পরিবেশ দূষণ কমাতে ভিন্ন ভাবে তৈরি হচ্ছে গণেশমূর্তি

0

ওয়েবডেস্ক: কয়েক দিনের মধ্যে গণেশচতুর্থী। গণেশপুজোয় মেতে উঠবে পশ্চিম, দক্ষিণ এবং উত্তর ভারতের একটা বড়ো অংশ। ইদানীংকালে গণেশপুজোর চল পশ্চিমবঙ্গেও বেড়েছে। পুজোর দিন যত এগিয়ে আসছে, ততই চাহিদা বাড়ছে পরিবেশবান্ধব গণেশমূর্তির।

পরিবেশ দূষণ বর্তমান বিশ্বের একটা বড়ো সমস্যার জায়গা। একে এখন থেকে রোধ না করলে ভয়াবহ ব্যাপার ঘটে যেতে পারে। আর তাই মহারাষ্ট্র হোক বা উত্তরপ্রদেশ, চিরাচরিত প্রক্রিয়া থেকে বেরিয়ে একটু ভিন্ন ভাবে তৈরি হচ্ছে গণেশের মূর্তি।

মুম্বইয়ে ২২ ফুটের গণেশমূর্তি বানানো হয়েছে বাঁশ, কাগজ, জলে গুলে যায় এমন আঠা এবং রঙ দিয়ে। মূর্তিশিল্পী অজিত খোট বলেন, “এই মূর্তি তৈরি করার জন্য ৬ মাস ধরে পরিশ্রম করে চলেছেন ১৫ জন শিল্পী। পনেরোশো কেজি ওজনের এই মূর্তি বিসর্জনের ৪৫ মিনিটের মধ্যেই সম্পূর্ণ ভাবে গলে যাবে।”

আরও পড়ুন চন্দ্রযান-২-এর আরও এক সাফল্য, আর মাত্র এগারো দিনের অপেক্ষা

পরিবেশবান্ধব গণেশমূর্তির চাহিদা বেড়েছে উত্তরপ্রদেশের মোরাদাবাদে। এই প্রসঙ্গে এক মূর্তিশিল্পী বলেন, “পরিবেশবান্ধব রঙ এবং মাটি দিয়ে আমরা মূর্তি তৈরি করি। এর ফলে বিসর্জনের সময়ে নদী দূষিত হবে না।” অন্য দিকে প্লাস্টার অব প্যারিসের বদলে মাটি এবং কাদা দিয়ে গণেশ মূর্তি তৈরি করছেন গুজরাতের বডোদরার শিল্পীরা। তামিলনাড়ুর রামেশ্বরমের বর্জ্য কাগজপত্র দিয়ে তৈরি করা হচ্ছে মূর্তি।

২ সেপ্টেম্বর গণেশপুজোয় মেতে উঠবে দেশ। মহারাষ্ট্রের সব থেকে বড়ো ধর্মীয় উৎসব চলবে দশ দিন। ১২ সেপ্টেম্বর মহারাষ্ট্র জুড়ে বিসর্জন হবে গণেশের। তবে ভারতের অন্য প্রান্তে গণেশ বিসর্জন আগেই হয়ে যাবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here