আবার জোরালো ভূমিকম্প অরুণাচলে, বড়ো কিছুর ইঙ্গিত নয় তো?

0

ওয়েবডেস্ক: আবার জোরালো ভূমিকম্প আঘাত হানল অরুণাচলে। যার প্রভাব পড়ল উত্তরপূর্ব ভারতের সর্বত্র। এ বারও উত্তরবঙ্গের বিক্ষিপ্ত কিছু অঞ্চলেও তা অনুভূত হল। এত কম সময়ের মধ্যে এতগুলি কম্পনের পরে বড়ো কিছুর আশঙ্কায় সাধারণ মানুষের মধ্যে কিছুটা আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে।

শনিবার ভোর ৪:২৪-এ সাড়ে ৫ মাত্রার এই কম্পনটি অনুভূত হয়। শুক্রবার দুপুরের মতোই এই কম্পনের উৎপত্তিস্থল ছিল অরুণাচল প্রদেশের পূর্ব কামেং জেলা। গুয়াহাটি-সহ উত্তরপূর্বের সব জায়গাতে এই কম্পনও টের পাওয়া গিয়েছে। এই নিয়ে ১৪ ঘণ্টায় চারটে কম্পনে কেঁপে উঠল অরুণাচল।

প্রথম কম্পনটি হয়েছিল শুক্রবার বিকেল তিনটের একটু আগে। সেই কম্পনের মাত্রা ছিল ৫.৬। এর পর ৩.৬ এবং ৪.৯ মাত্রার দু’টি কম্পন প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই অনুভূত হয়। ফের এ দিন ভোরে কম্পন। কম্পনের ফলে কোথাও কোনো ক্ষয়ক্ষতি না ঘটলেও মানুষের মধ্যে আতঙ্ক রয়েছে। আবার যদি কম্পন হয়, এর ভয়ে বাড়ি ঢুকতে চাইছেন না অনেকে।

এখন স্বাভাবিক ভাবেই একটা প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, মাত্র কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে এতগুলি কম্পন, কোনো বড়ো কম্পনের ইঙ্গিতবাহী কি না। অনেক ক্ষেত্রেই দেখা গিয়েছে বড়ো কোনো ভূমিকম্প আঘাত হানার আগে একটা জায়গায় একাধিক ছোটো ছোটো কম্পন অনুভূত হয়। একে বলা হয় ‘ফোর-শক’ বা ‘ভূমিকম্প পূর্ববর্তী কম্পন।’ কিছু দিন আগেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় ৭.১ মাত্রার সাংঘাতিক একটি কম্পন অনুভূত হয়। তার ঠিক দু’দিন আগেই ওখানে অনুভূত হয়েছিল সাড়ে ছয় মাত্রার একটি কম্পন।

আরও পড়ুন “আক্রান্তদের সঙ্গে দেখা না করে ফিরবই না!” সারা রাত ধরনার পর নিজের অবস্থানে অনড় প্রিয়ঙ্কা

কাজেই ‘ভূমিকম্প পূর্ববর্তী কম্পন’ অনেক সময়েই হয়। তবে হঠাৎ করে কম্পনের মাত্রা বেড়ে যাওয়া মানেই বড়ো কোনো ভূমিকম্প হবেই, তা নয়। এ ক্ষেত্রে চলে আসে মহারাষ্ট্রের পালঘরের প্রসঙ্গ। গত প্রায় এক বছর ধরে প্রায় লক্ষাধিক ছোটো ছোটো কম্পন অনুভূত হয়েছে এখানে। যদিও কোনোটাই ৫-এর মাত্রা পেরোয়নি। কিন্তু স্বাভাবিক ভাবেই মানুষের মনে এতটাই আতঙ্ক তৈরি হয়ে যায়, যে তাঁরা বাড়ি ঢুকতেই ভয় পাচ্ছেন। কিন্তু সেখানে কোনো বড়ো ধরনের কম্পন হয়নি। ভূমিকম্প বিশেষজ্ঞরাও জানিয়েছেন, এই ধরনের একাধিক কম্পন, বড়ো কোনো ভূমিকম্প আসন্ন, এটা প্রমাণ করে না।

যদিও অরুণাচল-সহ সমগ্র উত্তরপূর্ব ভারতই ভূমিকম্প প্রবল অঞ্চলের মানচিত্রে ৫ নম্বর জোনে পড়ে। অর্থাৎ ভারতের সব থেকে বড়ো ভূমিকম্প প্রবণ এই অঞ্চলটিই। ফলে স্বাভাবিক ভাবেই মানুষকে সতর্কতা অবলম্বন করে তো চলতেই হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.