rape haryana dalit

ওয়েবডেস্ক: পনেরো বছরের দলিত কিশোরীকে ধর্ষণ করে খুনের ঘটনায় চাঞ্চল্যকর মোড়। দেহ মিলল ঘটনায় মূল অভিযুক্ত দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রের। মঙ্গলবার রাতে তার দেহ উদ্ধার হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

চার দিন আগেই ক্ষতবিক্ষত অবস্থায় হরিয়ানার ঝিন্দ জেলার বুদ্ধখেরায় ওই দলিত কিশোরীর দেহ পাওয়া গিয়েছিল। অভিযুক্ত ছেলেটির দেহ পাওয়া গিয়েছে কুরুক্ষেত্র জেলার কিরমাচ গ্রামে একটি খালে। দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন কুরুক্ষেত্রের ডেপুটি পুলিশ সুপার ধীরজ সিংহ। ছেলেটির পরিবারের সদস্যরা দেহটি শনাক্ত করেছে বলে জানা গিয়েছে।

পুলিশের সন্দেহ, এই ছেলেটি হয়তো মেয়েটিকে ধর্ষণ করেনি, এবং দু’জনকেই অজ্ঞাতপরিচয় কোনো ব্যক্তিই খুন করেছে। ‘অনার কিলিং’ বা পরিবারের সম্মান রক্ষার্থে খুনের তত্ত্বও উড়িয়ে দিচ্ছে না পুলিশ। তবে মেয়েটির পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, ওই কিশোরীর সঙ্গে ছেলেটির কোনো সম্পর্ক ছিল না।

ঘটনার তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছেন ডেপুটি পুলিশ সুপার। এর আগে পুলিশ জানিয়েছিল ৯ জানুয়ারি ওই কিশোরী এবং ওই ছেলেটিকে এক সঙ্গে দেখা গিয়েছিল। এর পরেই কিশোরীটির আর কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। পরে নিজের গ্রামের বাড়ি থেকে ১১০ কিমি দূরে বুদ্ধখেরায় তার দেহ মেলে।

গত শনিবার দুপুরে কিশোরীর মৃতদেহ উদ্ধারের খবর টিভি মারফত জানতে পারে তার পরিবার। কিশোরীর ময়নাতদন্তের রিপোর্ট থেকে জানা গিয়েছে ১৯টা ক্ষতের চিহ্ন ছিল তার শরীরে। তা ছাড়া শরীরের ভেতরে একাধিক ক্ষত। সঙ্গে ভোঁতা শক্ত অস্ত্রের সাহায্যে যৌনাঙ্গে নৃসংশভাবে আঘাতের চিহ্ন। রোহতক মেডিক্যাল কলেজের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন অন্তত দু’জন মিলে ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করেছিল।

মঙ্গলবার সারাদিন ছেলেটির বাড়ির দরজা বন্ধ ছিল। প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন, কিশোরীর দেহ উদ্ধারের পর থেকে ছেলেটির পরিবারকে দেখা যায়নি।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন