ফের বিতর্কে স্বঘোষিত ধর্মগুরু, আশ্রমে দুই মেয়েকে আটকে রাখার অভিযোগ দম্পতির

0
ফাইল ছবি

ওয়েবডেস্ক: ফের বিতর্কে স্বঘোষিত ধর্মগুরু স্বামী নিত্যানন্দ। তাঁর আশ্রমে দুই মেয়েকে আটকে রাখার অভিযোগ করলেন এক দম্পতি।

এই অভিযোগ করেই সোমবার নিত্যানন্দের বিরুদ্ধে গুজরাত হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন জনার্দন শর্মা ও তাঁর স্ত্রী। বেআইনি ভাবে জোর করে দুই কিশোরী কন্যাকে নিত্যানন্দের আশ্রমে আটকে রাখা হয়েছে বলে তাঁদের অভিযোগ।

ওই দম্পতির বয়ান অনুযায়ী, ২০১৩ সালে স্বামী নিত্যানন্দ পরিচালিত বেঙ্গালুরুর একটি শিক্ষামূলক প্রতিষ্ঠানে নিজের চার মেয়েকে ভর্তি করান অমদাবাদের বাসিন্দা জনার্দন শর্মা। সম্প্রতি তাঁরা জানতে পারেন, ওই চার জনকেই তাঁর আশ্রমের অন্য একটি শাখায় পাঠিয়ে দিয়েছেন নিত্যানন্দ।

অমদাবাদের দিল্লি পাবলিক স্কুলের ক্যাম্পাসেই এই আশ্রমটি রয়েছে। সেখানে গিয়ে মেয়েদের সঙ্গে দেখা করতে চাইলে জনার্দন ও তাঁর স্ত্রীকে তাড়িয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ।

আরও পড়ুন মার্শালদের পোশাক নিয়ে প্রবল আপত্তির পর পিছু হটল রাজ্যসভা

এর পরে পুলিশের সাহায্যে ফের ওই আশ্রমে যান জনার্দন। সে বার নাবালিকা দুই মেয়েকে ফিরিয়ে নিয়ে আসতে পারলেও বড়ো ও মেজ মেয়ে তাঁদের সঙ্গে ফিরতে চাননি। তাঁদের বয়স যথাক্রমে ২১ ও ১৮। বড়ো দুই মেয়েকে অপহরণ করে আটকে রাখা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন জনার্দন শর্মা।

আদালতে ওই দম্পতির আবেদন, নিত্যানন্দের আশ্রম থেকে তাঁর দুই মেয়েকে উদ্ধার করে নিয়ে আসার জন্য যেন পুলিশকে নির্দেশ দেয় আদালত। সেই সঙ্গে ওই আশ্রমের বিরুদ্ধে পুলিশি তদন্তেরও আবেদন জানিয়েছেন তিনি।

এর আগেই নিতানন্দের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.