Connect with us

দেশ

ডাঃ কাফিল খানের মুক্তিকে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ উত্তরপ্রদেশ

রাজ্য মেডিক্যাল সার্ভিসে তাঁর চাকরি ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য ২ সেপ্টেম্বর মথুরা জেল থেকে মুক্তি পাওয়ার পর উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের আবেদন করেছিলেন ডাঃ খান।

Published

on

Dr. Kafeel Khan
২ সেপ্টেম্বর মথুরা জেল থেকে মুক্তি পাওয়ার পর ডাঃ কাফিল খান। ছবি সংগৃহীত।

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ডাঃ কাফিল খানের (Dr. Kafeel Khan) মুক্তিকে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে গেল উত্তরপ্রদেশের (Uttar Pradesh) যোগী আদিত্যনাথের সরকার। এ ব্যাপারে তারা সুপ্রিম কোর্টে বিশেষ অনুমতির আবেদন (Special Leave Petition) পেশ করেছে।   

জাতীয় নিরাপত্তা আইনে (National Security Act, NSA) ডাঃ খানের আটককে অবৈধ ঘোষণা করে গত ১ সেপ্টেম্বর রায় দেয় এলাহাবাদ হাইকোর্ট (Allahabad High Court)। সেই রায়ের ভিত্তিতে পর দিন মথুরা জেল থেকে ছাড়া পান ডাঃ খান।

Loading videos...

কেন জাতীয় নিরাপত্তা আইনে আটক

ঠিক এক বছর আগে ২০১৯-এর ১৩ ডিসেম্বর আলিগড় মুসলিম ইউনিভার্সিটিতে নাগরিকত্ব (সংশোধনী) আইনের বিরুদ্ধে বক্তৃতা করার জন্য ২০২০-এর ২৯ জানুয়ারি মুম্বই থেকে গ্রেফতার করা হয় উত্তরপ্রদেশের গোরখপুরের ডাঃ কাফিল খানকে।

প্রথমে তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, তিনি ধর্মের ভিত্তিতে বিভিন্ন গোষ্ঠীর মধ্যে শত্রুতা সৃষ্টি করছেন। তাঁকে ১০ ফেব্রুয়ারি জামিন দেওয়া হয়। এর পরই তাঁকে জাতীয় নিরাপত্তা আইনে আটক করা হয়।

ডাঃ খানের আটকের ব্যাপারে সুপ্রিম কোর্ট হস্তক্ষেপ না করে জানিয়ে দেয়, এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ‘উপযুক্ত ফোরাম’ হাইকোর্ট। এর পর ডাঃ খানের মা নুঝাত পরভীন এলাহাবাদ হাইকোর্টে ‘হেবিয়াস করপাস’ আবেদন করেন। সেই আবেদন ১ জুন শুনানির জন্য তালিকাভুক্ত হয়।

 এলাহাবাদ হাইকোর্ট কী বলে    

১ সেপ্টেম্বর ওই ‘হেবিয়াস করপাস’ আবেদন গ্রহণ করে ডাঃ খানের আটককে অবৈধ ঘোষণা করে এলাহাবাদ হাইকোর্ট। হাইকোর্ট বলে, কোনো রকম ঘৃণা বা হিংসা ছড়ানোর প্রচেষ্টা নেই ডাঃ খানের বক্তৃতায়। বরং সেই বক্তৃতায় ‘জাতীয় সংহতি ও ঐক্যের’ ডাক দেওয়া হয়েছিল।

এলাহাবাদ হাইকোর্টের সেই রায়কেই চ্যালেঞ্জ জানাল উত্তরপ্রদেশ। সুপ্রিম কোর্টে পেশ করা আবেদনে উত্তরপ্রদেশ সরকার বলেছে, বার বার অপরাধ করার ইতিহাস ডাঃ খানের আছে। যার ফলে তাঁর বিরুদ্ধে শৃঙ্খলাভঙ্গের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, একাধিক পুলিশ কেস নথিভুক্ত হয়েছে এবং জাতীয় নিরাপত্তা আইনে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

রাজ্য মেডিক্যাল সার্ভিসে তাঁর চাকরি ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য ২ সেপ্টেম্বর মথুরা জেল থেকে মুক্তি পাওয়ার পর উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের আবেদন করেছিলেন ডাঃ খান।

গোরখপুরের ঘটনা

২০১৭ সালে গোরখপুরের বিআরডি মেডিক্যাল কলেজে হাসপাতালে অক্সিজেন সিলিন্ডারের অভাবে প্রায় ৬০টি শিশুর মৃত্যুর ঘটনার পর ডাঃ খানকে সাসপেন্ড করা হয়। গোড়ার দিকে জানা গেছিল, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন শিশুদের বাঁচানোর জন্য নিজের পকেট থেকে টাকা খরচ করে ডাঃ খান যতগুলো সম্ভব অক্সিজেন সিলিন্ডারের ব্যবস্থা করেছিলেন।

পরে এই ঘটনায় যে এফআইআর দায়ের করা হয় তাতে কর্তব্যে অবহেলার জন্য তাঁকে অভিযুক্ত করা হয়। তাঁর বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্ত হয় এবং বেশির ভাগ অভিযোগ থেকেই তিনি মুক্তি পান।

আরও পড়ুন: নড্ডার নিরাপত্তার নজরদারিতে থাকা তিন আইপিএসকে নিয়ে কেন্দ্র-রাজ্য সংঘাত চরমে

দেশ

কোভিডের মধ্যে অক্সিজেন বণ্টনে নজর রাখতে টাস্কফোর্স গঠন করল সুপ্রিম কোর্ট

১২ সদস্যের টাস্কফোর্সের নেতৃত্বে বাঙালি চিকিৎসক!

Published

on

খবর অনলাইন ডেস্ক: সারাদেশে মেডিক্যাল অক্সিজেনের জোগান ও বিতরণের বিষয়ে নজর রাখতে ১২ সদস্যের জাতীয় টাস্ক ফোর্স গঠন করল সুপ্রিম কোর্ট। অক্সিজেনের পাশাপাশি কোভিডরোগীর চিকিৎসায় ব্যবহৃত প্রয়োজনীয় ওষুধের জোগান নিশ্চিত করারও পরামর্শ দেবে ওই টাস্কফোর্স।

সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড় এবং এমআর শাহের দুই বিচারপতির বেঞ্চ এই নির্দেশ দেয়। তাঁরা জানান, টাস্কফোর্সের প্রতিটি সদস্যের সঙ্গে ব্যক্তিগত ভাবে কথা বলেছেন বিচারপতিরা। ওই টাস্কফোর্স এক সপ্তাহের মধ্যে কাজ শুরু করবে। সর্বোচ্চ আদালতের চূড়ান্ত আদেশে বলা হয়েছে, “সারা দেশে যৌক্তিক, বৈজ্ঞানিক ও ন্যায়সঙ্গত ভাবে মেডিক্যাল অক্সিজেনের জোগান, সরবরাহ এবং জীবনদায়ী ওষুধের সরবরাহ খতিয়ে দেখবে এই টাস্ক ফোর্স। আমরা আশা করি দেশের শীর্ষস্থানীয় বিশেষজ্ঞরা টাস্কফোর্সের সদস্য হিসেবে যোগ দেবেন”।

Loading videos...

টাস্ক ফোর্সের নেতৃত্ব দেবেন পশ্চিমবঙ্গ স্বাস্থ্য বিজ্ঞান বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য ভবতোষ বিশ্বাস। অন্য সদস্যদের মধ্যে রয়েছেন গুরুগ্রামের মেদান্ত হাসপাতাল ও হার্ট ইনস্টিটিউটের চেয়ারপার্সন ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর নরেশ ত্রিহান। এ ছাড়া রয়েছেন দিল্লির স্যার গঙ্গারাম হাসপাতাল, ভেলোরের ক্রিশ্চান মেডিকেল কলেজ, বেঙ্গালুরুর নারায়ণ হেল্থকেয়ার ও মুম্বইয়ের ফর্টিস হাসপাতালের চিকিৎসকরা। পাশাপাশি সরকারের পক্ষ থেকে দু’জন সদস্য এবং একজন মন্ত্রিপরিষদ সচিব আহ্বায়ক হবেন।

বলা হয়েছে, টাস্কফোর্সের রিপোর্টগুলি কেন্দ্র এবং আদালত, উভয়ের কাছেই জমা দেওয়া হবে। যা পরবর্তীতে বৈজ্ঞানিক পদক্ষেপ গ্রহণে সাহায্য করবে। আদালত আরও বলে, “আমাদের উচিত সমগ্র ভারতের দিকে নজর দেওয়া। অক্সিজেনের সার্বিক অডিট হওয়া দরকার। সিলিন্ডার স্টক থেকে সরবরাহ হয়ে চলে যাওয়ার পরে জবাবদিহি করে কী হবে”?

একই সঙ্গে সুপ্রিম কোর্ট জানতে চায়, করোনা সংক্রমণের তৃতীয় ঢেউ মোকাবিলায় সরকার কী ধরনের পদক্ষেপ নিচ্ছে? ওই সময় তো অক্সিজেন, ওষুধ এবং হাসপাতালের বেডের তীব্র ঘাটতি আরও খারাপ হতে পারে।

আরও পড়তে পারেন: হাসপাতালে ভরতির জন্য রোগীর কোভিড পজিটিভ রিপোর্টের দরকার নেই, নতুন নির্দেশিকা

Continue Reading

দেশ

Covid Crisis: জলে গুলে খেতে হবে, করোনারোধী ওষুধে ছাড়পত্র দিল ডিজিসিআই

গত বছর মে থেকে অক্টোবর পর্যন্ত এই ওষুধের ট্রায়াল চলেছে।

Published

on

খবরঅনলাইন ডেস্ক: করোনা চিকিৎসায় একটি ওষুধে ছাড়পত্র দিল ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল অব ইন্ডিয়া (DRDO)। হায়দরাবাদের ওষুধ প্রস্তুতকারক সংস্থা ডঃ রেড্ডিজের সঙ্গে হাত মিলিয়ে যৌথভাবে ওই ওষুধটি তৈরি করেছে ডিফেন্স রিসার্চ অ্যান্ড ডেভলপমেন্ট অর্গানাইজেশন (DRDO)। এই ওষুধটির নাম দেওয়া হয়েছে ২-ডিজি (2-DG)।

ডিসিজিআই জানিয়েছে, ওষুধটির ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চলেছে গত বছর মে থেকে অক্টোবর পর্যন্ত। ৩ ধাপে দেশের মোট ১১টি হাসপাতালে পরীক্ষানিরীক্ষা চলেছে। তাতে দেখা গিয়েছে, কোভিডে আক্রান্ত রোগীদের সুস্থ করে তুলতে দ্রুত কাজ করছে সেটি।

Loading videos...

এর পাশাপাশি, যাঁদের আলাদা করে অক্সিজেনের প্রয়োজন পড়ছে, তাঁদের ক্ষেত্রে দারুণ কাজ করছে ডিআরডিও-র তৈরি এই ওষুধ। যাঁদেরই এই ওষুধ দিয়ে চিকিৎসা করা হয়েছে, করোনা পরীক্ষায় তাঁদের অধিকাংশের রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে।

তবে এই ওষুধটির খাওয়ার পদ্ধতি একটু আলাদা। ট্যাবলেট বা সিরাপের মতো নয়। জানা গিয়েছে, পাউডার হিসেবে স্যাচেতে পাওয়া যাবে ওষুধটি। খাওয়ার সময়ে তা জলে গুলে খেতে হবে।

আরও পড়তে পারেন Coronavirus Second Wave: ১২ দিনে ১২ শতাংশ কমল সংক্রমণের হার, স্বস্তি ফিরছে দিল্লিতে

Continue Reading

দেশ

Coronavirus Second Wave: ১২ দিনে ১২ শতাংশ কমল সংক্রমণের হার, স্বস্তি ফিরছে দিল্লিতে

লাগাম পড়েছে দৈনিক মৃত্যুতেও।

Published

on

Coronavirus Delhi

খবরঅনলাইন ডেস্ক: গত ১৯ এপ্রিল দিল্লিতে লকডাউন জারি করার সময় মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল বলেছিলেন, তিনি আক্রান্তের সংখ্যার থেকেও বেশি ভয় পাচ্ছেন সংক্রমণের হারকে। সেটা অতি দ্রুততায় কমাতে না পারলে হাসপাতালগুলিতে হাহাকার আরও বাড়বে। তার পর কেটে গিয়েছে প্রায় তিনটে সপ্তাহ, অবশেষে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলতে শুরু করেছে রাজধানী।

দিল্লিতে যে দিন লকডাউন জারি হয়, তখন সেখানে সংক্রমণের হার ছিল ৩০ শতাংশের কাছাকাছি। অর্থাৎ প্রতি ১০০টি টেস্টে কোভিড পজিটিভ হচ্ছিলেন ৩০ জন। এর পরের এক সপ্তাহ সংক্রমণের হার ক্রমেই বাড়তে থাকে। গত ২৬ এপ্রিল সেটা পৌঁছে যায় ৩৫ শতাংশে।

Loading videos...

