মুম্বই: বহুতল ভেঙে পড়ার ঘটনায় ক্রমশ বেড়ে চলেছে মৃতের সংখ্যা। বুধবার সকালে সংখ্যাটি ১৪-এ এসে ঠেকেছে। মঙ্গলবার সারা রাত ধরে অক্লান্ত পরিশ্রম করে আটকে পড়া মানুষদের উদ্ধারের চেষ্টা করেছেন উদ্ধারকারকারী দলের সদস্যরা। মৃতদের পাশাপাশি দুই শিশু-সহ ন’জনকে নিরাপদে উদ্ধার করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার সকালে মুম্বইয়ের ডংরিতে প্রায় একশো বছরের পুরোনো একটি চারতলা বাড়ি ভেঙে পড়ে। বৃহন্মুম্বই পুরসভার বিপর্যয় মোকাবিলা দফতর জানিয়েছে, ডংরির তান্ডেল স্ট্রিটে কেশরবাড়ি নামে ওই ভবনটি সকাল ১১.৪০ মিনিটে ভেঙে পড়ে। গোটা ঘটনার ওপরে নজর রাখা এক প্রত্যক্ষদর্শীর বয়ান অনুযায়ী, “প্রচণ্ড শব্দে কেঁপে ওঠে গোটা এলাকা। ভূমিকম্প হল মনে হচ্ছিল। বিল্ডিং ভেঙে পড়ল বলে সবাই চিৎকার করা শুরু করল।”

Loading videos...

আরও পড়ুন আইএসআই নয়, কুলভূষণকে অপহরণ করে নিয়ে গিয়েছিল পাক জঙ্গিগোষ্ঠী!

প্রথমে স্থানীয় বাসিন্দারা উদ্ধারকাজে নামেন, পরে সেখানে পৌঁছোন দমকল এবং বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর জওয়ানরা। মঙ্গলবার সারা রাত ধরে উদ্ধারকাজ চালিয়ে গিয়েছেন বাহিনীর তিনটে দল। তাদের সঙ্গে সমানে হাত মিলিয়ে গিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারাও।

ওই ভবনটি প্রায় একশো বছরের পুরোনো বলে দাবি স্থানীয়দের। পুরসভা বাড়িটিকে বিপজ্জনক বলেও চিহ্নিত করেছিল বলে খবর। সেখানে ৭-৮টি পরিবার বসবাস করে। উল্লেখ্য, গত এক সপ্তাহ ধরে জলমগ্ন ছিল গোটা এলাকা। তার জেরে ওই ভবনের ভিত দুর্বল হয়ে পড়ে বলে দাবি স্থানীয়দের।   

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.