পরিযায়ী শ্রমিকদের ওপর জীবাণুনাশক স্প্রে? মহাবিতর্কে উত্তরপ্রদেশ সরকার

বরেলি (উত্তরপ্রদেশ): পরিযায়ী শ্রমিকদের ওপরে জীবাণুনাশক স্প্রে করার ঘটনা নিয়ে মহাবিতর্ক তৈরি হল উত্তরপ্রদেশে (Uttarpradesh)। ঘটনাটি নিয়ে সরব প্রিয়ঙ্কা গান্ধী-সহ বিরোধীরা এবং সমাজের বিভিন্ন স্তরের মানুষ। যদিও কোনো জীবাণুনাশক ছোড়ানো হয়নি বলে দাবি করেছে যোগী আদিত্যনাথ (Yogi Adityanath) সরকার।

এই সংক্রান্ত একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। ভিডিওটি শেয়ার করেছেন প্রিয়ঙ্কা গান্ধীও। সেখানে দেখা যাচ্ছে রাস্তার ওপর উবু হয়ে বসে রয়েছেন একদল মানুষ। পিঠে ব্যাগপত্র। সেই অবস্থাতেই তিন দিক থেকে তাঁদের উপর নির্বিচারে জীবাণুনাশক স্প্রে করা হচ্ছে।

যে স্বাস্থ্যকর্মীরা জীবাণুনাশক স্প্রে করছেন, বিশেষ পোশাকে পা থেকে মাথা পর্যন্ত ঢাকা রয়েছে তাঁদের। কিন্তু পরনের জামাটুকু ছাড়া আর কোনো সুরক্ষার আবরণ নেই মাটিতে বসে থাকা মানুষগুলির শরীরে। জীবাণুনাশকে ভিজতে ভিজতেই কেউ রুমালে মুখ ঢেকে রেখেছেন। কেউ আবার নিজে ভিজছেন, কিন্তু হাত বাড়িয়ে বাচ্চার চোখ দু’টি ঢেকে রেখেছেন, যাতে জীবাণুনাশক কোনো ভাবে তার চোখে প্রবেশ না করে।

নোভেল করোনাভাইরাসের (Coronavirus) আতঙ্কে সব থেকে খারাপ অবস্থা এখন দেশের পরিযায়ী শ্রমিকদের। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে এই শ্রমিকরা যখন ঘরে ফেরার আপ্রাণ চেষ্টা করছেন, ঠিক সেই সময় সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে যোগীর রাজ্য থেকে এমনই ঘটনা সামনে এল।

সম্প্রতি বরেলির একটি সীমান্ত চেকপয়েন্টের কাছে এই ঘটনা ঘটেছে বলে খবর। জানা গিয়েছে, রাজ্য সরকারের বন্দোবস্ত করা বাসে চেপে দিল্লি, হরিয়ানা এবং নয়ডা থেকে ওই সমস্ত মানুষ ফিরেছিলেন। কিন্তু বাস থেকে নামতেই বাড়ি ফিরতে দেওয়া হয়নি তাঁদের।

বরং মহিলা, শিশু সমেত ওই শ্রমিকদের রাস্তার এক পাশে উবু হয়ে বসিয়ে দেওয়া হয়। পিঠের ব্যাগপত্রও নামানোর সুযোগ দেওয়া হয়নি তাঁদের। সেই অবস্থাতেই হোস পাইপ থেকে জীবাণুনাশক স্প্রে করা হয় তাঁদের উপর।

ভিডিওটি নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে পোস্ট করে প্রিয়ঙ্কা লেখেন, ‘‘উত্তরপ্রদেশ সরকারের কাছে অনুরোধ, এই বিপদের সময়ে সকলকে এক জোট হয়ে লড়তে হবে। দয়া করে এমন অমানবিক আচরণ করবেন না। এই সমস্ত শ্রমিককে এমনিতেই অনেক কষ্ট সহ্য করতে হয়েছে। ওঁদের রাসায়নিক দিয়ে স্নান করাবেন না। এতে ওঁদের ভালো না হয়ে শারীরিক ক্ষতি হতে পারে।’’

যদিও রাসায়নিক ব্যবহারের কথা অস্বীকার করেছেন বরেলিতে কোভিড-১৯-এর দায়িত্বে থাকা নোডাল অফিসার অশোক গৌতম। তিনি বলেন, স্যানিটাইজার এবং জলের সঙ্গে ক্লোরিন মিশিয়ে স্নান করানো হয় ওই শ্রমিকদের।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.