Connect with us

দেশ

পতঞ্জলির কোরোনিল নিয়ে শীঘ্রই সিদ্ধান্ত নেবে আয়ুশ মন্ত্রক, জানালেন আয়ুশমন্ত্রী

খবরঅনলাইন ডেস্ক: কেন্দ্রীয় আয়ুশ (Ayush – Ayurveda, Yoga & Naturopathy, Unani, Siddha and Homeopathy) মন্ত্রক যত দিন না অনুমোদন দেয়, তত দিন বাবা রামদেবের পতঞ্জলি আয়ুর্বেদ (Patanjali Ayurved) কোরোনিল-এর (Coronil) বিজ্ঞাপন করতে পারবে না। আয়ুশমন্ত্রী শ্রীপদ নাইক (Shripad Naik) বৃহস্পতিবার এ কথা জানিয়েছেন।

মন্ত্রী অবশ্য বলে দিয়েছেন, মন্ত্রক পতঞ্জলির এই নতুন ওষুধ নিয়ে শীঘ্রই সিদ্ধান্ত নেবে। পতঞ্জলির দাবি, এই ওষুধ সেবনে সাত দিনের মধ্যে করোনাভাইরাস (coronavirus) সংক্রমণ সেরে যাবে। এ সপ্তাহের গোড়ার দিকে ওষুধটি বাজারে এনে বাবা রামদেব (Baba Ramdev) দাবি করেছিলেন, কোভিড ১৯ (Covid 19) রোগীদের ওপর কোরোনিল নিয়ে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল করতে গিয়ে ১০০ শতাংশ অনুকূল ফল পাওয়া গিয়েছে।

আরও পড়ুন: করোনা দাওয়াই: রামদেবকে মামলায় জড়়াচ্ছে রাজস্থান সরকার

পতঞ্জলির করোনা কিট-এ (Corona Kit) তিনটি ওষুধ আছে – কোরোনিল, শোয়াসরি ও অনু তেল। এই কিট ৩০ দিন চলে, জানিয়েছেন পতঞ্জলি আয়ুর্বেদের ম্যানেজিং ডিরেক্টর আচার্য বালকৃষ্ণ (Acharya Balkrishna)। ২৮০ জন কোভিড ১৯ রোগীর উপর ওষুধটি পরীক্ষা করা হয় এবং ৬৯ শতাংশ রোগী তিন দিনের মধ্যে সুস্থ হয়ে যান, জানিয়েছিলেন বাবা রামদেব।

করোনাভাইরাস সংক্রমণ থেকে সুস্থ করতে পারে এমন একটি ওষুধ তৈরির জন্য জয়পুরের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব মেডিক্যাল সায়েন্সেস-এর সঙ্গে হাত মেলায় পতঞ্জলি রিসার্চ ইনস্টিটিউট। হরিদ্বারের দিব্য ফার্মেসি এবং পতঞ্জলি আয়ুর্বেদ বাবা রামদেবের করোনা কিট তৈরি করবে।

আরও পড়ুন: ‘আইন ভাঙিনি, মিথ্যে বলিনি’, করোনা দাওয়াই প্রসঙ্গে রামদেব

গুলঞ্চলতা, তুলসী ও অশ্বগন্ধা দিয়ে তৈরি কোরোনিল। পতঞ্জলির দাবি, এই ওষুধ করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক হিসাবেও কাজ করে। তবে রামদেব জানিয়েছেন, এই ওষুধ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য নয়, এই ওষুধ করোনা চিকিৎসার জন্য।

শ্রীপদ নাইক বলেন, রামদেবের আয়ুর্বেদ ওষুধ কোম্পানি এই ওষুধ নিয়ে যে গবেষণা ও ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল করেছে, তার নথিপত্র মঙ্গলবার আয়ুশ মন্ত্রকে পাঠানো হয়েছে। তবে রামদেবের উদ্যোগের প্রশংসা করেন মন্ত্রী। তিনি বলেন, “যখন সবাই কোভিড ১৯ থেকে সুস্থ হওয়ার উপায় খুঁজছে, সেই সময় এ ধরনের উদ্যোগ সত্যি খুব ভালো। তবে যথাযথ প্রক্রিয়া মেনে চলতে তো হবে।”

কোরোনিল নিয়ে রাজ্যগুলি কী বলছে

মহারাষ্ট্র সরকার বলেছে, আয়ুশ মন্ত্রকের চূড়ান্ত সম্মতির আগে পতঞ্জলি যদি এই ওষুধ নিয়ে বিজ্ঞাপন করতে যায় বা এই ওষুধ বিক্রি করতে যায়, তা হলে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

রাজস্থান সরকারও বৃহস্পতিবার বলেছে, আয়ুশ মন্ত্রকের অনুমোদন ছাড়া কোরোনিল ও শোয়াসরি রাজ্যে ওষুধ হিসাবে ব্যবহার করা যাবে না। রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী রঘু শর্মা বলেছেন, “করোনার চিকিৎসার ওষুধ বিক্রি করতে আমরা পতঞ্জলিকে অনুমতি দেব না। আইসিএমআর-এর (ICMR) অনুমোদন আসার পর আমরা সিদ্ধান্ত নেব।”

জ্বর ও কাশির বিরুদ্ধে শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য একটি ওষুধ বানানোর লাইসেন্সের জন্য আবেদন করার পর কোভিড ১৯ সারানো যাবে বলে বাজারে ওষুধ আনার জন্য রামদেবের পতঞ্জলি আয়ুর্বেদের কাছে নোটিশ পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিজেপি পরিচালিত উত্তরাখণ্ড জানান। সরকারের এক আধিকারিক এই খবর দিয়েছেন।

দেশ

নাগাল্যান্ডে নিষিদ্ধ হল কুকুরের মাংস

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সোশ্যাল মিডিয়ায় তীব্র চাপের মুখে পড়ে নতি স্বীকার করল নাগাল্যান্ড সরকার। রাজ্যে কুকুরের মাংস বিক্রির ওপরে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হল।

শুক্রবার এই বিষয়েই টুইট করে নাগাল্যান্ডের মুখ্যসচিব টেনজেন টয় বলেন, “কুকুরের বাণিজ্যিক রফতানি এবং কুকুরের মাংস বিক্রি নিষিদ্ধ করেছে রাজ্য সরকার। কাঁচা বা রান্না করা, কোনো ধরনের মাংসই আর বিক্রি করা যাবে না।”

উল্লেখ্য, কিছু দিন ধরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ছবি ভাইরাল হয়ে গিয়েছিল। ছবিতে দেখা যাচ্ছিল যে বস্তায় করে কুকুরদের নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। পশ্চিমবঙ্গ থেকে কুকুরগুলিকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে দাবি করেন একজন টুইটার ব্যবহারকারী।

এই খবর প্রকাশ্যে আসতে হস্তক্ষেপ করেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মানেকা গান্ধীও। কুকুর এ ভাবে আমদানি বা রফতানি বন্ধ করার জন্য নাগাল্যান্ড পুলিশের কাছেও আবেদন করেন মানেকা। এই নিয়ে হইচই শুরু হতেই মাংসের ওপরে নিষেধাজ্ঞা জারি হল নাগাল্যান্ডে।

উল্লেখ্য, উত্তরপূর্ব ভারতে, বিশেষত নাগাল্যান্ডে কুকুরের মাংস খুবই জনপ্রিয় একটা খাবার। এই মাংস খাওয়ার ব্যাপারে সরকারি কোনো আইনও নেই। এ ছাড়া খরগোশ আর বাঁদরের মাংসও ব্যাপক ভাবে খাওয়া হয় এই সব অঞ্চলে।

Continue Reading

দেশ

রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা, রেল বেসরকারিকরণের প্রতিবাদে ট্রেড ইউনিয়নগুলি

ওয়েবডেস্ক: জাতীয়তাবাদের নামে ‘সরকারের শ্রমিক-বিরোধী, কৃষক-বিরোধী, জনবিরোধী নীতি’র বিরুদ্ধে শুক্রবার সারাদেশে বিক্ষোভ দেখাল কেন্দ্রীয় শ্রমিক সংগঠনগুলি। তারা দিনের শেষে কেন্দ্রীয় শ্রমমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপিও জমা দেয়।

