দিল্লির আনাজ মান্ডির ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য

0

ওয়েবডেস্ক: রবিবার সকালে দিল্লির আনাজ মান্ডির ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে মৃত্যু হয়েছে ৪৩ জনের। এই দুর্ঘটনার কারণ খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিয়েছে দিল্লি প্রশাসন। তবে প্রাথমিক পর্যবেক্ষণে জানা গিয়েছে, অগ্নিকাণ্ডের কারণ শর্টসার্কিট। একই সঙ্গে দমকল বিভাগ দাবি করল, ওই সবজি বাজারের ফায়ার ক্লিয়ারেন্স ছিল না।

দমকল বিভাগের দাবি, অগ্নিনির্বাপণ সংক্রান্ত কোনো নন-অবজেকশনাল সার্টিফিকেট বা এনওসি ছিল না ওই ইউনিটের। একে ঘিঞ্জি এলাকা, তার উপর আগুন নেভানোর মতো কোনো উপকরণ বা ব্যবস্থা ছিল না বাজারটিতে। যে কারণে ঘটনাস্থলে পৌঁছেও আগুন নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসতে হিমশিম খেতে হয় দমকলকর্মীদের। কোনো রকমে জানলার গ্রিল কেটে ভিতরে প্রবেশ করেন তাঁরা।

দিল্লির ফায়ার সার্ভিসের ডিরেক্টর অতুল গর্গ জানিয়েছেন, “এই বিল্ডিংয়ে দমকল বিভাগের ছাড়পত্র নেই এবং এখানে অগ্নিনিরাপত্তার কোনো সরঞ্জামও পাওয়া যায়নি”।

এ ধরনের তথ্য প্রকাশ্যে আসার পরই যে কোনো ধরনের নির্মাণের জন্য আরও কড়া আইন নিয়ে আসার দাবি উঠেছে। কী ভাবে রাজধানীর একটি জনবহুল জায়গায় বেআইনি ভাবে এই আনাজ মান্ডি বিল্ডিং গড়ে উঠেছিল, তা নিয়ে সরকারের সমালোচনায় সরব বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলিও। এ ধরনের বেআইনি নির্মাণগুলিকে চিহ্নিত করে অবিলম্বে শাস্তিমূলক এবং সহায়ক ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি উঠেছে।

এ দিনের অগ্নিকাণ্ডের পরই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী অগ্নিকাণ্ডে মৃতদের পরিবার পিছু দুই লক্ষ টাকার অনুদান করে ঘোষণা করেছেন। পাশাপাশি অগ্নিকাণ্ডে গুরুতর আহতদের প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকার আর্থিক সহায়তা দেওয়া হবে বলে প্রধানমন্ত্রীর দফতর (পিএমও) জানিয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী জাতীয় ত্রাণ তহবিল থেকে এই টাকা ব্যয় করা হবে বলে পিএমও একটি টুইটার পোস্টে জানায়।

অগ্নিকাণ্ডের পরেই দিল্লি সরকার এই ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে। নির্দেশে বলা হয়েছে, সাত দিনের মধ্যে বিস্তারিত প্রতিবেদন জমা করতে হবে। মৃতের পরিবারের জন্য মাথাপিছু ১০ লক্ষ টাকা এবং আহতদের জন্য এক লক্ষ টাকা আর্থিক ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করা হয়েছে।

অন্য দিকে দিল্লি বিজেপির পক্ষে মনোজ তিওয়ারি ঘটনাস্থলে গিয়ে মৃত এবং আহতদের আর্থিক সহায়তার ঘোষণা করেন। তিনি বলেন, মৃতদের পরিবারকে ৫ লক্ষ এবং আহতদের ২৫ হাজার টাকা করে আর্থিক সাহায্য করবে দিল্লি বিজেপি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.