ছাদ ভেঙে সংসদে প্রবেশ করেননি প্রধানমন্ত্রী। দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষের রায়েই তিনি প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন। তা হলে কেন আপনি লজ্জিত?

কোচি: কোভিড-১৯ টিকার শংসাপত্রে প্রধানমন্ত্রীর ছবি নিয়ে বিতর্ক বেঁধেছিল কোথাও কোথাও। যার জল গড়ায় কেরল হাইকোর্টে। তবে ছবির বিরুদ্ধে আবেদনকারীর মামলা খারজি তো হল-ই, সঙ্গে ধার্য হল এক লক্ষ টাকার আর্থিক জরিমানা। যা আগামী সপ্তাহের মধ্যেই জমা করতে হবে আবেদনকারীকে।

মঙ্গলবার আবেদন খারিজ করার সময় হাইকোর্ট বলেছে, “পিটিশনটি রাজনৈতিক উদ্দেশ্য এবং একটি প্রচারে আসার কৌশল নিয়েই দাখিল করা হয়েছে বলে মনে হচ্ছে। তাই, যে কারণে জরিমানা-সহ তা খারিজ করার যোগ্য”।

আদালত বলেছে, হাজার হাজার দোষী সাব্যস্ত ব্যক্তি ফৌজদারি মামলায় জড়িয়ে জেলবন্দি রয়েছে। তারা নিজেদের মামলার শুনানির জন্য অপেক্ষা করছে। এমন পরিস্থিতিতে, এ ধরনের সারবত্তাহীন আবেদনগুলিকে একটি ভারী জরিমানা সমেত খারিজ করতে হবে”।

আদালতের সময় নষ্ট করার জন্য আবেদনকারীকে তীব্র ভর্ৎসনা করে আদালত। বিচারপতি পিভি কুনহিকৃষ্ণন বলেন, “আমাদের প্রধানমন্ত্রীর জন্য আপনি কেন লজ্জিত”?

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “নাগরিকদের একটি অংশের মধ্যে একটি সাধারণ প্রবণতা দেখা যায়। তারা মনে করে, রাজনৈতিক নেতারা সবাই দুর্নীতিবাজ এবং তাঁদের বিশ্বাস করা যায় না। আমি মনে করি, সেই ধারণা থেকেই আবেদনকারীর মনে এ ধরনের যুক্তি এসেছে। কিন্তু কেউ কি এ ভাবে সরলীকরণ করতে পারে? রাজনীতিবিদদের ভুল কী? যেহেতু রাজনীতিবিদদের একটি অংশের খারাপ ইতিহাস রয়েছে, তাই সমস্ত রাজনীতিবিদদের উপেক্ষা করার দরকার নেই”।

রাজনীতিবিদদের মধ্যে এমন অনেকেই রয়েছেন, দেশের অগ্রগতিতে তাঁদের অবদান অনস্বীকার্য। বিচারপতি বলেন, “ভারতের প্রধানমন্ত্রী এমন ব্যক্তি নন, যিনি ভবনের ছাদ ভেঙে সংসদে প্রবেশ করেছিলেন। তিনি জনগণের রায়েই ক্ষমতায় এসেছেন। ভারতীয় গণতন্ত্র সারা বিশ্বে প্রশংসিত হচ্ছে। যিনি প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হয়েছেন কারণ তিনি জনগণের সমর্থন পেয়েছেন”।

এখানেই না থেমে আরও বিস্তারিত ভাবে বিচারপতি বলেন, নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগণ যার পক্ষে রায় দেয়, সেই রাজনৈতিক দলই প্রধানমন্ত্রী নির্বাচন করে। তখন তিনি কোনো রাজনৈতিক দলের নেতা নন, সারা দেশের নেতা। তাঁকে যদি পছন্দ না হয়, তা হলে পরের নির্বাচনে সুযোগ রয়েছে। সংবিধান অনুযায়ী একজন প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হলে তিনিই আমাদের দেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এবং সেই পদটি নিয়ে প্রতিটি নাগরিকের গর্বের হওয়া উচিত। কারণ তিনিই প্রধানমন্ত্রীই। তিনি এক্স, ওয়াই যে-ই হোন না কেন”।

আরও পড়তে পারেন:

শীতকালীন অধিবেশেন লোকসভা এবং রাজ্যসভায় পাশ হয়েছে যে ১০টি বিল

প্রেমের টানে রাজমিস্ত্রিদের সঙ্গে পালানো বালির দুই গৃহবধূ আটক

টেস্টের কারণে সামান্য বাড়ল সংক্রমণ, তবে সক্রিয় রোগী আরও কিছুটা কমল

হাড় কাঁপানো শীত হয়তো ফের জানুয়ারির শুরুতে

জ্বর ছিল না, গলা ব্যথাও না, তবুও আমায় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হল: ওমিক্রনে সংক্রমিত দিল্লির বাসিন্দা

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন