টি সরকারি এবং ৩০৭টি বেসরকারি ল্যাব। রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলি নমুনা পরীক্ষার পরিকাঠামো উন্নত করায় প্রতিদিন পরীক্ষা করা নমুনার সংখ্যাকে ক্রমাগত বাড়িয়ে চলেছে।

এক নজরে করোনা পরিসংখ্যান

শেষ ২৪ ঘণ্টায়

আক্রান্ত: ২৪,৮৫০

সুস্থ: ৯,৩৮১

মৃত: ৬১৩

এখনও পর্যন্ত

আক্রান্ত: ৬,৭৩,১৬৫

সুস্থ: ৪,০৯,০৮৩

মৃত: ১৯,২৬৮

সুস্থতার হার

দেশে সুস্থতার হার শনিবার পর্যন্ত ছিল ৬০.৮০ শতাংশ। তবে এ দিন তাতে ঈষৎ হলেও হ্রাস ধরা পড়েছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, দেশে সুস্থতার হার বর্তমানে রয়েছে ৬০.৭৭ শতাংশ।

রাজ্যওয়াড়ি সংক্রমণ

আক্রান্তের সংখ্য়ার নিরিখে দেশের মধ্যে প্রথম স্থানে রয়েছে মহারাষ্ট্র। এখনও পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা সেথানে দু’লক্ষের উপর। শেষ ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৭,০৭৪ জন।

মহারাষ্ট্রের পরবর্তী স্থানগুলিতে রয়েছে যথাক্রমে তামিলনাড়ু, দিল্লি এবং গুজরাত। তামিলনাড়ুতে এক দিনে নতুন আক্রান্ত ৪,২৮০ জন। গতকাল দিল্লিতে নতুন করে আক্রান্ত হন ২,৫০৫ জন, মোট আক্রান্ত ৯৭ হাজার ২০০। গুজরাতে শেষ চব্বিশ ঘণ্টায় ৭১২ জন আক্রান্ত হলেও মৃতের সংখ্যা বেড়েছে আরও ২১।

অন্য দিকে গত শনিবারই করোনা সংক্রমণের জোড়া রেকর্ড করেছে পশ্চিমবঙ্গ। প্রথমটি নতুন আক্রান্তের সংখ্যায়, যা এক দিন ৭৪৩, দ্বিতীয়টি ৫৯৫ জন সুস্থ হয়েছেন, যা এখনও পর্যন্ত দৈনিক সর্বোচ্চ।। বিশ হাজারের গণ্ডি ছাড়িয়ে রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছেছে ২১ হাজার ২৩১-এ।

বিশ্বে ভারতের অবস্থান

কনোরা আক্রান্তের সংখ্যার নিরিখে তালিকার শীর্ষে রয়েছে আমেরিকা (২,৯৩৫,৭৭০)। দ্বিতীয় এবং তৃতীয় স্থানে যথাক্রেম ব্রাজিল (১,৫৭৮,৩৭৬) এবং রাশিয়া (৬৭৪,৫১৫)। পরের স্থানেই ভারত। তৃতীয় স্থানে থাকা রাশিয়ার থেকে এ দিন ভারতের ব্যবধান মাত্র কয়েকশোতে ঠেকল।

Continue Reading

দেশ

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ২৪৮৫০, সুস্থ ৯৩৮১

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ভারতে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যায় কোনো রকম লাগাম না টানা গেলেও লকডাউনের কড়াকড়ি অনেকটাই শিথিল করা হয়েছে। শুরু হয়েছে আনলক পর্ব। মানুষ রাস্তায় বেরিয়ে পড়েছেন। স্বাভাবিক ভাবেই এখন আক্রান্তের সংখ্যা আগের থেকে অনেকটাই বাড়বে। মঙ্গলবার, তথা ১ জুলাই থেকে নতুন করে কোভিড আপডেট শুরু করল খবরঅনলাইন। ৩০ জুন পর্যন্ত যাবতীয় আপডেট পড়ার জন্য ক্লিক করুন এখানে

==================================================================

৫ জুলাই, সকাল দশটা

রবিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী ভারতে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬ লক্ষ ৭৩ হাজার ১৬৫। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২ লক্ষ ৪৪ হাজার ৮১৪। সুস্থ হয়েছেন ৪ লক্ষ ৯ হাজার ৮৩। মৃত্যু হয়েছে ১৯২৬৮ জনের।

গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২৪,৮৫০ জন। সুস্থ হয়েছেন ৯৩৮১ জন। মৃত্যু হয়েছে ৬১৩ জনের। দেশে সুস্থতার হার বর্তমানে রয়েছে ৬০.৭৭ শতাংশ।

৪ জুলাই, সকাল দশটা

শনিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী ভারতে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬ লক্ষ ৪৮ হাজার ৩১৫। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২ লক্ষ ৩৫ হাজার ৪৩৩। সুস্থ হয়েছেন ৩ লক্ষ ৯৪ হাজার ২২৭। মৃত্যু হয়েছেন ১৮,৬৫৫ জনের।

গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২২,৭১১ জন। সুস্থ হয়েছেন ১৪,৩৩৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ৪৪২। দেশে সুস্থতার হার বর্তমানে রয়েছে ৬০.৮০ শতাংশ।

৩ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

শুক্রবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) রিপোর্ট অনুযায়ী ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬ লক্ষ ২৫ হাজার ৫৪৪। এর মধ্যে সুস্থতার হারই পৌঁছে গিয়েছে ৬০.৭৯ শতাংশ মানুষ। অর্থাৎ ৩ লক্ষ ৭৯ হাজার ৮৯২ মানুষ সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

দেশে বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ২ লক্ষ ২৭ হাজার ৪৩৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ১৮,২১৩ জনের। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২০,৯০৩ জন। সুস্থ হয়েছেন ২০,০৩২ জন। মৃত্যু হয়েছে ৩৭৯ জনের। উল্লেখযোগ্য বিষয় হল গত ২৪ ঘণ্টায় সক্রিয় রোগী বেড়েছে মাত্র ৮৯২।

২ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) রিপোর্টে দেখা গিয়েছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬ লক্ষ ৪ হাজার ৬৪১। যদিও এর মধ্যে ৫৯.৫১ শতাংশ মানুষই সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়ে ওঠা মানুষের সংখ্যা ৩ লক্ষ ৫৯ হাজার ৮৬০। বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ২ লক্ষ ২৬ হাজার ৯৪৭ জন। মৃত্যু হয়েছে ১৭,৮৩৪ জনের।

গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৯,১৪৮ জন। সুস্থ হয়েছেন ১১,৯১২ জন। মৃত্যু হয়েছে ৪৩৪ জনের। রোগীবৃদ্ধির হার কিছুটা কমে এখন রয়েছে ৩.২৭ শতাংশ।

১ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

বুধবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক (Ministry of Health and Family Welfare) যে পরিসংখ্যান দিয়েছে তাতে দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫ লক্ষ ৮৫ হাজার ৪৯৩। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২ লক্ষ ২০ হাজার ১১৪। সুস্থ হয়েছেন ৩ লক্ষ ৪৭ হাজার ৯৪৮। মৃত্যু হয়েছে ১৭,৪০০ জনের।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৮,৬৫৩ জন। সুস্থ হয়েছেন ১৩,১২৬ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫০৭ জনের।

Continue Reading
Advertisement
শিক্ষা ও কেরিয়ার35 mins ago

সিবিএসই ২০২০: ফলাফল বেরোলে কী ভাবে মার্কশিট এবং সার্টিফিকেট পাওয়া যাবে?

দেশ53 mins ago

উত্তরপ্রদেশে ৮ পুলিশ হত্যা: ‘ভেতরের’ ভূমিকা নিয়ে পুলিশের তদন্ত, স্টেশন অফিসার সাসপেন্ড

দেশ1 hour ago

এই প্রথম ভারতে এক দিনে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২৪ হাজারের বেশি

দেশ3 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ২৪৮৫০, সুস্থ ৯৩৮১

Nitish Kumar
দেশ3 hours ago

বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার করোনা নেগেটিভ

রবিবারের পড়া3 hours ago

রবিবারের পড়া: ভারতীয় ক্রিকেট-বিপ্লবের দুই কারিগর

কলকাতা15 hours ago

শর্ট সার্কিট থেকে আগুন, বেহালায় পুড়ে মৃত্যু মা-মেয়ের

দেশ16 hours ago

করোনা মহামারিতে ‘ফুচকা’র জন্য গলা শুকোচ্ছে? এসে গেল ‘এটিএম’

নজরে