দু’জনের মধ্যে দেখা হয়েছে, কথাও হয়েছে। এ পর্যন্ত কোনও বিতর্ক নেই। কিন্তু কী কথা হয়েছে, মতের অমিল তা-ই নিয়ে। এক জন বলছেন, কাশ্মীরের বর্তমান অবস্থা নিয়ে তাঁদের মধ্যে দীর্ঘক্ষণ কথা হয়েছে। আর অন্য জন বলছেন, উনি আমার কাছে কয়েক মিনিট ছিলেন। ছেলেমেয়ের সম্পর্কে কথা ছাড়া আর কোনও বিষয়ে কথা হয়নি।

এই দুই ব্যক্তিত্বের এক জন স্বনামধন্য শ্রী শ্রী রবিশঙ্কর। অন্য জন আপাতদৃষ্টে সাধারণ হলেও, কাশ্মীরের বর্তমান পরিস্থিতির প্রেক্ষাপটে তিনি এখন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি – নিহত হিজবুল জঙ্গি বুরহান ওয়ানির বাবা মুজফফর ওয়ানি।

মুজফফর ওয়ানির সঙ্গে তলা একটি ছবি শনিবার সন্ধ্যায় টুইটারে পোস্ট করে রবিশঙ্কর বলেন, “বুরহান ওয়ানির বাবা মুজফফর ওয়ানি দু’দিন তাঁর আশ্রমে ছিলেন। ওই সময় তাঁরা নানা বিষয় নিয়ে কথা বলেন।”

কিন্তু এই সাক্ষাৎকার প্রসঙ্গে মুজফফর ওয়ানির বক্তব্য, তিনি ডায়াবেটিসে ভুগছেন, সেই রোগের চিকিৎসার জন্য তিনি রবিশঙ্করের আশ্রমে আসেন। তখন বরিশঙ্কর তাঁর সঙ্গে ছবি তুলতে চান। তাঁরা ছবি তোলেন। ছেলেমেয়ের কথা জিজ্ঞেস করেন। অন্য কোনও বিষয়ে কথা হয়নি। আমি ওষুধ নিয়ে চলে আসি।”

পরে দু’জনের সাক্ষাৎ নিয়ে ‘আর্ট অফ লিভিং’-এর পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে  দাবি করা হয়, মুজফফর ওয়ানি দু’দিন আশ্রমে ছিলেন এবং তাঁরা কাশ্মীরের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেন। কাশ্মীর উপত্যকার সমস্যা ও কেমন করে সেখানে শান্তি ও স্বাভাবিকতা ফিরিয়ে আনা যায় তার উপায় এই সব নিয়েও কথা বলেন তাঁরা। তবে এই সব আলোচনাই হয় ব্যক্তিগত ও মানবিক দৃষ্টিভঙ্গি থেকে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here