Connect with us

দুর্গা পার্বণ

প্রবাসের পুজো: আনন্দের পসরায় কোনো ঘাটতি নেই দিল্লির পুজোয়

cooperative durgapuja, CR Park

হরপ্রসাদ সেন

শারদোৎসব যে শুধু বাংলার একার নয় তা প্রমাণিত হয়েছে বহু বছর আগেই – ভারতবর্ষের বিভিন্ন প্রদেশে বসবাসকারী বাঙালিদের আয়োজিত এই উৎসবের মাধ্যমে। রূপে, রসে, গন্ধে, আকারে, আয়োজনে কলকাতা বা বাংলার দুর্গোৎসবের চেয়ে কোনো অংশে কম নয় প্রবাসের পুজো।

আরও পড়ুন: দুর্গাপূজায় মেতেছে রাঁচি, ট্র্যাফিক নিয়ন্ত্রণে কড়া ব্যবস্থা

দিল্লির দুর্গাপূজা কয়েক বছর আগেই শতবর্ষ অতিক্রম করেছে। এ বারেও নিয়ে এসেছে অফুরন্ত আনন্দের ছোঁয়া। পঞ্চমীর রাত্রের প্রবল বৃষ্টি একটা আশঙ্কা তৈরি করেছিল ঠিকই, তবে গত তিন দিনে আবহাওয়ার উন্নতিতে বৃষ্টির আশঙ্কা অনেকটাই কমে গিয়েছে। ফলে ষষ্ঠী থেকেই মণ্ডপগুলোতে উপচে পড়া ভিড়।

মেলা গ্রাউন্ডের মণ্ডপ।

চিত্তরঞ্জন পার্কের পুজো প্রতিটি বাঙালির কাছেই আকর্ষণীয়। বর্ণে-বৈচিত্র্যে এখানকার পুজো একটু আলাদা। এখানে প্রতিটি পুজো কমিটি প্রতি বছরই মণ্ডপসজ্জায় আলাদা গুরুত্ব দেয়। এ বারেও তার ব্যতিক্রম হয়নি। পাশাপাশি রয়েছে ‘আনন্দমেলা’। শুরু হয়েছে চতুর্থী থেকেই। এই মেলায় স্টল দেন এলাকার কয়েকশো বাঙালি, অবাঙালি। তাঁরা তাঁদের হাতে বানানো জিনিস বিক্রি করেন। শ্রেষ্ঠ অংশগ্রহণকারীদের পুরস্কৃত করেন পূজা কমিটিগুলি।

চিত্তরঞ্জন পার্কের মেলাগ্রাউন্ড, বি ব্লক, কো-অপারেটিভ বা নবপল্লি – সর্বত্র মানুষের ঢল। লম্বা লাইন প্রতিমাদর্শনের জন্য। তবে মা দুর্গার বোধন না হওয়া পর্যন্ত কেউ মায়ের মুখ দর্শন করতে পারেন না।

চিত্তরঞ্জন পার্কের পুজোয় দর্শক সমাগম বেশি হলেও মণ্ডপসজ্জায় অন্যান্য জায়গার পুজো কোনো অংশেই কম যায় না। দক্ষিণ-পশ্চিম দিল্লির দ্বারকায় দশ-বারোটি পুজো হয়। এ বছরও তা-ই হচ্ছে। প্রতিটি প্যান্ডেলে দর্শনার্থীদের ভিড় চোখে পড়ার মতো। দ্বারকার পুজোগুলোর মধ্যে দক্ষিণায়ন, ঐকতান, বঙ্গীয় সমাজ বা দ্বারকা কালীবাড়ির পুজো উল্লেখনীয়।

দ্বারকায় ১৪ সেক্টরের প্রতিমা।

মুম্বই-কলকাতার বিশিষ্ট শিল্পীরা ষষ্ঠী-সপ্তমীর-অষ্টমীর রাত গানবাজনা ও অন্যান্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে মাতিয়ে দিয়েছেন। নবমীর রাতেও বসবে আসর।

দিল্লিতে শতবর্ষ পার করেছে একমাত্র কাশ্মীরি গেটের বেঙ্গলি ক্লাবের পুজো। আরও ছ’-সাতটি পুজো উদযাপন করে ফেলেছে তাদের হীরক জয়ন্তী।

এ বছর ৭৫ পার করতে চলেছে লোধি রোডের পুজো। তাই যতটা পেরেছে তারা তাদের পুজো আকর্ষণীয় করার চেষ্টা করেছে। চন্দননগরের আলো, বেলুড় মঠের আদলে গেট এ বছর লোধি রোডের পুজোর বিশেষ আকর্ষণ। রয়েছে কলকাতার শিল্পীদের নানা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

