KJ-Alphons Tourism minister

ভুবনেশ্বর: তিন দিন পরেই সুর পালটে ফেললেন মন্ত্রী। তিনি এক মুখে বলছেন শাসক বিজেপি ‘রাজ্যে রাজ্যে খাদ্যবিধি’ চালু করার পক্ষপাতী নয়, আবার অন্য মুখে বিদেশি পর্যটকদের পরামর্শ দিচ্ছেন ভারতে আসার আগে নিজের দেশে ‘বিফ’ খেয়ে আসার। এই মন্ত্রী কেন্দ্রে নতুন মুখ। তিনি কেন্দ্রের নতুন পর্যটনমন্ত্রী কে জে আলফোন্স। উল্লেখ্য, কেরলের এই সাংসদের কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় স্থান হওয়ার পর সে রাজ্যের সিপিএম মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন যারপরনাই খুশি হয়েছিলেন।

ভুবনেশ্বরে ইন্ডিয়ান অ্যাসোসিয়েশন অব ট্যুর অপারেটর্সদের এক সম্মেলনে তাঁর ভাষণের সূচনায় মন্ত্রী বলেন, “ভারত হল প্রাচীনতম সভ্যতা…সারা বিশ্বের এখানে আসা উচিত এবং আমাদের দেখা উচিত…আমাদের ইতিহাস, আমাদের দেশকে ভালোবাসতে হবে…তাঁদের বলতে হবে, দেখুন এটা একটা সুন্দর দেশ।”

আমলা থেকে রাজনীতিক হওয়া ৬৪ বছরের এই সাংসদকে স্বঘোষিত গোরক্ষকদের কাণ্ড কারখানা এবং বিভিন্ন রাজ্যে ‘বিফ’ খাওয়ায় নিষেধাজ্ঞা নিয়ে ওই সম্মেলনে প্রশ্ন করা হয়। তাঁর কাছে জানতে চাওয়া হয়, এর ফলে ‘আতিথেয়তা ক্ষেত্রে’ (হসপিটালিটি সেক্টর) কোনো প্রভাব পড়বে কি না। তখনই তিনি বলেন, “দে (ট্যুরিস্টস) ক্যান ইট বিফ অ্যান্ড কাম হিয়ার ইয়ার”।

নতুন মন্ত্রী হিসাবে শপথ নেওয়ার এক দিন পরেই  আলফোন্স বলেছিলেন, বিজেপি ‘রাজ্যে রাজ্যে খাদ্যবিধি’ চালু করার পক্ষপাতী নয়। “এই দেখুন না, গোয়া তো বিজেপিশাসিত। সেখানকার মানুষ তো বিফ খায়। কেরলেও বিফ চালু আছে। এ সব নিয়ে বিজেপির কোনো সমস্যা নেই।”

তিন দিন পরেই ভুবনেশ্বরে ঠিক উলটো সুর গাইলেন। বিদেশি পর্যটকদের পরামর্শ দিলেন, নিজের দেশে বিফ খেয়ে ভারতে ঢুকতে। তাঁর আগেকার মন্তব্যের কথা স্মরণ করিয়ে দেওয়া হলে তিনি বেমালুম তা উড়িয়ে দিয়ে বলেন, “এ সব গাঁজাখুরি গপ্পো। আমি তো খাদ্যমন্ত্রী নই, আমি পর্যটনমন্ত্রী।”

ছবি কে জে আলফোন্সের টুইট করা

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here