মুম্বই: বিশ্বের সব চেয়ে স্থূলকায় মহিলা বলে যাঁর চিকিৎসা চলছে মুম্বইয়ের হাসপাতালে, সেই ইমন আহমেদের বোন শাইমা সেলিম ইমনের ডাক্তারকে ‘মিথ্যাবাদী’ আখ্যা দিলেন। হাসপাতালের ভিতরে ১৪ এপ্রিল তোলা একটি ভিডিওতে শাইমা বলেছেন, তাঁর বোন খুব দুর্বল হয়ে পড়েছে। সইফি হাসপাতালে ঠিকঠাক চিকিৎসা হচ্ছে না। “ও কথা বলতে পারছে না, নড়াচড়া করতে পারছে না, কী রকম নীল হয়ে গিয়েছে, কোনো উন্নতিই হয়নি।” শাইমা আরও বলেছেন, ইমনের ওজন কমা নিয়ে ডাঃ মুফজ্জল লাকড়াওয়ালা যা বলছেন তা একেবারেই মিথ্যে।

শাইমার এই অভিযোগের পরেই এর প্রতিবাদে বেরিয়াট্রিক সার্জারির প্রধান ডাঃ অপর্ণা গোভিল ভাস্কর পদত্যাগ করেছেন। যে চিকিৎসক দল ইমনের চিকিৎসা করছেন তাদের অন্যতম সদস্য ডাঃ ভাস্কর। তিনি তাঁর পদত্যাগের কথা ফেসবুক পোস্ট করে জানিয়েছেন। তাঁর পদত্যাগের জন্য তিনি ইমনের আত্মীয়দের দায়ী করেছেন। তাঁর মতে, এই আত্মীয়রা একেবারেই ইমনের যত্নআত্তি করেন না।

সপ্তাহখানেক আগে ডাঃ মুফজ্জল লাকড়াওয়ালা দাবি করেছিলেন, বেরিয়াট্রিক সার্জারির পর ইমনের ওজন এখন আড়াইশো কিলো। ইমন যখন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন তখন ওজন ছিল ৫০০ কেজির বেশি।

হাসপাতালের যে পরিষেবায় ইমনের চিকিৎসা চলছে, শাইমা তার ছবি ভিডিও-তে দেখিয়ে অভিযোগ করেছেন, হাসপাতালে সিএটি স্ক্যান মেশিন নেই। ইমনের এখনও থ্রম্বোসিসের চিকিৎসা চলছে। প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল, ইমনকে এসকর্ট করে টয়লেটে নিয়ে যাওয়া হবে। কিন্তু তা এখনও সম্ভব হয়নি।

আরও পড়ুন: মুম্বইতে অস্ত্রোপচারের দেড় মাসের মধ্যে ২৫০ কেজি ঝরল ইমনের

শাইমার অভিযোগ সম্পর্কে ডাঃ লাকড়াওয়ালার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি এক বিবৃতিতে বলেন, শাইমা যে সব অভিযোগ করছেন, তা হতাশাব্যঞ্জক। এটুকুই বলতে পারি, ঈশ্বর ইমনকে আশীর্বাদ করুন। ইমন একেবারে ফিট। তাঁর স্থূলতা সংক্রান্ত যে সব ঝুঁকি ছিল তা একেবারেই কমে গিয়েছে। তাঁর যে স্নায়ুঘটিত পুনর্বাসন দরকার তার জন্য চাই পুঙ্খানুপুঙ্খ ফিজিওথেরাপি। এর জন্য আর হাসপাতালে থাকার দরকার নেই। ইমনকে ২-১ দিনের মধ্যেই ছেড়ে দেওয়া হবে।

তা হলে তাঁর বোন শাইমা এই অভিযোগ করলেন কেন, জানতে চাওয়া হলে ডাঃ লাকড়াওয়ালা বলেন, সেটা তিনিই ভালো বলতে পারবেন।

এ দিকে ডাঃ অপর্ণা গোভিল ভাস্কর তাঁর ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, “এক জন রোগীর পরিবার কী ভাবে এক জন ডাক্তারকে নিগ্রহ করতে পারে ইমনের ঘটনা তার নিকৃষ্টতম প্রমাণ।” সুদূর আলেকজান্দ্রিয়া গিয়ে যে ডাক্তাররা ইমনকে মুম্বই নিয়ে এসেছিলেন ডাঃ ভাস্কর তাঁদের অন্যতম।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here