কাশ্মীরে মৃত বেড়ে ২৩, জম্মু থেকে অমরনাথ যাত্রা বন্ধই

0

খবর অনলাইন: কাশ্মীর উপত্যকায় অশান্তি অব্যাহত। হিজবুল জঙ্গি বুরহান ওয়ানির মৃত্যুর পর তিন দিন কেটে গেলেও উপত্যকায় নিরাপত্তাবাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষ চলছেই। রবিবার পর্যন্ত হিংসায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৩। এর মধ্যে একজন কিশোরীও রয়েছে। প্রতিবাদ-বিক্ষোভ ঠেকাতে গিয়ে নিরাপত্তাবাহিনী বাড়াবাড়ি করেছে বলে যে সব অভিযোগ এসেছে সে ব্যাপারে তদন্ত করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মেহেবুবা মুফতি। ইতিমধ্যে কাশ্মীরের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার নিয়ে তিন দিন জম্মু থেকে অমরনাথ যাত্রা স্থগিত রাখা হয়েছে।

পুলিশ সূত্রের খবর, দক্ষিণ কাশ্মীর থেকে উত্তর কাশ্মীর পর্যন্ত হিংসা ছড়িয়ে পড়েছে। প্রতিবাদীরা হিজবুল প্রধান সাইদ সালাউদ্দিনের গ্রাম সিওবাগে একটি পুলিশ স্টেশনে আগুন ধরিয়ে দেয়। তারা সঙ্গমের কাছে ঝিলামের জলে একটি পুলিশের গাড়িকে ফেলে দিলে গাড়ির চালক আফ্রজ আহমেদের মৃত্যু হয়।

দক্ষিণ কাশ্মীরের ত্রালে বিক্ষোভকারীদের ছোড়া গুলিতে আব্দুল গনি নামে এক  পুলিশ কনস্টেবল আহত হন। পুলওয়ামার কাছে ডিএসপি’র গাড়ি লক্ষ করে গুলি ছোড়া হয়। ডিএসপি অবশ্য অক্ষত। আরেকটি জায়গায় গ্রেনেড আক্রমণে ৪ জন সিআরপিএফ জওয়ান আহত হন।  রাজ্যে কারফিউ জারি থেকে সত্ত্বেও অনন্তনাগ, কুলগাম-সহ বিভিন্ন এলাকা থেকে হিংসাত্মক ঘটনার খবর এসেছে।

কাশ্মীরের মুখ্যমন্ত্রী মেহেবুবা মুফতি হিংসাত্মক ঘটনায় মৃত্যুর জন্য গভীর দুঃখ প্রকাশ করেছেন। দলমত নির্বিশেষে সমস্ত রাজনৈতিক দল, এমনকি বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠীগুলির কাছেও রাজ্যে শান্তি ফিরিয়ে আনতে সহযোগিতা করার আবেদন জানিয়েছেন। কিন্তু রাজ্যে নতুন করে হিংসা ছড়িয়ে পড়ার জন্য শাসকগোষ্ঠীকে দায়ী করে মধ্যপন্থী হুরিয়ত নেতা মিরওয়াইজ উমর ফারুক বলেছেন, “কী করে  সাহায্য করব ? আমরা শান্তির পক্ষে বিপজ্জনক, আমাদের এই তকমা দিয়ে ওরা আমাদের খাঁচায় পুরে রাখছে, অবরুদ্ধ করছে, কণ্ঠরোধ করছে। আমাদের ঈদের প্রার্থনাটাও করতে দেওয়া হয়নি।”

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, কাশ্মীরে হিংসার জেরে সোমবার নিয়ে তিন দিন বন্ধ রয়েছে অমরনাথ যাত্রা। পুলিশ সূত্রের খবর, জম্মুর ভগবতী নগর যাত্রী নিবাস থেকে কোনও যাত্রীকেই অমরনাথের দিকে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। শ্রীঅমরনাথজি শ্রাইন বোর্ডের এক অফিসার জানান,  রবিবার ৮৬১১ জন যাত্রী অমরনাথ দর্শন করেছেন। এঁরা কাশ্মীরের পরিস্থিতি খারাপ হওয়ার আগেই বালতাল ও পহলগামে পৌঁছে গিয়েছিলেন।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন