hyderabad rain

হায়দরাবাদ: মেঘভাঙা বর্ষণে সোমবার সন্ধ্যায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়ল তেলঙ্গানার রাজধানী হায়দরাবাদ। মাত্র চার-পাঁচ ঘণ্টার প্রবল বর্ষণে শহরে মৃত্যু হয়েছে সাত জনের।

সোমবার বিকেল পাঁচটা থেকে প্রবল বৃষ্টি শুরু হয় হায়দরাবাদ এবং তার পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে। পাঁচ ঘণ্টায় প্রায় দেড়শো মিলিমিটার বৃষ্টি হয় হায়দরাবাদে। উল্লেখ্য, গোটা অক্টোবরে একশো মিলিমিটারের কিছু বেশি বৃষ্টি হয় হায়দরাবাদে।

এই প্রবল বর্ষণ এবং ঝড়ের ফলে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে হায়দরাবাদের যানচলাচল। জল দাঁড়িয়ে যায় শহরের অধিকাংশ এলাকায়। ভেঙে পড়ে কাঁচা বাড়িঘর, গাড়ির ওপরে গাছ ভেঙে পড়ে। অনেক ফসল নষ্টেরও খবর পাওয়া গিয়েছে।

প্রবল বর্ষণের ফলে হায়দরাবাদ এবং সংলগ্ন এলাকায় সাত জনের মৃত্যু হয়েছে। শহরতলি নারায়ণখেড় অঞ্চলে বজ্রপাতে মৃত্যু হয় চার জনের। বানজারা হিলস সংলগ্ন বস্তিতে দেওয়াল ভেঙে পড়ায় মৃত্যু হয় দু’জনের। এক জনের মৃত্যু হয়েছে বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে। এই ঘটনায় মৃতদের পরিবারকে চার লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণের ঘোষণা করেছে তেলঙ্গানা সরকার।

ঝড়বৃষ্টির ফলে বিদ্যুৎবিহীন হয়ে পড়ে হায়দরাবাদের অধিকাংশ এলাকা। তীব্র যানজটে নাকাল হন সাধারণ মানুষ। সব থেকে খারাপ অবস্থা হয় হায়দরাবাদের আইটি সেক্টর সাইবারাবাদ। সেখানে সমস্ত রাস্তায় হাঁটুসমান জল দাঁড়িয়ে যায়। গভীর রাত পর্যন্ত বাড়ি ফেরার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছেন তথ্যপ্রযুক্তিকর্মীরা। শহরের বিভিন্ন নিচু এলাকা থেকে মানুষকে উদ্ধার করে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়ে গিয়েছে হায়দরাবাদে পুরসভার কর্মীরা। উদ্ধার হওয়া মানুষদের জন্য পর্যাপ্ত ত্রাণ বিলি করা হচ্ছে বলে জানান পুরসভার আধিকারিক এস শ্রীনিবাস রেড্ডি।

এ দিকে পরিস্থিতিকে ‘জরুরি অবস্থা’ আখ্যা দিয়েছেন তেলঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও। প্রয়োজন না পড়লে বাসিন্দাদের বাড়ির বাইরে বেরোতেও নিষেধ করেন তিনি। তবে মঙ্গলবার সকালে আবহাওয়ার উন্নতি হওয়ায় সেই সতর্কবার্তা তুলে নেওয়া হয়েছে।

গোটা ঘটনাটিকে ‘ক্লাউডবার্স্ট’ বা মেঘভাঙা বর্ষণ আখ্যা দিয়েছে আবহাওয়া দফতর। কম সময়ে অতিবর্ষণকেই মেঘভাঙা বর্ষণ বলা হয়। হায়দরাবাদের আঞ্চলিক আবহাওয়া দফতরের ডিরেক্টর ওয়াইকে রেড্ডি বলেন, “আর্দ্রতা হঠাৎ করে অনেকটা বেড়ে গেলে এ রকম পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে। আর্দ্রতা বেড়ে যাওয়ার ফলেই অল্প সময়ের মধ্যে এ রকম জলভরা মেঘ তৈরি হয়। খুব একটা অস্বাভাবিক ঘটনা এটা নয়।”

আগামী ৪৮ ঘণ্টায় হায়দরাবাদ এবং তেলঙ্গানার বিভিন্ন অংশে এ রকম পরিমাণের বৃষ্টি হতে পারে বলে জানিয়েছেন রেড্ডি।

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here