সব মিলিয়ে দিল্লির পুজো এ বছর বেশ জমজমাট। অর্থনৈতিক মন্দা এ বারের পুজোয় খুব একটা প্রভাব ফেলেছে বলে মনে হয় না। দিল্লির প্রবাসী বাঙালিরা এই ক’টা দিন অফুরন্ত আনন্দ থেকে নিজেদের বঞ্চিত করতে চান না।

কলকাতার পুজো

চোরবাগান চট্টোপাধ্যায় পরিবারের দুর্গাপূজায় ভোগ রান্না করেন বাড়ির পুরুষ সদস্যরা

শুভদীপ রায় চৌধুরী

উত্তর কলকাতা মানেই বনেদি বাড়ির দুর্গাদালানে বহু বছরের ঐতিহ্যকে ফিরে পাওয়া। তিলোত্তমার এই মহোৎসব বহু প্রাচীন, তার মধ্যে অন্যতম হল মধ্য কলকাতার চোরবাগানের চট্টোপাধ্যায় পরিবার।

চোরবাগানের রামচন্দ্র ভবনের নির্মাতা রামচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় তাঁর বাড়ির ঠাকুরদালানে ১৮৬১ সালে শুরু করেন দেবী দুর্গার আরাধনা স্ত্রী দুর্গাদাসীর পরামর্শে। রামচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় বহু টাকা উপার্জন করে ১২০ নং মুক্তারামবাবু স্ট্রিটে বাড়ি তৈরি করলেন। সেই বাড়িতেই পুজো শুরু করেন রাঢ়ী শ্রেণির ব্রাহ্মণ।

অন্যান্য বহু বাড়িতে রথের সময় কাঠামোপুজো হলেও, চট্টোপাধ্যায় পরিবারে কাঠামোপুজো অনুষ্ঠিত হয় জন্মাষ্টমী তিথিতে। কাঠামোপুজোর দিন একটি লাঠিকে (পরিবার সূত্রে জানা যায় এই লাঠির বয়স পুজোরই সমসাময়িক) পুজো করা হয়। তার পর সেই লাঠিটি দিয়ে আসা হয় কুমোরটুলিতে। সেখানেই নিমাই পালের স্টুডিওতে  সপরিবার মৃন্ময়ী তৈরি হন।

অতীতে বাড়িতেই ঠাকুর তৈরি হত, রূপ দিতেন নিমাই পালের পূর্বসূরিরা। তবে বর্তমানে কুমোরটুলি থেকেই মা আসেন চট্টোপাধ্যায়দের বাড়িতে দেবীপক্ষের দ্বিতীয়া তিথিতে। দুর্গাপুজোর পঞ্চমীর দিন দেবীকে বেনারসি শাড়ি ও বিভিন্ন প্রাচীন স্বর্ণালংকার পরানো হয়।

পরিবারের সদস্য অরিত্র চট্টোপাধ্যায় একটি বিশেষ রীতির কথা জানালেন। তিনি বলেন, “এই বাড়িতে ষষ্ঠীর দিন রাত্রিবেলা হয় বেলবরণ উৎসব। কথিত আছে, কৈলাস থেকে মা এসে বেলগাছের তলায় বিশ্রাম নেন। তাই ষষ্ঠীর দিন বাড়ির মহিলারা গভীর রাত্রে মায়ের চার দিকে প্রদক্ষিণ করে বরণ করেন ও দেবীকে স্বাগত জানান সে বছরের জন্য।”

সপ্তমীর দিন বাড়িতেই কলাবউ স্নান করানো হয়। আগে এই বাড়িতে ডাকের সাজের প্রতিমা হলেও পরে পরিবর্তন করা হয়েছে। বর্তমানে চট্টোপাধ্যায় পরিবারে পুজো করে থাকেন শিশিরকুমার চট্টোপাধ্যায়।

অতীতে এই বাড়িতে বলিদান হত। সপ্তমী ও সন্ধিপূজায় একটি করে ও নবমীর দিন তিনটি পাঁঠাবলি দেওয়া হত। সেই প্রথা আজ বন্ধ, বর্তমানে প্রতীকী বলিদান হয় পুজোর সময়।