এটাই ছিল চরম সীমা। তার পর থেকেই কমতে শুরু করেছে সংক্রমণের হার। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজধানীতে সংক্রমণের হার নেমে এসেছে ২৩ শতাংশের ঘরে। অর্থাৎ, গত বারো দিনে দিল্লিতে সংক্রমণের হারকে ১২ শতাংশ কমানো সম্ভব হয়েছে। ২৩ শতাংশ সংক্রমণের হার যদিও খুবই বেশি, কিন্তু মাত্র কয়েকটা দিনে এই হারটা যে ভাবে কমেছে সেটা খুবই ভালো ব্যাপার।

গত ২৬ এপ্রিল রাজধানীতে ৫৭ হাজার ৬০২টি টেস্টের বিপরীতে আক্রান্ত হয়েছিলেন ২০ হাজার ২০১ জন। শনিবারের রিপোর্ট বলছে ৭৪ হাজার ৩৮৪টি টেস্টের বিপরীতে আক্রান্ত হয়েছেন ১৭ হাজার ৩৬৪ জন। সংক্রমণের হারের পাশাপাশি আক্রান্তের সংখ্যাও বেশ ভালো ভাবেই কমছে।

গত ১৪ এপ্রিলের পর এই প্রথম বার দিল্লিতে দৈনিক সংক্রমণ ১৭ হাজারের ঘরে নেমে এসেছে। আরও একটি স্বস্তির বিষয় হল, এ দিন সুস্থ হয়েছেন ২০ হাজার ১৬০ জন। এর ফলে রাজধানীর সক্রিয় রোগীর সংখ্যাও অনেকটাই কমেছে। ধীরে ধীরে কমতে শুরু করেছে দৈনিক মৃতের সংখ্যাও। ২৬ এপ্রিল রাজধানীতে মারা গিয়েছিলেন ৩৮০ জন। সেটা আরও কিছুটা বেড়ে চারশো অতিক্রম করে ফেলেছিল কয়েক দিন পরেই। তবে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গিয়েছেন ৩৩২ জন।

আর এর ফলে দিল্লিতে হাসপাতালে ফাঁকা শয্যার সংখ্যাও বাড়ছে। গত ২৬ এপ্রিল যেখানে দিল্লির হাসপাতালগুলিতে ফাঁকা শয্যার সংখ্যা ছিল ১,৬৫৬টি, সেটা শনিবার বেড়ে হয়েছে ২,৪৫১।

দিল্লির পরিস্থিতির এই উন্নতির ব্যাপারে এখনও মুখ ফুটে কিছু বলেননি মুখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়াল। হয়তো তিনি আরও কয়েকটা দিন দেখে এই সংক্রমণের হারের ১৫ শতাংশের নীচে চলে আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করছেন। তবে আপাতত গত ১২ দিনের ছবিটা যে ভাবে উন্নতি করেছে, তাতে রাজধানী দ্বিতীয় ঢেউয়ের কবল থেকে তাড়াতাড়িই মুক্তি পাবে বলে আশা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

আরও পড়তে পারেন Vaccination Drive: শীঘ্রই চতুর্থ কোভিড-টিকা পেয়ে যেতে পারে ভারত

Continue Reading
Advertisement
Advertisement
বাংলাদেশ8 hours ago

ভারতের সঙ্গে স্থলসীমান্ত আরও ১৪ দিন বন্ধ রাখছে বাংলাদেশ

রাজ্য11 hours ago

ভোট মিটতেই দিব্যেন্দু অধিকারীকে নিয়ে ‘সক্রিয়’ জেলা তৃণমূল

রাজ্য12 hours ago

Bengal Corona Update: সংক্রমণের হার ফের ৩০ শতাংশ পার, বাড়ল মৃতের সংখ্যাও, তবে কলকাতা-সহ ৯ জেলায় কমল সক্রিয় রোগী

Car dealer
গাড়ি ও বাইক12 hours ago

মৃত্যুর পর গাড়ির মালিক কে? এ বার আগে থেকেই তা নির্ধারণ করা যাবে

insurance
শিল্প-বাণিজ্য12 hours ago

জীবন বিমা পলিসি কত রকমের হয়? কেনার সময় নিজের প্রয়োজনীয়তার কথা মাথায় রাখুন

দেশ13 hours ago

কোভিডের মধ্যে অক্সিজেন বণ্টনে নজর রাখতে টাস্কফোর্স গঠন করল সুপ্রিম কোর্ট

রাজ্য13 hours ago

Covid Crisis: রাজ্যকে সাহায্য করুক কেন্দ্র, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চিঠি দিলেন অধীররঞ্জন চৌধুরী

দেশ14 hours ago

Covid Crisis: জলে গুলে খেতে হবে, করোনারোধী ওষুধে ছাড়পত্র দিল ডিজিসিআই

sourav ganguly
ক্রিকেট3 days ago

Covid Crisis in IPL: জৈব সুরক্ষা বলয়ে কোনো ফাঁক ছিল বলে মনে করেন না সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়

দেশ3 days ago

Corona Update: দু’তিনটে রাজ্যে সংক্রমণবৃদ্ধির জের, ভারতের দৈনিক সংক্রমণ ভেঙে দিল অতীতের রেকর্ড

ক্রিকেট2 days ago

England vs India 2021: ঋদ্ধি, শামি ছাড়াও ইংল্যান্ডগামী টেস্ট দলে ঠাঁই পেলেন বাংলার আরও এক

রাজ্য3 days ago

Post-Poll Violence: ইন্ডিয়া টুডে-র সাংবাদিকের ছবি পোস্ট করে হিংসায় মৃত হিসেবে বর্ণনা বিজেপির

রাজ্য3 days ago

সুখবর! রাজ্য সরকারি কর্মীরা পাচ্ছেন অ্যাড-হক বোনাস

দেশ2 days ago

Coronavirus Second Wave: নয়টি রাজ্যে চূড়ায় পৌঁছে গিয়েছে সংক্রমণ, জানাল স্বাস্থ্য মন্ত্রক

রাজ্য2 days ago

‘যা বলার পরে ডেকে বলব’, জল্পনা বাড়ালেন মুকুল রায়

রাজ্য2 days ago

Bengal Corona Update: দৈনিক সংক্রমণে স্থিতাবস্থা অব্যাহত, কলকাতায় সক্রিয় রোগীর সংখ্যায় বড়ো পতন

ভিডিও

কেনাকাটা

কেনাকাটা2 months ago

বাজেট কম? তা হলে ৮ হাজার টাকার নীচে এই ৫টি স্মার্টফোন দেখতে পারেন

আট হাজার টাকার মধ্যেই দেখে নিতে পারেন দুর্দান্ত কিছু ফিচারের স্মার্টফোনগুলি।

কেনাকাটা3 months ago

সরস্বতী পুজোর পোশাক, ছোটোদের জন্য কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সরস্বতী পুজোয় প্রায় সব ছোটো ছেলেমেয়েই হলুদ লাল ও অন্যান্য রঙের শাড়ি, পাঞ্জাবিতে সেজে ওঠে। তাই ছোটোদের জন্য...

কেনাকাটা3 months ago

সরস্বতী পুজো স্পেশাল হলুদ শাড়ির নতুন কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই সরস্বতী পুজো। এই দিন বয়স নির্বিশেষে সবাই হলুদ রঙের পোশাকের প্রতি বেশি আকর্ষিত হয়। তাই হলুদ রঙের...

কেনাকাটা4 months ago

বাসন্তী রঙের পোশাক খুঁজছেন?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই আসছে সরস্বতী পুজো। সেই দিন হলুদ বা বাসন্তী রঙের পোশাক পরার একটা চল রয়েছে অনেকের মধ্যেই। ওই...

কেনাকাটা4 months ago

ঘরদোরের মেকওভার করতে চান? এগুলি খুবই উপযুক্ত

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘরদোর সব একঘেয়ে লাগছে? মেকওভার করুন সাধ্যের মধ্যে। নাগালের মধ্যে থাকা কয়েকটি আইটেম রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার...

কেনাকাটা4 months ago

সিলিকন প্রোডাক্ট রোজের ব্যবহারের জন্য খুবই সুবিধেজনক

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যপ্রয়োজনীয় বিভিন্ন সামগ্রী এখন সিলিকনের। এগুলির ব্যবহার যেমন সুবিধের তেমনই পরিষ্কার করাও সহজ। তেমনই কয়েকটি কাজের সামগ্রীর খোঁজ...

কেনাকাটা4 months ago

আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আজ রইল আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার সময় যে দাম ছিল...

কেনাকাটা4 months ago

রান্নাঘরের এই সামগ্রীগুলি কি আপনার সংগ্রহে আছে?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরে বাসনপত্রের এমন অনেক সুবিধেজনক কালেকশন আছে যেগুলি থাকলে কাজ অনেক সহজ হয়ে যেতে পারে। এমনকি দেখতেও সুন্দর।...

কেনাকাটা4 months ago

৫০% পর্যন্ত ছাড় রয়েছে এই প্যান্ট্রি আইটেমগুলিতে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: দৈনন্দিন জীবনের নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসগুলির মধ্যে বেশ কিছু এখন পাওয়া যাচ্ছে প্রায় ৫০% বা তার বেশি ছাড়ে। তার মধ্যে...

কেনাকাটা4 months ago

ঘরের জন্য কয়েকটি খুবই প্রয়োজনীয় সামগ্রী

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যদিনের প্রয়োজনীয় ও সুবিধাজনক বেশ কয়েকটি সামগ্রীর খোঁজ রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদনটি লেখার সময় যে দাম ছিল তা-ই...

নজরে