নয়াদিল্লি: নার্সদের হঠাৎ ধর্মঘটে কী অবস্থা হয়, তা শুক্রবার বুঝে গেল দিল্লির অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিক্যাল সায়েন্সেস (এইমস)। এটা ছিল মহড়া। এ বার তাঁদের ইউনিয়ন জানিয়ে দিয়েছে, দাবি না মিটলে ২৭ মার্চ থেকে তাঁরা লাগাতার ধর্মঘটে যাবেন।

দ্য এইমস নার্সেস ইউনিয়নের দাবি, সপ্তম বেতন কমিশন তাঁদের জন্য যে সুপারিশ করেছে, তার চেয়েও বেশি বেতন দিতে হবে। শুক্রবার এই দাবিতে হাসপাতালের ৫ হাজারেরও বেশি নার্স গণ ক্যাজুয়াল লিভ নেন। ফলে হাসপাতালের চিকিৎসার কাজ একেবারে লাটে ওঠে। জরুরি চিকিৎসা প্রায় বন্ধ হয়ে যায়। ৯০টির মতো অস্ত্রোপচার বাতিল হয়ে যায়। বহু রোগী কাছের সফদরজং হাসপাতাল ও অন্যান্য হাসপাতালে চলে যেতে বাধ্য হন। এইমস-এর এক জন ফ্যাকাল্টি সদস্য বলেন, “নার্সদের এই গণছুটিতে হাসপাতালের সাধারণ চিকিৎসা পরিষেবার ক্ষতি তো হয়েইছে, জরুরি পরিষেবা মারাত্মক ধাক্কা খেয়েছে। অপারেশন থিয়েটারে কাজ হয়নি বললেই চলে।”

নার্স ইউনিয়নের প্রেসিডেন্ট হরিশ কুমার কাজলা বলেন, “বেতন কমিশন যে সুপারিশ করেছে, তা পশ্চাৎমুখী। স্টাফ নার্সদের এন্ট্রি পে গ্রেড ৪৬০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৫৪০০ টাকা করতে হবে। এবং নার্সিং ভাতা ৭৮০০ টাকা বাড়াতে হবে। এ ছাড়াও সমস্ত নার্সকে ঝুঁকি ভাতা ও নৈশ ভাতা দিতে হবে। আমাদের রোজ মারাত্মক সব রোগের মোকাবিলা করতে হয়। অথচ যথেষ্ট ঝুঁকি ভাতা দেওয়া হয় না। দাবি মানা না হলে ২৭ মার্চ থেকে লাগাতার ধর্মঘটে যাবেন না তাঁরা।”

এইমস-এর অস্থায়ী ডিরেক্টর ডাঃ বলরাম আইরন জানিয়েছেন, নার্সদের দাবিদাওয়া স্বাস্থ্য মন্ত্রকের কাছে পাঠিয়ে দিয়েছে  এইমস কর্তৃপক্ষ। বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য অর্থ মন্ত্রকের সঙ্গে বৈঠকে বসতে তারা স্বাস্থ্য মন্ত্রককে অনুরোধ করেছে।     

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন