representational pic.
প্রতীকী ছবি। সৌজন্যে ইন্ডিয়া টিভি।

নয়াদিল্লি: তাঁর অপরাধ, তিনি একজনের নাচের ছন্দ নিয়ে টিটকারি করেছিলেন। সেই অপরাধে তাঁকে খুন হতে হল। ঘটনাটি ঘটেছে রাজধানীতে, বুধবার রাতে এক ধর্মীয় মিছিলে। সন্দেহভাজন খুনিকে এখনও ধরা যায়নি।

নিহত যুবকের নাম অবিনাশ সাঙ্গোয়ান, বয়স ২০। তিনি একজন নৃত্য প্রশিক্ষক। মধ্য দিল্লির এক মন্দিরের সামনে এক ধর্মীয় মিছিলে তখন নৃত্য চলছিল। একজন অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তি সেই মিছিলেই নাচছিলেন। কিন্তু সংগীতের তালে তালে তিনি পা মেলাতে পারছিলেন না। সেই সময় অবিনাশ তার নাচ নিয়ে ইয়ার্কি করেন। সেটা সহ্য করতে না পেরে ওই ব্যক্তি অবিনাশকে গুলি করে বসেন। হাসপাতালে অবিনাশকে নিয়ে যাওয়া হলে ডাক্তাররা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

ওই মিছিলে অবিনাশের বন্ধু নিখিল সাঙ্গোয়ান ছিলেন। তিনিও নৃত্য প্রশিক্ষক। পুলিশকে গোটা ঘটনার বিবরণ দেন তিনি। মধ্য দিল্লির মন্দির মার্গে বাল্মীকি মন্দিরের সামনে বাল্মীকি জয়ন্তীর অনুষ্ঠান চলছিল। সেই অনুষ্ঠানে সবাই নাচছিলেন। অবিনাশ, নিখিল এবং তাঁদের অন্য বন্ধুরাও নাচছিলেন। সেই সময় তাঁরা দেখেন, একজন মোটাসোটা লোকও নাচছে। কিন্তু সে নাচের ছন্দে ঠিকমতো পা ফেলতে পারছে না। অবিনাশ তখন ঠাট্টা করে ওই ব্যক্তিকে কিছু বলে। ওই ব্যক্তি রেগে গিয়ে প্রথমে অবিনাশকে ঠেলা মারে। অবিনাশ খুব একটা গুরুত্ব দেননি। ওই ব্যক্তি চলে যায়। অবিনাশরা নাচ চালিয়ে যেতে থাকেন।

“কিছুক্ষণ পর দুই বন্ধুকে নিয়ে ওই ব্যক্তি ফিরে আসে এবং নাচ শুরু করে। হঠাৎ গুলির শব্দ শুনতে পাই। দেখি অবিনাশের বুক থেকে ঝরঝর করে রক্ত পড়ছে। আমরা অবিনাশের টি শার্ট খুলে দিই। দেখি বুকের ডান দিক থেকে রক্ত ঝরছে। আমরা কিছু বোঝার আগেই অবিনাশ রাস্তায় পড়ে যায়। তাঁকে কাছেই লোহিয়া হাসপাতালে নিয়ে যাই” – পুলিশের কাছে দেওয়া বয়ানে এই কথা বলেছেন নিখিল।

লোহিয়া হাসপাতালের ডাক্তাররা জানান, হাসপাতালে আনার আগেই মৃত্যু হয় অবিনাশের।

 

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here