ভূমিকম্পের পর বাড়িতে ফাটল।সিকিমের পান্ডেম এলাকায়।

গ্যাংটক: সাড়ে ছ’ বছর আগের ভয়াবহ স্মৃতি ফিরে এল এক লহমায়। রবিবার গভীর রাতে মৃদু ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল সিকিম। কম্পন অনুভূত হয়েছে উত্তরবঙ্গের কিছু এলাকাতেও।

মার্কিন ভুতাত্বিক গবেষণা কেন্দ্রের (ইউএসজিএস) মতে রবিবার রাত তিনটে পনেরো নাগাদ রিখটার স্কেলে ৪.৬ মাত্রার এই ভূমিকম্প অনুভূত হয়। কম্পনের উৎসস্থল ছিল গ্যাংটক থেকে ১১ কিমি পূর্বে। কম্পনের পরিভাষায় এটি মৃদু হলেও, মোটামুটি ভালোই ঝাঁকুনি অনুভূত হয় কেন্দ্রস্থল লাগোয়া জায়গাগুলিতে। ভূমিকম্পের ফলে সিকিমের পান্ডেম এলাকায় কয়েকটি বাড়িতে ফাটল ধরেছে।

কম্পন অনুভূত হয় শিলিগুড়ি, জলপাইগুড়ি, দার্জিলিং এবং কালিম্পঙেও। গত কয়েক বছরে বেশ কয়েক বার ভূমিকম্পে কেঁপেছে উত্তরবঙ্গ। তাই এ বার কম্পন অনুভূত হতেই আতঙ্কে রাস্তায় নেমে আসেন মানুষ। অত্যুৎসাহীরা ফেসবুকে ‘স্ট্যাটাস আপডেট’ দিতেও শুরু করে। মালবাজার নিবাসী রাজেন প্রধান বলেন, “ভূমিকম্পের পর মানুষের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি হওয়ার ফলে সবাই বাড়ির বাইরে বেরিয়ে আসে।”

প্রসঙ্গত, ২০১১ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর তীব্র ভূমিকম্পে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছিল সিকিম এবং উত্তরবঙ্গে। তার সাড়ে তিন বছরের মাথায় নেপালের ভয়াবহ ভূমিকম্পেরও ভালো প্রভাব পড়েছিল। এমনিতে ভূমিকম্পপ্রবণ এলাকা হিসেবে ‘জোন ৪’-এ রয়েছে সিকিম এবং উত্তরবঙ্গ, অর্থাৎ এই জায়গাগুলি ভূমিকম্পপ্রবণ এলাকা হিসেবেই পরিচিত। এই এলাকার পাশেই রয়েছে উত্তরপূর্বের ‘সেভেন সিস্টার্স’, যা অতি-ভুমিকম্পপ্রবণ এলাকা হিসেবে পরিচিত। ভূমিকম্পপ্রবণ এলাকা হিসেবে বিশ্বের ষষ্ঠ স্থানে রয়েছে এই ‘সেভেন সিস্টার্স’। 

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন