নয়াদিল্লি : বাবরি মসজিদ ধ্বংস নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে ফের একবার ধাক্কা খেল বিজেপি। সিবিআইয়ের আর্জি মেনে নিয়ে সুপ্রিম কোর্ট বুধবার জানিয়ে দিল, মসজিদ ধ্বংসের ব্যাপারে আডবাণীদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি ষড়যন্ত্রের মামলা চলবে। এ বার শুনানি হবে লখনউ আদালতে। মসজিদ ধ্বংসে সক্রিয় ভাবে লিপ্ত থাকার অভিযোগে আরও ২০ জনের বিরুদ্ধে মামলা চলছে এই আদালতে। সুপ্রিম কোর্ট বলেছে, দু’ বছরের মধ্যে মামলা শেষ করতে হবে। রায়বরেলি আদালতে যে মামলা চলছে, তা চার সপ্তাহের মধ্যে লখনউ আদালতে নিয়ে আসতে হবে। শীর্ষ আদালত আরও জানিয়ে দিয়েছে, স্বাভাবিক পরিস্থিতিতে মামলা মুলতুবি করা যাবে না এবং মামলা চলাকালীন কোনো বিচারককে বদলি করা যাবে না।

বাবরি মসজিদ ধ্বংসের মামলায় লালকৃষ্ণ আডবাণী ছাড়াও মুরলী মনোহর জোশী, উমা ভারতী, কল্যাণ সিংহ প্রমুখ বিজেপি নেতা জড়িত। কল্যাণ সিংহ রাজস্থানের রাজ্যপাল হওয়ায় তাঁর সাংবিধানিক রক্ষাকবচ রয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করা যায় না। তাই যত দিন তিনি রাজ্যপাল থাকবেন তত দিন তাঁর বিরুদ্ধে মামলা করা যাবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে শীর্ষ আদালত। আর যে সব বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের মামলা চলবে তাঁরা হলেন বিনয় কাটিয়ার, সাধ্বী ঋতম্ভরা, সতীশ প্রধান, চম্পত রাই বনসল এবং প্রয়াত গিরিরাজ কিশোর।

আডবাণীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তাঁরা উত্তেজক বক্তৃতা দিয়ে লক্ষ লক্ষ করসেবককে মসজিদ ধংস করতে প্ররোচিত করেছিলেন। রায়বরেলিতে এই অভিযোগ নিয়ে বিচার চলছে। সুপ্রিম কোর্টের এ দিনের রায়ের অর্থ হল, ওই নেতাদের আরও গুরুতর অভিযোগের মুখে পড়তে হতে পারে।

সি বি আই বলেছে, যে দিন মসজিদ ধ্বংস করা হয়, সে দিন ওই মসজিদের কাছেই মঞ্চ বেঁধে বিজেপি নেতারা বক্তৃতা দিচ্ছিলেন। এই নেতারা যে মসজিদ ধ্বংসের পুরো ছকটার সঙ্গে জড়িত ছিলেন, তার যথেষ্ট সাক্ষ্যপ্রমাণ তাদের হাতে আছে। গোয়েন্দা সংস্থা বলেছে, আডবাণী ও অন্য বিজেপি নেতারা ১৯৯০ সালে বৈঠক করে ঠিক করেছিলেন মসজিদ গুঁড়িয়ে দেওয়া হবে। সি বি আইয়ের মতে, বাবরি মসজিদ ধ্বংস একটা পূর্ব-পরিকল্পিত ইচ্ছাকৃত ঘটনা।

সি বি আই বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি ষড়যন্ত্রের যে অভিযোগ করেছিল, ২০১০ সালে ইলাহাবাদ হাইকোর্ট তাতে সহমত পোষণ করেনি। ইলাহাবাদ হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে যায় সি বি আই।

দিন দশেক আগে এই মামলার শুনানি চলার সময় শীর্ষ আদালত ইঙ্গিত দিয়েছিল, রায়বরেলি ও লখনউ আদালতে চলা দু’টি মামলা এক করে দেওয়া হবে। তার অর্থ, আডবাণীদের বিরুদ্ধে মামলা লখনউ আদালতেই সামগ্রিক মামলার অংশ হিসাবেই চলবে। বুধবারের রায়ে সেটাই বলে দিল সুপ্রিম কোর্ট।

 

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here