২০১৯-এ দুর্গাসপ্তমীর দিন চোরবাগানের চট্টোপাধ্যায় বাড়ির ইতিহাস সংবলিত পুস্তিকা প্রকাশ অনুষ্ঠানে প্রবীণ সাংবাদিক ও জনসংযোগ বিশেষজ্ঞ বিশ্বজিৎ মতিলাল (মাঝে) ও সাংবাদিক-লেখক শংকরলাল ভট্টাচার্য (ডান দিকে)।

চট্টোপাধ্যায় পরিবারের বিশেষ বৈশিষ্ট্য হল এই বাড়িতে ভোগ রান্না করেন বাড়ির পুরুষ সদস্যরা। খিচুড়ি, নানান রকমের ভাজা, শুক্তনি, চিংড়িমাছের মালাইকারি, ভেটকিমাছের ঘণ্ট, লাউচিংড়ি, চাটনি, পায়েস, পানতুয়া ইত্যাদি নানান রকমের ভোগ রান্না করে দেবীকে নিবেদন করা হয়।

এই বাড়িতে দুর্গাপুজোর দশমীর দিন হয় রান্নাপুজো, যাকে বলা হয় দুর্গা-অরন্ধন দিবস, অর্থাৎ আগের দিন সমস্ত রান্না করা হয়। দশমীর দিন ভোগ থাকে পান্তাভাত, ইলিশমাছের অম্বল, চাতলার চাটনি, কচুশাক ইত্যাদি।

আরও পড়ুন: দুর্গাপুজোর সূচনা: মতিলাল শীল বাড়ির কাঠামোপুজো হল উল্টোরথের দিন

দুর্গাপুজোর দশমীর দিন পরিবারের সদস্যরা মিলে মায়ের সামনে এক প্রার্থনাসংগীত পরিবেশন করেন। সকলে মিলে দেবীর কাছে অশ্রুজলে প্রার্থনা জানান ১৬ পঙক্তির স্তব গেয়ে। অতীতে এই চট্টোপাধ্যায় বাড়িতে এক কীর্তনের দল ছিল, ‘রাধারমণ কীর্তন সমাজ’ নামে। দলটির পরিচালনার দায়িত্বে ছিলেন চট্টোপাধ্যায় পরিবারের চিন্তামণি চট্টোপাধ্যায় ও মণীন্দ্রকৃষ্ণ চট্টোপাধ্যায়। এঁরাই মূলত গান করতেন। তাই সেই প্রাচীন কাল থেকেই ঠাকুরের বিসর্জনের আগে সবাই মিলে প্রচলিত সুরে গানটি করেন – ‘ভজিতে তোমারে শিখি নাই কভু / ডাকি শুধু তোমায় মা বলে।/ সাধনার রীতি জানি নাকো নীতি / পূজি শুধু তোমায় আঁখিজলে…”।  

Continue Reading

দুর্গা পার্বণ

পুজোর কার্নিভাল: রাজীব বসুর ক্যামেরায়

kashi bose lane

ওয়েবডেস্ক: বৃষ্টি নিয়ে আশঙ্কা থাকলেও বৃষ্টি কোনো বাধ সাধেনি। বৃষ্টির মোকাবিলায় সব রকম ব্যবস্থা থাকলেও, সে সব ব্যবহার করতে হয়নি। শুক্রবার রেড রোডে পুজোর কার্নিভাল নির্বিঘ্নেই সম্পন্ন হল।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নির্ধারিত সময়ের আগেই উপস্থিত হন। অতিথি অভ্যাগতরাও যথাসময়ে হাজির হয়ে যান।

কার্নিভালে আমন্ত্রিত বিদেশি বাণিজ্য দূতাবাসের আধিকারিকরা।

কলকাতার নামজাদা সর্বজনীন পূজাকমিটিগুলি তাঁদের প্রতিমা নিয়ে মিছিল করে যান। সঙ্গে ছিল নানা সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। পুলিশের কসরতও।

আলিপুর ৭৮ পল্লি।

শ্রীভূমি স্পোর্টিং ক্লাব।

চোরবাগান সর্বজনীন।

ভবানীপুর স্বাধীন সংঘ।

তেলেঙ্গাবাগান।

বাঘা যতীন তরুণ সংঘ।

দমদম পার্ক ভারত সংঘ।

ফরোয়ার্ড ক্লাব।  

Continue Reading

দুর্গা পার্বণ

সিঁদুর খেলতে যাবেন? ফিরে এসে ত্বকের যত্নে এই ৩টি টিপস অবশ্যই কাজে লাগবে

sindur-khela

ওয়েবডেস্ক : দশমীতে সিঁদুর খেলার আনন্দ অনেকটা দোল খেলাকে মনে করিয়ে দেয়। সকাল সকাল তৈরি হয়ে মণ্ডপে গিয়ে শুরু হবে একে অপরকে সিঁদুরে রাঙিয়ে দেওয়ার খেলা। এতে ত্বকে প্রচুর পরিমাণ রাসায়নিক লেগে যায়।

পুজোকে ঘিরে কত আনন্দ উদ্দীপনা। নিজেকে আকর্ষণীয় করে তোলার জন্য নানান প্রচেষ্টা। তার জন্য বেশ কিছু দিন আগে থেকেই নানান প্যাক, ফেসিয়াল ইত্যাদি ব্যবহার করে সুন্দর হয়ে ওঠার হিড়িক। তার পর যেটা হয়, পুজো শুরু হয়ে যায়। আর হইহই করে পুজোয় সাজগোজ, আনন্দ, ঘোরা, আড্ডা, ঠাকুর দেখা করতে গিয়ে আর নিজেদের প্রিয় ত্বকের যত্ন নেওয়াই ঠিক মতো হয়ে ওঠে না।

অথচ পুজোর এই দিনগুলিতে চলে প্রচণ্ড চড়া মেকআপ। সেটি তোলার পর্যন্ত সময় থাকে না। ফলে ধীরে ধীরে তা ক্ষতি করে আমাদের ত্বকের। কিন্তু আমাদেরই তো খেয়াল রাখা উচিত প্রিয় ত্বকের। তাই ত্বকের ক্ষতি হয়ে আনন্দে যেন কোনো ভাঁটা না পরে। সেই দিকে খেয়াল রাখতে হবে।

তাই প্রথমেই যে বিষয়টিতে মনোযোগ দিতে হবে তা হল মেকআপ বা সিঁদুর খেলার পর সেই সিঁদুর ভালো করে তুলতে হবে। রইল মেকআপ তোলা আর তারপর ত্বকের যত্নের জন্য কয়েকটি বিশেষ টিপস।

শুষ্ক ত্বকে নারকেল তেল

যদি ত্বক শুষ্ক বা ড্রাই হয়, তা হলে মেকআপ বা সিঁদুর তোলার জন্য ব্যবহার করতে হবে নারকেল তেল। সাধারণ নারকেল তেল সব ঘরেই থাকে। তা হাতের তালুতে নিয়ে সারা মুখে ভালো করে মেখে নিতে হবে। তারপর মিনিট পাঁচেক সময় ধরে হালকা হাতে ভালো করে ম্যাসাজ করতে হবে। এর পর ঈষৎ উষ্ণ গরম জলে তোয়ালে ভিজিয়ে মুখটা মুছে ফেলতে হবে।

এর পরের ধাপে পছন্দের ফেস ওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে নিতে হবে।

তৈলাক্ত ত্বকের জন্য

তেল তেলে ত্বকের ক্ষেত্রে একই পদ্ধতি ব্যবহার করা যেতে পারে। আবার তা না করে ম্যাসাজ ক্রিম বা কোনো ময়শ্চারাইজার দিয়ে একই পদ্ধতিতে মুখের মেকআপ তুলতে হবে।

আবার অনেকে ভেসলিনও ব্যবহার করে থাকে মেকআপ তোলার ক্ষেত্রে।

এর পরের ধাপে অবশ্যই পছন্দের ফেস ওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে নিতে হবে।

মিশ্রত্বকের জন্য বেবি অয়েল

মিশ্র ধরনের ত্বক বা সেনসিটিভ ত্বকের জন্য ব্যবহার করা যায় বেবি অয়েল। তাতে ত্বকের জেল্লা বাড়ে।

তবে এর পরও ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে নিতে হবে।

এই তিন ক্ষেত্রেই তেমন মনে হলে গরম জলের বদলে সাধারণ জলে তোয়ালে ভিজিয়ে নেওয়া যেতে পারে।

অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে মেকআপ করা কোনো অংশে মেকআপ, কাজল, লাইনার, বেস, কনসিলার, পাউডার বা মেকআপ তুলতে ব্যবহার করা কোনো তেল বা ক্রিম যেন রয়ে না যায়। তার জন্য সাদা কাপড়ে মুখ মুছে নিলে তা বুঝতে সুবিধা হবে।

এর পরই তো ঘুমাতে যাওয়ার পালা। ঘুমানোর আগে অবশ্যই ময়শ্চারাইজার, বা নাইট ক্রিম ব্যবহার করলে ত্বক স্বাস্থ্য ফিরে পাবে।

