নয়াদিল্লি: ইভিএমে জালিয়াতি করে দেখানোর চ্যালেঞ্জ জানিয়ে নির্বাচন কমিশনের প্রস্তাবিত হ্যাকাথন শুরু হবে আগামী ৩ জুন। শনিবার এমনই জানিয়ছেন মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক নাসিম জঈদি।

সাংবাদিকদের জঈদি জানান, কমিশন স্বীকৃত যে কোনো জাতীয় এবং আঞ্চলিক রাজনৈতিক দল এই চ্যালেঞ্জে অংশগ্রহণ করতে পারে। প্রত্যেকটি দল এই চ্যালেঞ্জের জন্য সর্বোচ্চ তিনজন প্রতিনিধিকে মনোনীত করতে পারবে।

এই হ্যাকাথনে ইচ্ছুকদের নাম নথিভুক্ত করার জন্য ২৬ মে বিকেল ৫টা পর্যন্ত সময় দেওয়া হয়েছে। কত দিন পর্যন্ত এই হ্যাকাথন চলবে সে ব্যাপারে নির্দিষ্ট করে কিছু বলা যা গেলেও বিশেষজ্ঞ মহলের ধারণা অন্তত চার-পাঁচ দিন এটা চলবে।

জঈদি বলেন, কমিশনের সদর দফতরে আয়োজিত হওয়া এই হ্যাকাথনে সর্বোচ্চ চারটে ইভিএম ব্যবহার করতে পারবেন একটি রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিরা। সর্বশেষ বিধানসভা নির্বাচনে (উত্তরপ্রদেশ, উত্তরাখণ্ড, পঞ্জাব, গোয়া এবং মণিপুরে) এই ইভিএমগুলো ব্যবহৃত হয়েছিল। তবে কমিশনের অফিসের বাইরে এই ইভিএম নিয়ে যাওয়া যাবে না।

তবে ইভিএমে যে জালিয়াতি করা যায় না, সে ব্যাপারে শনিবার সাফ জানিয়ে দেন জঈদি। তিনি বলেন, “ইভিএমের বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়ে যাঁরা প্রশ্ন তুলছেন, তাঁদের দাবির সমর্থনে এখনও কোনো প্রমাণ দিতে পারেননি।” বহিরাগত যন্ত্র অর্থাৎ ব্লু-টুথ বা মেমোরি কার্ড দিয়েও ইভিএমের জালিয়াতির অভিযোগ নস্যাৎ করেন তিনি।

এর পাশাপাশি জঈদি জানান, ভবিষ্যতে নির্বাচন প্রক্রিয়ায় স্বচ্ছতা আনতে ইভিএমে ভিভিপ্যাট যন্ত্র ব্যবহার করা হবে বলে জানান তিনি। এর ফলে ইভিএমে জালিয়াতির অভিযোগও আর উঠবে না বলে জানান তিনি।

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here