সোনভদ্রে নিহতদের পরিবারের কাছে পৌঁছে গেল সিপিএম প্রতিনিধি দল, উঠল চাঞ্চল্যকর অভিযোগ

কয়েকজনকে জোর করে হাসপাতাল ছাড়তে বাধ্য করা হয়েছে

0
এটি একটি প্রতিনিধিত্বমূলক ছবি

ওয়েবডেস্ক: উত্তরপ্রদেশের সোনভদ্রের উভাগ্রামে জমি বিবাদকে কেন্দ্র করে দুই গোষ্ঠীর লড়াইয়ে নিহতদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করল সিপিএমের প্রতিনিধি দল। দলের তরফে জানানো হয়েছে, শনিবার উভাগ্রামে যান সিপিএমের ছয় সদস্যের ওই প্রতিনিধি দল। তারা নিহতদের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেন। গ্রামবাসীদের মুখ থেকে ভয়ঙ্কর সেই ঘটনার বিবরণ শোনার পাশাপাশি যোগী আদিত্যনাথ সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন সিপিএম নেতৃত্ব।

এলাকা পরিদর্শনের পর সিপিএমের লিখিত বিবৃতিতে দাবি করা হয়, “আদিবাসীদের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ উত্তরপ্রদেশের যোগী প্রশাসন। অন্য দিকে স্বাধীনতার সাত দশক পার হলেও পাট্টা বিতরণে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়ে চলেছে রাজ্য সরকার। স্থানীয় জমি মাফিয়ারা আধিবাসীদের ক্রমাগত চাষাবাদ বন্ধের হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। আধিবাসীরা সংশ্লিষ্ট আধিকারিকদের কাছে অভিযোগ জানালেও ঠুঁটো জগন্নাথ হয়ে রয়েছে যোগী প্রশাসন”।

একই সঙ্গে সিপিএম দাবি করে, “আহতদের চিকিৎসায় একটা পয়সা খরচ করেনি যোগী সরকার। এমনকী কয়েকজনকে জোর করে হাসপাতাল ছাড়তে বাধ্য করা হয়েছে”।

প্রসঙ্গত, উত্তরপ্রদেশের সোনভদ্র জেলার উভা গ্রামে একটি জমি বিবাদকে কেন্দ্র করে গুজ্জর ও গোণ্ড জনগোষ্ঠীর মধ্যে বচসার সৃষ্টি হয়। যার জেরে প্রবল সংঘর্ষ বাঁধে। প্রবল সংঘর্ষ হয়। অভিযোগ, গ্রামপ্রধানের নেতৃত্বের গুলি চলে। গোণ্ডদের দাবি, তাঁদের জমি থেকে উৎখাত করতে আধ ঘণ্টা ধরে গুলি চালায় গুজ্জররা।

পুলিশ জানায়, মৃত্যু হয় ১০ জনের। যার মধ্যে ৩ জন মহিলা। ২৪ জন গুরুতর আহত হন। তাঁদের হাসপাতালে ভরতি করা হয়। এই সংঘর্ষে যুক্ত থাকার অভিযোগে দুই জনগোষ্ঠীর মোট ২৯ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আহতদের বারাণসীতে বেনারস হিন্দু বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রমা সেন্টারে ভর্তি করা হয়।

এ দিন সিপিএম দাবি করে, সাত দশক ধরে চাষ করে আসা জমিতে অবিলম্বে পাট্টা বিলি করুক রাজ্য সরকার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.