sc

নয়াদিল্লি : স্কুলপড়ুয়াদের জীবনের সুন্দর দিকগুলো সম্পর্কে সজাগ করতে হবে। লক্ষ রাখতে হবে যাতে তারা কোনো ভাবেই অবসাদগ্রস্ত হয়ে না পড়ে। ‘ব্লু হোয়েল চ্যালেঞ্জ’-এর মতো মারণখেলার হাত থেকে কিশোরসমাজকে বাঁচাতে সোমবার সুপ্রিম কোর্ট এমনই নির্দেশ দিল সব ক’টি রাজ্য সরকারকে। কেন্দ্রের তৈরি অন্তর্বর্তীকালীন রিপোর্টের প্রেক্ষিতে এই নির্দেশ সর্বোচ্চ আদালতের। আইনজীবী স্নেহা কালিতা সুপ্রিম কোর্টের কাছে একটা আবেদন করেছিলেন। আবেদনে বলা হয়েছিল, ‘ব্লু হোয়েল’-এর মতো প্রাণঘাতী খেলাগুলোর হাত থেকে কিশোরসমাজকে বাঁচাতে ও ভার্চুয়াল জগতের এই সব খেলার ওপর নিয়ন্ত্রণ আনতে কিছু নির্দেশিকা দিক আদালত। সেই আবেদনের নিষ্পত্তিতে এ দিন এই নির্দেশ দিল সর্বোচ্চ আদালত।

‘ব্লু হোয়েল সুইসাইড চ্যালেঞ্জ’কে একটা জাতীয় সমস্যা হিসেবে চিহ্নিত করেছে সুপ্রিম কোর্ট। গত মাসে এই খেলা বন্ধ করার কী উপায়? কেন্দ্রকে তা ঠিক করার নির্দেশ দিয়েছিল আদালত। সিদ্ধান্ত জানানোর জন্য তিন সপ্তাহের সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয়েছিল।

আরও পড়ুন : ভাবতেও পারবেন না কী কারণে ব্লু হোয়েল খেলছে দন্তেওয়াড়ার ছাত্রছাত্রীরা

পিটিআই-এর খবর অনুযায়ী, প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র এবং বিচারপতি এ এম খানুইলকর ও বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়ের মিলিত বেঞ্চ বলে, স্কুলের পড়ুয়াদের জীবনের সুন্দর দিকটার প্রতি আকর্ষণ তৈরি হওয়া দরকার। আর ‘ব্লু হোয়েল সুইসাইড চ্যালেঞ্জ’-এর মতো প্রাণঘাতী খেলা বন্ধ হওয়া দরকার। পাশাপাশি প্রত্যেক রাজ্যের প্রধান সচিব আর কেন্দ্রের মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক (এইচআরডি)কে এর প্রেক্ষিতে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেয় বেঞ্চ। গোটা দেশের সব ক’টি স্কুলে এই মারাত্মক খেলার কুফল সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধির ব্যাপারেও এইচআরডিকে সচেষ্ট হতে বলে বেঞ্চ।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের অক্টোবর মাসে আদালত এ সম্পর্কে বলেছিল, প্রয়োজনে দূরদর্শন সম্প্রচার আর প্রাইভেট টিভি চ্যানেলগুলোতে দিনের প্রাইমটাইমে স্লট নিয়ে এই মারণ খেলার বিষয়ে সতর্কতা গড়ে তুলতে হবে। এই সমস্ত ভার্চুয়াল গেমের সাইটগুলোকে ব্লক করার জন্য কেন্দ্রকে বিশেষজ্ঞদের একটা প্যানেল তৈরির নির্দেশও দেয় আদালত।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here