পড়ুন –চুল ঝলমলে করতে চান? তা হলে অবশ্যই এই পরামর্শ মেনে চলুন

Continue Reading
Advertisement
দেশ13 mins ago

কোভিড থেকে সুস্থ হলেন এক শতায়ু দিল্লিবাসী, যিনি স্প্যানিশ ফ্লু-এর সাক্ষী

earthquake
দেশ5 hours ago

কেঁপেই চলেছে দেশের মাটি, এ বার ফের কচ্ছে, মিজোরামে

রাজ্য5 hours ago

রাজ্যে এক দিনে আক্রান্তের সংখ্যায় নতুন রেকর্ড! তবে সক্রিয় রোগীর চেয়ে অনেক এগিয়ে সুস্থ হওয়ার সংখ্যা

দেশ6 hours ago

গাজিয়াবাদের কারখানায় ভয়াবহ বিস্ফোরণ, মৃত ৭

দেশ6 hours ago

২০২১-এর আগে নয় করোনা ভ্যাকসিন? প্রেস বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেও সময়সীমা মুছে দিল বিজ্ঞানমন্ত্রক!

দেশ8 hours ago

কোভিড-১৯: ২১টি রাজ্যে সুস্থতার হার জাতীয় হারের তুলনায় বেশি

বিনোদন8 hours ago

করোনা আবহে কী ভাবে হল ‘বিবাহ বার্ষিকী’র শুটিং? দেখে নিন অভিনেত্রী দর্শনা বণিকের এক্সক্লুসিভ সাক্ষাৎকার

দেশ9 hours ago

রাষ্ট্রপতি ভবনে নরেন্দ্র মোদী-রামনাথ কোবিন্দ বৈঠক

দেশ16 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ২৪৮৫০, সুস্থ ৯৩৮১

কলকাতা2 days ago

কলকাতায় অতিসংক্রমিত ১৬টি অঞ্চলকে পুরোপুরি সিল করে দেওয়ার প্রস্তুতি

দেশ3 days ago

‘সবার টিকা লাগবে না, আর পাঁচটা রোগের মতোই চলে যাবে করোনা’, আশ্বাস অক্সফোর্ডের বিজ্ঞানীর

দেশ3 days ago

দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যায় নতুন রেকর্ড, সুস্থতাতেও রেকর্ড

wfh
ঘরদোর2 days ago

ওয়ার্ক ফ্রম হোম করছেন? কাজের গুণমান বাড়াতে এই পরামর্শ মেনে চলুন

রাজ্য3 days ago

পশ্চিমবঙ্গে ১৫ রুটে বেসরকারি ট্রেন, ভাড়া বাড়বে কি?

thunderstorm
রাজ্য2 days ago

কলকাতা-সহ গোটা দক্ষিণবঙ্গে সন্ধ্যার মধ্যে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা

রাজ্য2 days ago

করোনা-আক্রান্তের সংখ্যায় কলকাতাকে পেছনে ফেলে দিল হায়দরাবাদ, বেঙ্গালুরু

কেনাকাটা

কেনাকাটা10 hours ago

হ্যান্ড স্যানিটাইজারে ৩১ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

অনলাইনে খুচরো বিক্রেতা অ্যামাজন ক্রেতার চাহিদার কথা মাথায় রেখে ঢেলে সাজিয়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের সম্ভার।

DIY DIY
কেনাকাটা5 days ago

সময় কাটছে না? ঘরে বসে এই সমস্ত সামগ্রী দিয়ে করুন ডিআইওয়াই আইটেম

খবর অনলাইন ডেস্ক :  এক ঘেয়ে সময় কাটছে না? ঘরে বসে করতে পারেন ডিআইওয়াই অর্থাৎ ডু ইট ইওরসেলফ। বাড়িতে পড়ে...

smartphone smartphone
কেনাকাটা1 week ago

লকডাউনের মধ্যে ফোন খারাপ? রইল ৫ হাজারের মধ্যে স্মার্টফোনের হদিশ

খবরঅনলাইন ডেস্ক : করোনা সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচতে ঘরে বসে যতটা কাজ সারা যায় ততটাই ভালো। তাই মোবাইল ফোন খারাপ...

কেনাকাটা1 week ago

১০টি ওয়াশেবল মাস্ক দেখে নিন

খবর অনলাইন ডেস্ক : বাইরে বেরোচ্ছেন। মাস্ক অবশ্যই ব্যবহার করুন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনাভাইরাসের হাত থেকে বাঁচতে তিন স্তর বিশিষ্ট মাস্ক...

নজরে