নয়াদিল্লি: শারীরিক ধর্ষণ থেকে ছাত্রীটি রক্ষা পেয়েছে ঠিকই, কিন্তু মানসিক ধর্ষণ থেকে সে কী ভাবে রক্ষা পাবে? তার স্কুল তার বাবা-মাকে বলে দিয়েছে, ওকে পরের ক্লাসে প্রোমোশন দিয়ে দেওয়া হবে, শর্ত হল স্কুলে পাঠানো চলবে না। ও এলে স্কুলের ‘ভাবমূর্তি’ নষ্ট হবে। বাবা-মা দ্বারস্থ হয়েছেন মহিলা কমিশনের কাছে। জবাব চেয়ে স্কুলকে নোটিশ পাঠিয়েছে কমিশন।

ছাত্রীটির বাবা-মা জানান, কয়েক মাস আগে তাঁদের মেয়েকে অপহরণ করার পর ধর্ষণ করে চলন্ত গাড়ি থেকে ফেলে দেওয়া হয়েছিল। সে তখন ক্লাস টেনে পড়ত। এখন তার ইলেভেনে পড়ার কথা। স্কুল কর্তৃপক্ষ জানিয়ে দিয়েছে, তাকে ক্লাস ইলেভেনে তুলে দেওয়া হবে, কিন্তু স্কুলে আসা চলবে না। ও এলে স্কুলের মানমর্যাদা নষ্ট হবে, স্কুলের নাম খারাপ হবে।

বিপন্ন বাবা-মা দিল্লির মহিলা কমিশনের (ডিসিডব্লিউ) কাছে এ ব্যাপারে অভিযোগ দায়ের করেন। তাঁদের অভিযোগ, তাঁদের মেয়ের প্রতি ‘চরম অসংবেদনশীলতার’ পরিচয় দিয়েছে স্কুল এবং তারা এ-ও জানিয়ে দিয়েছে, স্কুলে এলে মেয়েটির নিরাপত্তার ব্যাপারে তারা কোনো দায়িত্ব নেবে না, স্কুল-বাসও ব্যবহার করতে দেবে না। স্কুল বলে দিয়েছে, সে ক্ষেত্রে মেয়েটির স্কুলে না আসাই বাঞ্ছনীয়। ঘটনাটি যে সত্যি তা জানতে পেরেছে মহিলা কমিশন। কমিশন স্কুলকে নোটিশ পাঠিয়েছে। পাশাপাশি শিক্ষা দফতরকে এ ব্যাপারে পাঁচ দিনের মধ্যে রিপোর্ট দিতে বলেছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here