delhi lt governer

নয়াদিল্লি: গণতান্ত্রিক ভাবে নির্বাচিত আপ সরকার না উপরাজ্যপাল, কে দিল্লির বস? এই নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়াল এবং উপরাজ্যপালের মধ্যে ঠান্ডা লড়াই চলছিল। শেষমেশ সেই লড়াই গড়ায় সুপ্রিম কোর্টে। শীর্ষ আদালত বুধবার জানিয়ে দিল, গণতান্ত্রিক ভাবে নির্বাচিত সরকারের কাজে বাধা সৃষ্টি করার কোনো অধিকার উপরাজ্যপালের নেই। অর্থাৎ দিল্লি প্রসঙ্গে সম্পূর্ণ আপের পাশেই দাঁড়াল শীর্ষ আদালত।

দিল্লি নিয়ে বুধবার নিজেদের রায় দেয় প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র নেতৃত্বাধীন একটি পাঁচ সদস্যের সাংবিধানিক বেঞ্চ। সেখানে তারা সাফ জানিয়ে দিয়েছে যে, “গণতান্ত্রিক সরকারের হাতেই দিল্লির আসল ক্ষমতা রয়েছে।”

এর পাশাপাশি আদালত আরও জানিয়েছে, মন্ত্রিসভায় গৃহীত সমস্ত সিদ্ধান্ত উপরাজ্যকালকে জানানো সরকারের কর্তব্য। কিন্তু উপরাজ্যপালের সম্মতি নেওয়ার কোনো দরকার নেই। অর্থাৎ, সুপ্রিম কোর্ট বুঝিয়ে দিয়েছে কোনো সিদ্ধান্তে যদি উপরাজ্যপাল সম্মতি নাও দেন তা হলেও সরকারের কাজে কোনো বাধা আসবে না।

দীপক মিশ্রের বেঞ্চ এ দিন সাফ জানিয়ে দিয়েছে, “স্বাধীন ভাবে সিদ্ধান্ত নেওয়ার কোনো ক্ষমতা উপরাজ্যপালের নেই। মন্ত্রিসভার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখেই তাঁকে কাজ করে যেতে হবে।” তবে উপরাজ্যপাল এবং মন্ত্রীদের মধ্যে কোনো সমস্যা যদি তৈরি হয়, সেটাও দ্রুত মিটিয়ে নেওয়ার কথা বলেছে সুপ্রিম কোর্ট।

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here