মা এবং ভগবানের বিকল্প হল গরু, বিধান হায়দরাবাদ হাইকোর্টের বিচারপতির

0
392

হায়দরাবাদ: গত মাসেই গরুকে জাতীয় পশু ঘোষণা করার বিধান দিয়েছিলেন রাজস্থান হাইকোর্টের বিচারপতি মহেশ শর্মা। এ বার গরুকে ভগবান এবং মায়ের বিকল্প বলে আখ্যা দিলেন হায়দরাবাদ হাইকোর্টের বিচারপতি।

হায়দরাবাদ হাইকোর্টের বিচারপতি বি শিবশংকর রাও গরু সংক্রান্ত একটি মামলায় রায় দিতে গিয়ে বলেন, “গরু হল পবিত্র জাতীয় সম্পদ। গরু ভগবান এবং মায়ের বিকল্প।”

কিছু দিন আগে তেলঙ্গানার নালগোন্ডার এক গরু ব্যবসায়ী রামবন্ত হনুমার বাড়ি থেকে ৬৫টি গরু বাজেয়াপ্ত করে পুলিশ। অভিযোগ ওঠে, ঈদ উপলক্ষে গোমাংসের জন্য গরুগুলিকে নিয়ে এসেছিলেন হনুমা। নালগোন্ডার নিম্ন আদালতে হনুমা দাবি করেন, চরানোর জন্যই তিনি গরুগুলিকে এনেছেন, ঈদের জন্য নয়। এই ব্যাপারে নালগোন্ডা আদালতে আবেদনও করেন হনুমা, কিন্তু আদালত তাঁর আবেদন খারিজ দেয়। নিম্ন আদালতের এই রায়কে চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টের দারস্থ হন হনুমা। কিন্তু হনুমার আবেদন খারিজ করে দেয় হাইকোর্ট। বিচারপতি রাও জানিয়ে দেন যে নিম্ন আদালতের রায়ে কোনোভাবে নাক গলাবে না তারা।

পাশাপাশি সুপ্রিম কোর্টের এক বক্তব্যকে উদ্ধৃত করে ওই বিচারক বলেন, বকর ঈদ উপলক্ষে কোনও স্বাস্থ্যবান গরুকে জবাই করা মৌলিক অধিকারের মধ্যে পড়ে না। এ প্রসঙ্গে তিনি মোগল সম্রাট বাবরের কথাও উল্লেখ করেন। তাঁর কথায়, “গোহত্যা বন্ধ করেছিলেন বাবর। সেই সঙ্গে ছেলে হুমায়ুনকেও নির্দেশ দিয়ে গিয়েছিলেন তাঁর নীতি অনুসরণ করতে।” আকবর, জাহাঙ্গির এবং আহমেদ শাহ-ও গোহত্যা নিষিদ্ধ করেছিলেন, এমনই বলেন তিনি। পাশাপাশি রাজ্যে চিকিৎসকদেরও একটি নির্দেশ দেন তিনি। বলেন, যে সব চিকিত্সক ভুয়ো শংসাপত্র দিয়ে দুধেল গরুকে কষাইখানায় পাঠানোর ব্যবস্থা করছেন, তাঁদের অন্ধ্রপ্রদেশ গরু জবাই আইন, ১৯৭৭-এর আওতায় এনে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। প্রয়োজনে আইনের সংশোধন করে ওই চিকিত্সকদের বিরুদ্ধে জামিন-অযোগ্য পরোয়ানাও আনা দরকার বলে মত দেন তিনি।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here