খবরঅনলাইন ডেস্ক: তাঁর রাজ্য ঝাড়খণ্ডে করোনা-পরিস্থিতি যথেষ্ট জটিল। টিকার পাশাপাশি আকাল রয়েছে রেমডেসিভিরেরও। এই পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উদ্দেশে তীব্র শ্লেষ ছুড়ে দিলেন ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেন।

হেমন্তের কথায়, কোভিড পরিস্থিতির খোঁজ নিতে ফোন করলেও, মোদী শুধু একতরফা নিজের কথাই বলে গিয়েছেন। তাঁর কোনো কথাই শোনেননি।

Loading videos...

প্রথম ঢেউয়ে মোটের ওপরে অল্পের মধ্যে দিয়ে পার পেয়ে গিয়েছিল আপাত গ্রামীণ রাজ্য ঝাড়খণ্ড। কিন্তু দ্বিতীয় ঢেউয়ে নাজেহাল অবস্থা সেখানে। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লক্ষ ছুঁইছুঁই। এর মধ্যে গত দু’ সপ্তাহ ধরে রাজ্যে দৈনিক আক্রান্ত পাঁচ-ছ’ হাজারের মধ্যে ঘোরাফেরা করছে।

এই পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার কয়েকটি রাজ্যের মতো ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে ফোনে কথা বলেন মোদী। সেই কথোপকথনের পর হেমন্ত টুইট করে লেখেন, “আজ আদরণীয় প্রধানমন্ত্রী ফোন করেছিলেন। কিন্তু সেখানে তিনি শুধু নিজের মনের কথাই বলে গেলেন। ভালো হত যদি কাজের কথা বলতেন এবং কাজের কথা শুনতেনও।”

কোভিড পরিস্থিতি নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে একের পর এক তোপ দেগেছেন হেমন্ত। তিনি জানান, সংক্রমণ ঠেকাতে বাংলাদেশ থেকে ৫০ হাজার শিশি রেমডেসিভির কিনতে চেয়েছিল তাঁর সরকার। কিন্তু এখনও পর্যন্ত তার অনুমতি দেয়নি মোদী সরকার। তাঁর অভিযোগ, ঢাকঢোল পিটিয়ে ১৮ ঊর্ধ্ব সকলের টিকাকরণের ঘোষণা করে দিয়েছে কেন্দ্র। কিন্তু টিকা না থাকলে টিকাকরণ হবে কী করে?

অতিমারি সামাল দিতে কেন্দ্রের কাছ থেকে প্রত্যাশা অনুযায়ী কিছুই মেলেনি বলে অভিযোগ করেছেন রাজ্যের স্বাস্থ্য সচিব অরুণ সিংহও। তিনি জানান, এখনও পর্যন্ত মাত্র ২ হাজার ১৮১ শিশি রেমডেসিভির দেওয়া হয়েছে তাঁদের।

আরও পড়তে পারেন Covid-19: দেশের ১০টি রাজ্যেই নতুন আক্রান্তের প্রায় ৭২ শতাংশ!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.