স্মারকলিপিতে কেন্দ্রীয় শ্রমিক সংগঠনগুলি সরকারি উদ্যোগের বেসরকারিকরণ, যেমন ভারতীয় রেল, প্রতিরক্ষা, বন্দর ও ডক, কয়লা, এয়ার ইন্ডিয়া, ব্যাঙ্ক, বিমা এবং মহাকাশ বিজ্ঞান ও পারমাণবিক শক্তির বেসরকারিকরণের বিরোধিতা করে। সরকারের এই সিদ্ধান্ত দেশের প্রাকৃতিক সম্পদ এবং ব্যবসা দখল করতে বেসরকারি ও বিদেশি সংস্থাগুলিকে সুবিধা করে দেবে বলে অভিযোগ করা হয়।

সংগঠনগুলির একটি যৌথ বিবৃতিতে দাবি করা হয়, “কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে চরম সংকটে পড়েছে সাধারণ মানুষ। এই পরিস্থিতিতে জরুরিকালীন পদক্ষেপ নেওয়ার পরিবর্তে নিত্যনতুন আইন এবং নির্দেশ জারি করে মানুষকে আরও বিপাকে ফেলা হচ্ছে।”

সংগঠনগুলি দাবি, গত তিনমাসে করোনাভাইরাস লকডাউনের কারণে দেশের ১৪ কোটি কর্মী কাজ হারিয়েছেন। দৈনিক মজুরির, চুক্তিভিত্তিক শ্রমিকদের ধরলে এই সংখ্যাটা ২৪ কোটি ছুঁয়ে ফেলবে।

পথে নামল কোন কোন সংগঠন

শুক্রবার ১০টি কেন্দ্রীয় শ্রমিক সংগঠন বিক্ষোভ দেখায়। এগুলির মধ্যে ছিল কংগ্রেসের আইএনটিইউসি, বামপন্থী সিআইটিইউ এবং এআইটিইউসি। এ ছাড়া এআইইউটিইউসি, এলপিএফ, এইচএমএস, টিইউসিসি, এসইডব্লিউএ, এআইসিসিটিইউ এবং ইউটিইউসি বিক্ষোভে শামিল হয়। এর আগে গত ২২মে শ্রম আইন পরিবর্তনের বিরোধিতায় প্রতিবাদে শামিল হয়েছিল সংগঠনগুলি।

পড়তে পারেন: যাত্রী ট্রেন চালাতে বেসরকারি সংস্থার কাছ থেকে আবেদন চাইছে রেলমন্ত্রক

Continue Reading

দেশ

‘বিস্তারবাদ’ অতীত, বিশ্বে এখন ‘বিকাশবাদ’ প্রাসঙ্গিক, লাদাখে বললেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

আমরা যেমন বংশীধারী শ্রীকৃষ্ণের পুজো করি, তেমনই সুদর্শন চক্রধারী শ্রীকৃষ্ণের পুজোও করি, লাদাখে বললেন প্রধানমন্ত্রী

ওয়েবডেস্ক: ভারত-চিন সীমান্ত উত্তেজনার মাঝেই আচমকা লাদাখ সফরে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সেনাবাহিনীর উদ্দেশে বক্তব্য় রাখেন। তিনি বলেন, সারা বিশ্বে ‘বিস্তারবাদ’ এখন মুছে গিয়েছে। এখন ‘বিকাশবাদ’ প্রাসঙ্গিক। সারা প‌ৃথিবী এখন বিস্তারবাদী শক্তির বিরুদ্ধে একজোট হয়ে লড়াই করছে।

চিনের আগ্রাসী মনোভাবের বিরুদ্ধে মোদী বলেন, “এখন বিকাশবাদের যুগ। ইতিহাস সাক্ষী, বিস্তারবাদীরা মুছে গিয়েছে। বিশ্বে শান্তি বিঘ্নিত করার জন্য চেষ্টা চালিয়েছে বিস্তারবাদীরা। কিন্তু প্রতিবারই তাদের পরাস্ত হতে চেয়েছে। কারণ, সারা বিশ্ব তাদের বিরুদ্ধে একজোট হয়ে লড়ছে”।

