aiks

ওয়েবডেস্ক: সিপিএমের ২২তম পার্টি কংগ্রেসে ঘোষণা করা হল নতুন কেন্দ্রীয় কমিটির তালিকা। ৯৫ জনের তালিকায় ঠাঁই পেয়েছেন ২০ জন নতুন সসদ্য। যার মধ্যে মহিলা সংরক্ষিত একটি পদে এখনও নাম ঘোষণা করা হয়নি। তবে ওই তালিকায় থাকা একটি নাম নিয়ে যথেষ্ট উজ্জ্বীবিত বামপন্থী কৃষক সংগঠন।

গত ১২ মার্চ মহারাষ্ট্র বিধানসভা ঘেরাও অভিযানের ডাক দিয়েছিল সারাভারত কিষাণসভা। সেই অভিযানে শামিল হতে গোটা মহারাষ্ট্র বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মাইলের পর মাইল পায়ে হেঁটে  অংশ নিয়েছিলেন ৫০ হাজার কৃষক। ওই কর্মসূচির মধ্যমণি ছিলেন জীবা পাণ্ডু গাভিত। সেই তিনিই এ বার কেন্দ্রীয় কমিটির নতুন সদস্য হিসাবে নির্বাচিত হলেন। সারা দেশ তোলপাড় করে দেওয়া ওই লং-মার্চের সাফল্যের পুরস্কার হিসাবেই দেখা হচ্ছে গাভিতের এই পদপ্রাপ্তিকে।

সারা ভারত কিষাণসভা বা এআইকেএস-এর তরফে কৃষকের ঋণ মকুব বা জঙ্গলের অধিকার আইনের স্বপক্ষে গৃহীত ওই কর্মসূচির প্রস্তাব তিনিই প্রথম উত্থাপন করেছিলেন বলে স্বীকার করেছিল ওই সংগঠন । রাজনীতিতে গাভিতের আবির্ভাব কৃষক আন্দোলনের মধ্যে দিয়েই। মহারাষ্ট্রের সরগুণা বিধানসভা এলাকাটি ছিল আদিবাসী অধ্যুষিত, ওই আসনেই ১৯৭৮-এ প্রথম বার বিধায়ক হিসাবে নির্বাচিত হন গাভিত। কারণ ওই অঞ্চলের আদিবাসী মানুষের এক মাত্র জীবিকা ছিল চাষবাস। যার জেরে কৃষক আন্দোলনের সাফল্য এসে পড়ে ভোটের ফলাফলেও। সেই থেকে টানা সাত বার তিনি ওই কেন্দ্র (আসন পুনর্বিন্যাসের জন্য নাম পালটে কল্বান) থেকে নির্বাচিত হয়ে এসেছেন।বর্তমানে মহারাষ্ট্র বিধানসভার একমাত্র সিপিএম তথা বামপন্থী বিধায়ক এই গাভিত।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here