mohan bhagwat and pranab mukherjee

ওয়েবডেস্ক: নাগপুরে আরএসএসের সভায় বক্তব্য রাখতে যাওয়ার সবুজ সংকেত দিয়েছেন প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়। চার দশকের বেশি সময় কংগ্রেসের জাতীয়তাবাদী রাজনৈতির সঙ্গে সংপৃক্ত থাকার পরে ৮২ বছর বয়সে তিনি কেন গেরুয়া শিবিরের সভায় উপস্থিত হচ্ছেন, তা নিয়ে বিস্তর আলোচনা চলছে রাজনৈতিক মহলে। এক দিকে যখন যখন বিজেপি সমর্থকরা প্রণববাবুর সিদ্ধান্তে উৎফুল্ল হয়ে সোশ্যাল মিডিয়া কাঁপিয়ে চলেছেন, ঠিক তখনই ঘোর কাটতে শুরু করেছে দলের উঁচুতলার নেতৃত্বের।

এ কথা ঠিক আগামী ৭ জুন নাগপুরে আরএসএসের সদর দফতরে নতুন সদস্যদের সামনে বক্তব্য রাখবেন প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি। এই নিয়ে রীতিমতো সাফল্যের অঙ্ক কষতে শুরু করেছে সঙ্ঘের একাংশ। কিন্তু অপর একটি অংশের সামনে মূলত ঘুরপাক খাচ্ছে দু’টি প্রশ্ন।

প্রথমত, যে প্রণববাবু ২০১০ সালে জাতীয় কংগ্রেসের বার্ষিক সভায় আরএসএসের সঙ্গে জঙ্গিযোগের তদন্তের দাবি জানিয়েছিলেন, সেই তিনিই কেন এক কথায় রাজি হয়ে গেলেন? সে সময় সঙ্ঘের কয়েকটি শাখা সংগঠনের জঙ্গি কার্যকলাপ নিয়ে ইউপিএ সরকারের কাছে এ বিষয়ে সমাধান সূত্র খোঁজার প্রস্তাব রেখেছিলেন।

দ্বিতীয়ত, প্রণববাবু আরএসএসের সভায় গিয়ে কী বার্তা দেবেন নতুন সঙ্ঘ সদস্যদের। ব্যাপারটা এমন নয়, যে তিনি আরএসএস-বিরোধী কথা বলবেন। আবার এমনটাও নয় তাঁর জন্য বক্তব্য পেশের মাপকাঠি নির্ধারণ করে দেওয়া হবে। কিন্তু ক্ষুরধার মস্তিষ্কের রাজনীতিক প্রণববাবু যে বার্তা দেবেন, তা পরোক্ষ ভাবে তাঁদের নীতির পরিপন্থী হবে না তো?

এ ছাড়া অন্য একটি কারণও আরএসএসের ওই অংশের নেতাদের ভাবাচ্ছে, তা হল, প্রণববাবুর সম্মতির সিদ্ধান্তগ্রহণ সোনিয়া গান্ধীর জ্ঞাতসারেই হয়ে থাকতে পারে। কিছু দিন আগে পর্যন্ত প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহের পাশে বসে থাকতে দেখা গিয়েছে তাঁকে। আবার চার মাস আগেও ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়েকের বাড়িতে বিজেপিতে ক্রমশ ‘গুরুত্বহীন’ হয়ে পড়া প্রবীণ নেতা এল কে আদবানির সঙ্গে নৈশভোজে যোগ দিয়েছিলেন তিনি।

আরও পড়ুন: ২০১৯-এ অ-বিজেপি, অ-কংগ্রেস সরকারের প্রধানমন্ত্রী হতে পারেন এক বাঙালি!

ওই নৈশভোজের আসরে সিপিএম সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি এবং প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী জেডি(এস) প্রধান এইচ ডি দেবগৌড়াও উপস্থিতি ছিলেন। সেখানে যদি সত্যিই ২০১৯ লোকসভা ভোটের দিকে তাকিয়ে কোনো পরিকল্পনার কথা আলোচনায় উঠে আসে, তাতে বিজেপির তো খুব একটা লাভবান হওয়ার সম্ভাবনা নেই।

সব মিলিয়ে আগামী ৭ জুনের দিকেই তাকিয়ে সমস্ত পক্ষ!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here