বংশগতভাবে মানুষ কত কিছুই পায়। তেমনই পেয়েছিলেন মুম্বইয়ের দিলিশ পারেখ।  ক্যামেরা আর ক্যামেরা সংগ্রহ করার নেশা। বাপ ঠাকুরদার কাছ থেকে পেয়েছিলেন প্রায় ৬০০টি অ্যান্টিক ক্যামেরা। তার পর ২০ বছর ধরে গোটা ভারতে খুঁজে এখন তাঁর সংগ্রহে রয়েছে এমন মোট ৪৪২৫টি ক্যামেরা। বিশ্বের সব থেকে বেশি অ্যান্টিক ক্যামেরার সংগ্রহকারী হিসাবে গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে নাম উঠেছে তাঁর।

১৯৭০ সাল থেকে শুরু ক্যামেরা সংগ্রহ । ছোটো থেকে বড়ো, লম্বা থেকে বেঁটে, দড়ি টানা থেকে ক্লিক করে ছবি তোলার হরেক রকমের ক্যামেরার এক বিরাট মিউজিয়াম। কী নেই সেই সংগ্রহশালায়? স্পাই ক্যামেরা, লাইকা ২৫০, হাসসেলব্লেড, কনিকা থেকে শুরু করে লিনহফ, সুপার এলকন্টা, বিসসা ২ আরও কত কী।

camera-1

ভারতের পার্লামেণ্টের ছবি যে ক্যামেরাটি দিয়ে প্রথমবার তোলা হয়েছিল, সেটি ছিল  কোডাক কোম্পানির প্যানোরমা ক্যামেরা। সেটিও রয়েছে তাঁর সংগ্রহে। আবার ৩৫ মিলিমিটারের ফিল্ম ক্যামেরার একটি ছোট্টো সংস্করণও রয়েছে। টেসসিনা।  

দিলিশের এই সংগ্রহ সম্বন্ধে একটি ‘কফি টেবিল বুক’-ও প্রকাশিত হয়েছে। তাছাড়া বহুবার প্রদর্শনীও হয়েছে এই গোটা সংগ্রহের। বহু গুণীজনের কাছ থেকে অনেকবার সম্বর্ধনা পেয়েছেন পারেখ। কিন্তু এখন তিনি চান এই সংগ্রহ স্থায়ী ভাবে আমজনতার উপভোগের বিষয় হয়ে উঠুক। এই সংগ্রহ নিয়ে একটি মিউজিয়ম তৈরি করতে তিনি খুবই আগ্রহী। ভারত সরকার হোক বা অম্বানি কিংবা বিল গেটস, এই মিউজিয়ম তৈরিতে যেই এগিয়ে আসুক, আপত্তি নেই তাঁর।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন