Connect with us

দেশ

বিমানে মাঝের আসন ফাঁকা রাখা, যাত্রীকে বিশেষ সুরক্ষা পোশাক দেওয়ার সুপারিশ করল ডিজিসিএ

flights to connect hasimara kalaikunda

খবর অনলাইনডেস্ক: বিমানের মধ্যে শারীরিক দূরত্ববিধি বজায় রাখার জন্য এ বার বড়ো উদ্যোগ নিল অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রক।

আগামী দিনে বিমান-যাত্রা কেমন হবে, সেই নিয়ে সোমবার গাইডলাইন জারি করেছে ডিজিসিএ (DGCA)। সেই গাইডলাইনে বলা হয়েছে, বিমানসংস্থাগুলোকে যতটা সম্ভব মাঝের আসন ফাঁকা রাখতে হবে। অর্থাৎ টিকিট বুকিংয়ের ক্ষেত্রে এই আসন বাছাই মাথায় রাখতে হবে বিমান সংস্থাগুলোকে।

তবে মাঝের আসন ফাঁকা রেখে বিমান চালানো প্রায় অসম্ভব বলে জানা গিয়েছে সরকারি একটি সূত্রে। কারণ, তেমনটা হলে অত্যধিক হারে বাড়তে পারে বিমান ভাড়া। তবে মাঝের আসন ফাঁকা রাখা না গেলেও সেই আসনের যাত্রীর জন্য বিশেষ যত্ন নিতে হবে এমনটাও বলা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট বিমান সংস্থার সে ক্ষেত্রে দায় বর্তাবে।

মাঝের আসনে বসা যাত্রীর জন্য নীতিনির্দেশনায় বলা হয়েছে যে, “পিপিই কিটের বাইরে অতিরিক্ত সুরক্ষা পরিধান সেই যাত্রীকে দিতে হবে। কেন্দ্রীয় বস্ত্র মন্ত্রকের অনুমোদন মেনে  এই পরিধান বাছাই করতে হবে। পুরো শরীর জড়ানো থাকবে এমন গাউন হলে সব চেয়ে ভালো।”

উল্লেখ্য, গত ২৫ মে থেকে ধাপে ধাপে ঘরোয়া উড়ান শুরু হয়েছে দেশে। আগামী দিনে উড়ানের সংখ্যা যে আরও বাড়ানো হবে, তা বলাই বাহুল্য।

দেশ

বিতর্ক বাঁধলেও ‘পতঞ্জলির করোনা ওষুধ’ অনলাইনে খোঁজের তালিকার শীর্ষস্থানে

গুগল সার্চ ট্রেন্ডের তথ্য অনুযায়ী, গত জুন মাসে ভারতীয়দের খোঁজের তালিকার শীর্ষস্থানগুলিতে ছিল পতঞ্জলি…

ওয়েবডেস্ক: জুন মাসে ভারতীয়রা অনলাইনে সব থেকে বেশি কী কী খুঁজেছেন, তা জানেন কি?

গুগল সার্চ ট্রেন্ডের তথ্য অনুযায়ী, গত জুন মাসে ভারতীয়দের খোঁজের তালিকার শীর্ষস্থানগুলিতে ছিল পতঞ্জলি করোনা মেডিসিন (Patanjali corona medicine), গ্লোবাল ভ্যাকসিন সামিট (Global vaccine summit) এবং ডেক্সামেথেসন (Dexamethasone)। করোনা ভাইরাসে শীর্ষ ভ্যাকসিনগুলির খোঁজের তালিকার শীর্ষ ছিল এগুলিই।

যে ভাবে খোঁজ বেড়েছে পতঞ্জলি করোনা মেডিসিনের

করোনার খোঁজ কমছে!

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ সংক্রান্ত খোঁজের বহর অনেকটাই কমেছে বলে জানাচ্ছে গুগল সার্চ ট্রেন্ডস (Google Search Trends)। গত মে মাসের থেকে করোনা-কেন্দ্রিক সার্চ কমেছে প্রায় ৬৬ শতাংশ। তবে গত মোট সার্চের পরিমাণ গত ফেব্রুয়ারির থেকে এখনও দ্বিগুণ।

করোনা-কেন্দ্রিক এই সার্চের মধ্যে অধিকাংশ জায়গা জুড়ে রয়েছে ভ্যাকসিন ফর করোনাভাইরাস লেটেস্ট আপডেট (vaccine for coronavirus latest update)।

দেশের মধ্যে গোয়া থেকে এই সংক্রান্ত খোঁজ সব থেকে বেশি হয়েছে। এর পর রয়েছে যথাক্রমে দিল্লি এবং চণ্ডীগড়। তবে এই ধরনের সার্চ গত মে মাসে ছিল সর্বোচ্চ। প্রতিমাসের গড় সার্চের থেকে এর পরিমাণ ছিল প্রায় পাঁচগুণ।

সুশান্ত সিং রাজপুত

মাসের মাঝামাঝি সময়ে, গত ১৪ জুন বান্দ্রায় নিজের ফ্ল্যাটে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত (Sushant Singh Rajput)। ওই দিনে সার্চ তালিকার শীর্ষে ছিল এই নামটিই।

প্রসঙ্গত, একটি সূত্রের দাবি, আত্মহত্যা করার আগে অভিনেতা নিজেও না কি গুগলে নিজের নাম সার্চ করে দেখেছিলেন। তবে তাঁর আকস্মিক মৃত্যুর পর মুষড়ে পড়া দেশ, অনলাইনে খবরের সত্যতা যাচাইয়ে নিরবচ্ছিন্ন ভাবে সার্চ শুরু করে।

স্বাস্থ্যসুরক্ষা

অনাক্রম্যতা-ভিত্তিক পণ্য প্রস্তুতকারী সংস্থার খোঁজ করতে গিয়ে হমদর্দ, মাদার ডেয়ারি, এভি অর্গানিকসের পাশাপাশি কোকা কোলার সার্চও হয়েছে যথেষ্ট। মাদার ডেয়ারির হলদি মিল্ক, এভি অর্গানিকসের ইভোকাস এইচ-টু-ও, কোকা কোলার স্পাইড বাটার মিল্কের খোঁজ করেছেন ভারতীয়রা।

এ ছাড়া উল্লেখযোগ্য ভাবে সার্চের তালিকার শীর্ষে ছিল সূর্যগ্রহণ (solar eclipse) এবং পিতৃদিবস (Father’s Day)।

Continue Reading

দেশ

অত্যাবশ্যক পণ্য তালিকা থেকে বাতিল মাস্ক এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজার

৩০ জুনই মাস্ক এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজারকে অত্যাবশ্যকীয় পণ্য হিসাবে গণ্য করার মেয়াদ শেষ হয়েছে।

নয়াদিল্লি: অত্যাবশ্যক পণ্য তালিকা থেকে মাস্ক (Mask) এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজারের (Hand Sanitizer) নাম ছাঁটাই করেছে কেন্দ্রীয় সরকার।

কোনো পণ্যের দাম বেঁধে দেওয়া এবং মজুত সীমিত করা যায় অত্যাবশ্যক পণ্য আইনে (Essential Commodities Act)। করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের আবহে এই দুই পণ্যের উপরও নিয়ন্ত্রণ জারি রেখেছিল সরকার। তবে কেন্দ্রের ক্রেতা বিষয়ক মন্ত্রক (Ministry of Consumer Affairs) একটি নোটিশে জানিয়ে দেয়, ৩০ জুনই মাস্ক এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজারকে অত্যাবশ্যকীয় পণ্য হিসাবে গণ্য করার মেয়াদ শেষ হয়েছে।

কী কারণে বাতিল?

