KVIC and Fab India

ওয়েবডেস্ক: যা দেখা যাচ্ছে, ফ্যাব ইন্ডিয়া আর যা-ই হোক, সরকারের সুনজরে থাকে না। এর আগে তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী স্মৃতি ইরানি সংস্থার একটি দোকানে কেনাকাটা করতে গিয়ে হেনস্তার শিকার হয়েছিলেন। যার জেরে ভালো মতোই সুনাম নষ্ট হয়েছিল সংস্থার। আর এ বার অভিযোগ উঠল সরকারি তরফেই- খাদির নাম করে নকল পোশাক বিক্রি করছে ফ্যাব ইন্ডিয়া! পরিণামে সরকারের দ্বারা প্রতিষ্ঠিত খাদি অ্যান্ড ভিলেজ ইন্ডাস্ট্রিজ কমিশন-এর তরফে ৫২৫ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে একটি আইনি নোটিস পাঠানো হল সংস্থাকে।

KVIC

তবে শুধুই প্রতারণার অভিযোগ নয়। খাদি অ্যান্ড ভিলেজ ইন্ডাস্ট্রিজ কমিশনের তরফে তাঁদের লোগো ব্যবহার করার অভিযোগও উঠেছে ফ্যাব ইন্ডিয়ার বিরুদ্ধে। অভিযোগ করে জানিয়েছে কেভিআইসি, চরকা একান্ত ভাবেই তাঁদের সংস্থার প্রতীক। কিন্তু ফ্যাব ইন্ডিয়া বেআইনি ভাবে সেই লোগো নিজেদের পণ্যের প্রচারে ব্যবহার করেছে। যেমনটা দেখা যাচ্ছে উপরের ছবিতে। শুধু তা-ই নয়, ফ্যাব ইন্ডিয়া সত্ত্ব আইন লঙ্ঘন করে ‘চরখা’ নামে একটি পৃথক বস্ত্রসম্ভারও বাজারে নিয়ে এসেছে।

fabindia

এ ছাড়া ফ্যাব ইন্ডিয়ার আকছার ব্যবহার করা খাদি শব্দটি নিয়েও আপত্তি প্রকাশ করেছে সরকার দ্বারা প্রতিষ্ঠিত এই সংস্থা। “ওঁরা দাবি করে থাকেন যে খাদির পোশাক বিক্রি করেন। কিন্তু সেটা সর্বৈব মিথ্যা। ঐতিহ্য অনুযায়ী খাদির পোশাক তৈরি হবে চরকায় কাটা সুতো দিয়ে হাতে বুনে। কিন্তু ফ্যাব ইন্ডিয়ার সুতো যেমন মেশিনে তৈরি হয়, তেমনই পোশাকও বোনা হয় মেশিনেই! এ ভাবে দিনের পর দিন ওঁরা ক্রেতাদের বিভ্রান্ত করে চলেছেন”, জানানো হয়েছে কেভিআইসি-র তরফে।

khadi

ফলে নোটিসে দাবি করেছে কেভিআইসি- ফ্যাব ইন্ডিয়াকে তাদের যাবতীয় বিজ্ঞাপন থেকে চরকার ছবি তুলে নিতে হবে। পাশাপাশি, তারা খাদির বস্ত্র বিক্রি করছেন- প্রত্যাহার করে নিতে হবে এই দাবিও। যদি ফ্যাব ইন্ডিয়া তা না করে, তবে আদালতে মামলা দায়ের করে এই সমস্যার সমাধান করবে বলে জানিয়েছে কেভিআইসি।

fabindia

ফ্যাব ইন্ডিয়ার পক্ষ থেকে যদিও কেভিআইসি-র এই দাবিকে ‘ভিত্তিহীন’ বলে ব্যাখ্যা করা হয়েছে। “পুরো ব্যাপারটাই ভিত্তিহীন! আমরা এই সব দাবিতে কর্ণপাত করার কোনো প্রয়োজন বোধ করছি না। তবে এটুকু বলে রাখছি, যদি আদালতে মামলা ওঠে, আমরাও চুপ করে থাকব না। আইনি পথেই তখন অভিযোগের যোগ্য জবাব দেবো”, জানিয়েছে ফ্যাব ইন্ডিয়া।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here