Flifkart

কলকাতা: রাতে ফুটবল বিশ্বকাপের ম্যাচ দেখতে গিয়ে বাড়ির লোকের অসুবিধা যাতে ন হয়, তার জন্য কলকাতার এক যুবক অনলাইন বিপণন সংস্থা ফ্লিপকার্টে অর্ডার করেছিলেন দু’টি হেডফোনের। কিন্তু বাড়িতে সেটি ডেলিভারি করার পর দেখা গেল, হেডফোনের বদলে রয়েছে তেলের শিশি। অগত্যা ক্রেতা অভিযোগ জানালেন সংস্থার কাছে। তিনি প্যাকেটের গায়ে লেখা নম্বরে ডায়াল করেতে এক বার রিং হয়েই কলটি কেটে গেল। কিছুক্ষণের মধ্যেই তাঁর মোবাইলে মেসেজ এল। যেটিতে লেখা রয়েছে- “ওয়েলকাম টু বিজেপি”। আবার তার পরেই দেওয়া রয়েছে সদস্যপদের প্রাথমিক ক্রমিক সংখ্যাও।

এনডিভির কলকাতা-কেন্দ্রিক এই সংবাদ নিয়ে রীতিমতো চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। প্রশ্ন উঠছে, ফ্লিপকার্টের সঙ্গে তা হলে বিজেপির কী সম্পর্ক রয়েছে? ওই ক্রেতা তো প্যাকেটের গায়ে সাঁটা টেপে থেকেই অভিযোগ জানানোর নম্বরটি সংগ্রহ করেছিলেন। সেখানে ফোন করতে কেন আচমকা তিনি এ ধরেনর মেসেজ পেলেন? বিষয়টি যাচাই করার জন্য ওই যুবক তাঁর কয়েকজন বন্ধুর মোবাইল থেকেও ওই নির্দিষ্ট নম্বরে ডায়াল করেন। সে ক্ষেত্রেও একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটতে থাকে।

জানা গিয়েছে, এ ব্যাপারে বিজেপি রাজ্য সভাপতি বলেছেন, তাঁদের দলের সদস্যপদ পাওয়ার ওই নম্বরটি ওয়েবসাইট বা ফেসবুকের মতো ্অন্যান্য সোস্যাল মিডিয়ায় দেওয়া রয়েছে। ফলে সেখান থেকে যে কেউ সেটা শেয়ার করতে পারেন। এর দায় বিজেপির নয়।

অন্য দিকে ফ্লিপকার্টের তরফে জানা গিয়েছে, ওই নম্বরটি তাঁরা তিন বছর আগেই ছেড়ে দিয়েছেন। প্যাকিংয়ের কাজে ব্যবহৃত টেপটি পুরনো। ক্রেতার উদ্দেশে সংস্থা জানায়, তাদের হাতে বর্তমানে একটি হেডফোন রয়েছে। সেটি পাঠিয়ে দেওয়া হবে। বাকি একটিরক দাম ফেরত দেওয়া হবে। আর তেলের শিশিটা তিনি চাইলে ব্যবহার করতে পারেন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here