সংশ্লিষ্ট আধিকারিকরা জানিয়েছেন, প্রথমত উদ্বৃত্ত উৎপাদনের জন্যই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। একই ভাবে এই দুই পণ্যের রফতানিতেও অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

গত মার্চ মাসে এই দুই পণ্যের মূল্য এবং মজুত নিয়ন্ত্রণে পদক্ষেপ নেয় কেন্দ্র। পণ্য দু’টির কালোবাজারি রুখতে নির্দেশিকা জারি করা হয়। সেখানে এই ৩০ জুন সময়সীমার উল্লেখ ছিল।

প্রসঙ্গত, এই ধরনের নির্দেশিকা কোনো অত্যাবশ্যক পণ্যের সর্বাধিক খুচরো মূল্যের (MRP) সেগুলিকে মজুত করার উপর নির্দিষ্ট সীমা আরোপ করে থাকে। যে কোনো পরিস্থিতিতে কোনো পণ্যকে অত্যাবশ্যক তালিকায় অন্তর্ভুক্ত অথবা বাতিলের সিদ্ধান্ত নিতে পারে কেন্দ্র।

সূত্রের খবর, এই দু’টি পণ্যের উৎপাদনে ব্যাপক জোর দেওয়ার ফলে কৃত্রিম ভাবে বাজারে মূল্যবৃদ্ধির সম্ভাবনা এখন খুবই কম।

পড়তে পারেন: ১০টি ওয়াশেবল মাস্ক দেখে নিন

Continue Reading

কলকাতা

দিল্লি, মুম্বই, চেন্নাই বা কলকাতা নয়, বেঙ্গালুরু আর হায়দরাবাদের করোনা-পরিস্থিতি এখন চিন্তার কারণ

এর মধ্যে বেঙ্গালুরুতে আবার সুস্থতার হার দেশের সব শহরের মধ্যে কম

খবরঅনলাইন ডেস্ক: দিল্লি, মুম্বই, চেন্নাই বা কলকাতার থেকেও স্বাস্থ্য মন্ত্রকের কাছে এখন বেশি চিন্তার কারণ হয়ে উঠছে দক্ষিণের দুই বড়ো শহর বেঙ্গালুরু আর হায়দরাবাদ। এর মধ্যে বেঙ্গালুরুতে আবার সুস্থতার হার দেশের সব শহরের মধ্যে কম।

এই ছয় শহরে করোনা পরিস্থিতির হালহকিকত

গত তিন দিনে বেঙ্গালুরু আর হায়দরাবাদে করোনা-আক্রান্ত রোগী বেড়েছে যথাক্রমে ১৫.৭ শতাংশ আর ১৫.২ শতাংশ হারে।

তুলনামূলক ভাবে এই সময়ের মধ্যে দিল্লিতে রোগী বেড়েছে ২.৬ শতাংশ হারে, চেন্নাইয়ে ২.৯ শতাংশ আর মুম্বইয়ে ১ শতাংশ। কলকাতায় রোগী বেড়েছে ৭.৬৭ শতাংশ হারে।

আবার এই ছয় শহরের মধ্যে বেঙ্গালুরুতে সুস্থতার হার এখন সবার থেকে কম (১৪.৭ শতাংশ)। বেঙ্গালুরুর থেকে সুস্থতার হারে অনেক এগিয়ে দিল্লি (৭১.৭ শতাংশ), চেন্নাই (৬২ শতাংশ), মুম্বই (৬৬.১ শতাংশ), কলকাতা (৬১.৫ শতাংশ) আর হায়দরাবাদ (৫৭.৪ শতাংশ)।

তবে বেঙ্গালুরু আর হায়দরাবাদে বাকি শহরগুলির থেকে মৃত্যুর হার অনেক কম। এটাই যা স্বস্তিতে রাখছে দুই রাজ্যের প্রশাসনকে।

অব্যবস্থার অভিযোগ বেঙ্গালুরুতে

আক্রান্তের সংখ্যা যত বাড়ছে বেঙ্গালুরুতে অব্যবস্থার অভিযোগ উঠছে। এনডিটিভিকে এক করোনা-আক্রান্ত মহিলা বলেন, অ্যাম্বুলেন্সের জন্য তাঁকে আট ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হয়েছে নিজের বাড়িতে। এই সময়ে তিনি যথেষ্ট সাবধানতা অবলম্বন করলেও তাঁর থেকে তাঁর স্বামী আর ছেলেরও সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা থেকে যেত।

যদিও করোনার চিকিৎসায় কোনো রকম অসুবিধা কারও হবে না বলে শহরবাসীকে আশ্বস্ত করেছেন মুখ্যমন্ত্রী বিএস ইয়েদিউরাপ্পা।