সেনার মনোবল বাড়াতে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “গলওয়ান উপত্যকায় আপনারা যে বীরত্ব দেখিয়েছেন, তা সারা দেশ স্মরণে রাখবে। সারা বিশ্ব দেখেছে আপনাদের বীরত্ব এবং ক্রোধ। আপনাদের বীরত্বের জন্যই সারা দেশ সুরক্ষিত। শান্তির জন্য় যে শক্তি চাই, সেটাই আপানারা দেখিয়ে দিয়েছেন। আপনাদের সংকল্প এই উপত্য়কার থেকেও শক্ত, আপনাদের ইচ্ছাশক্তি এই পর্বতের মতোই অটল”।

একই সঙ্গে নাম না করে প্রধানমন্ত্রী চিনকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, “গলওয়ান উপত্যকা আমাদেরই। লাদাখ ভারতের মুকুট। ভারত সব সময়ই শান্তির কথা বলে। কিন্তু আমরা যেমন বংশীধারী শ্রীকৃষ্ণের পুজো করি, তেমনই সুদর্শন চক্রধারী শ্রীকৃষ্ণের পুজোও করি। আমরা হাতিয়ার ধরতে জানি। ভারতের শত্রুতা সেনার শক্তি দেখেছে”।

সেনার সঙ্গে কথা বলার সময় প্রধানমন্ত্রী মোদী বলেন, “ আমরা সবাই মিলে আত্মনির্ভর ভারত গড়ে তুলব। আপনার আত্মত্যাগের মাধ্যমে আত্মনির্ভর ভারত আরও দৃঢ় হবে। আপনাদের কাছ থেকে অনুপ্রেরণা নিয়ে আমরা আরও কঠিন চ্য়ালেঞ্জের মোকাবিলা করব”।

লাদাখের গলওয়ান উপত্যকায় চিনা বাহিনীর মুখোমুখি হওয়া ভারতীয় জওয়ানদের সাহসিকতার প্রশংসা করে মোদী বলেন, “১৪ কোরের বীরত্বের কাহিনী সবাই জানে। আপনার বীরত্ব ও বীরত্বের কাহিনি দেশের প্রতিটি বাড়িতে প্রতিধ্বনিত হচ্ছে”। একই সঙ্গে এ দিন তিনি আরও একবার ওই সংঘর্ষে শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান।

চিনের প্রতিক্রিয়া

ভারতের প্রধানমন্ত্রীর লাদাখ সফরের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই চিনের বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ন বলেন, “ভারত ও চিন সামরিক ও কূটনৈতিক চ্যানেলের মাধ্যমে উত্তেজনা হ্রাস করার বিষয়ে যোগাযোগ এবং আলোচনা চালাচ্ছে। এই মুহূর্তে পরিস্থিতির আরও অবনতি ঘটাতে পারে এমন কোনো পদক্ষেপে কোনো পক্ষেরই জড়ানো উচিত নয়”।

Continue Reading
Advertisement
fat
শরীরস্বাস্থ্য6 mins ago

কোমরের পেছনের মেদ কমান এই ব্যায়ামগুলির সাহায্যে

বিদেশ28 mins ago

নরেন্দ্র মোদীর ‘বিস্তারবাদী’ মন্তব্যের পর চিনের কড়া প্রতিক্রিয়া

রাজ্য1 hour ago

এ বার মাস্ক না পরলে শাস্তি‍! নতুন নির্দেশিকা রাজ্যের

ক্রিকেট1 hour ago

২০১১ বিশ্বকাপ কাণ্ড: ম্যাচ গড়াপেটার তদন্ত বন্ধ করল শ্রীলঙ্কা

দেশ2 hours ago

নাগাল্যান্ডে নিষিদ্ধ হল কুকুরের মাংস

দেশ2 hours ago

রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা, রেল বেসরকারিকরণের প্রতিবাদে ট্রেড ইউনিয়নগুলি

দেশ3 hours ago

‘বিস্তারবাদ’ অতীত, বিশ্বে এখন ‘বিকাশবাদ’ প্রাসঙ্গিক, লাদাখে বললেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

gst
শিল্প-বাণিজ্য4 hours ago

জিএসটি-তে বড়োসড়ো স্বস্তি, কমল জরিমানা

নজরে