নমুনা পরীক্ষায় বিস্তর ফারাক কর্নাটক-তেলঙ্গানায়

নমুনা পরীক্ষার হিসেবে যদি করোনা-পরিস্থিতির বিচার করা হয়, তা হলে দেখা যাবে তেলঙ্গানার পরিস্থিতি সব থেকে খারাপ। এই রাজ্যে এখন মোট ১ লক্ষ ২২ হাজার ২১৮টি নমুনার মধ্যে পজিটিভ এসেছে ২৫,৭৩৩টি নমুনা। অর্থাৎ নমুনা পজিটিভের হার রয়েছে ২১.০৫ শতাংশ।

অন্য দিকে ৭ লক্ষ ২২ হাজার ৩০৫টি নমুনার মধ্যে কর্নাটকে পজিটিভ হয়েছে ২৫,৩১৭টি নমুনা। অর্থাৎ কর্নাটকে নমুনা পজিটিভের হার রয়েছে ৩.৫০ শতাংশ।

Continue Reading
Advertisement
বিদেশ13 mins ago

অনলাইনে ক্লাস করা ভিনদেশি পড়ুয়াদের আমেরিকা ছাড়তে হবে, নির্দেশ ডোনাল্ড ট্রাম্প সরকারের

দেশ49 mins ago

বিতর্ক বাঁধলেও ‘পতঞ্জলির করোনা ওষুধ’ অনলাইনে খোঁজের তালিকার শীর্ষস্থানে

অনুষ্ঠান1 hour ago

৮০-র পরেও নতুন অভিজ্ঞতার ‘শ্যামা’য় তিনি অভিভূত, বললেন সত্তরোর্ধ্ব নৃত্যশিল্পী পলি গুহ

drama
অনুষ্ঠান1 hour ago

শ্যামা ও বজ্রসেন চরিত্রের ফ্ল্যাশব্যাক, সম্পূর্ণ নতুন ভাবনা ‘শ্যামা’ নৃত্যনাট্যে

দেশ2 hours ago

অত্যাবশ্যক পণ্য তালিকা থেকে বাতিল মাস্ক এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজার

বিদেশ3 hours ago

ভারতের পর আমেরিকায় চিনা অ্যাপ নিষিদ্ধ হওয়ার পথে

dhoni
ক্রিকেট6 hours ago

জন্মদিনে ফিরে দেখা মহেন্দ্র সিংহ ধোনির ম্যাচ জেতানো তিনটে সেরা ইনিংস

কলকাতা7 hours ago

দিল্লি, মুম্বই, চেন্নাই বা কলকাতা নয়, বেঙ্গালুরু আর হায়দরাবাদের করোনা-পরিস্থিতি এখন চিন্তার কারণ

কেনাকাটা

কেনাকাটা23 hours ago

রান্নাঘরের টুকিটাকি প্রয়োজনে এই ১০টি সামগ্রী খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক : লকডাউনের মধ্যে আনলক হলেও খুব দরকার ছাড়া বাইরে না বেরোনোই ভালো। আর বাইরে বেরোলেও নিউ নর্মালের সব...

কেনাকাটা2 days ago

হ্যান্ড স্যানিটাইজারে ৩১ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

অনলাইনে খুচরো বিক্রেতা অ্যামাজন ক্রেতার চাহিদার কথা মাথায় রেখে ঢেলে সাজিয়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের সম্ভার।

DIY DIY
কেনাকাটা7 days ago

সময় কাটছে না? ঘরে বসে এই সমস্ত সামগ্রী দিয়ে করুন ডিআইওয়াই আইটেম

খবর অনলাইন ডেস্ক :  এক ঘেয়ে সময় কাটছে না? ঘরে বসে করতে পারেন ডিআইওয়াই অর্থাৎ ডু ইট ইওরসেলফ। বাড়িতে পড়ে...

smartphone smartphone
কেনাকাটা1 week ago

লকডাউনের মধ্যে ফোন খারাপ? রইল ৫ হাজারের মধ্যে স্মার্টফোনের হদিশ

খবরঅনলাইন ডেস্ক : করোনা সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচতে ঘরে বসে যতটা কাজ সারা যায় ততটাই ভালো। তাই মোবাইল ফোন খারাপ...

নজরে