দু’চাকার গাড়ি চালালে পুড়িয়ে মারা হবে মহিলাদের, ফতোয়া কাশ্মীরে

0

মেয়েরা সাবধান, পরের বার স্কুটি বা দু-চাকার যান চালাতে দেখলে গাড়ি-সহ চালককে পুড়িয়ে মারা হবে বলে শনিবার হুমকি দিয়েছে সাংবাজ অ্যাসোসিয়েশন জম্মু অ্যান্ড কাশ্মীর।  এই বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনটি কাশ্মীর উপত্যকায় নিরাপত্তারক্ষী বাহিনীর ওপর পাথর ছুড়েছে বলে দাবি করে। শনিবার শ্রীনগরের লাল চক এলাকার দেওয়ালে দলটি ইংরিজি ও উর্দু ভাষায় লেখা পোস্টার মারে। সেই পোস্টারে তারা জানায়, উপত্যকার মেয়েদের অনুরোধ করা হচ্ছে তারা যেন স্কুটি বা দু’চাকার গাড়ি না চালায়। তাদের কথা না মানা হলে শুধু গাড়ি নয়, গাড়ির চালককেও পুড়িয়ে মারা হবে।

এখানেই থামেনি বিচ্ছিন্নতাবাদীরা। দক্ষিণ কাশ্মীরের কিছু জায়গায় হিজবুল মুজাহিদিন ও লস্কর-ই-তৈবার পোস্টার দেখা গেছে। পোস্টারগুলির ওপরে ইসলামের ‘কলিমা’ (ইসলামের প্রথম মূল নীতি) লেখা। তারা বাসিন্দাদের স্বাধীনতার জন্য জেহাদ চালিয়ে যেতে নির্দেশ দিয়েছে ওই পোস্টারে। তারা কিছু নামজাদা ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান, দোকান ও ব্যাঙ্কের নাম করে সেগুলো বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে। ফতোয়া দেওয়া হয়েছে, হরতাল চলাকালীন সরকারি কর্মচারীরা যেন দফতরে না যান, মহিলারা যেন বাড়ি থেকে বের না হন। মসজিদগুলিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, প্রতি বার নামাজের পর যেন স্বাধীনতার জন্য প্রার্থনা করা হয়।

সাংবাজ অ্যাসোসিয়েশন কাশ্মীর উপত্যকার জন্য বাসিন্দাদের প্রার্থনা করতে নির্দেশ দিয়েছে।  পাশাপাশি সৈয়দ আলি শাহ গিলানি, মিরওয়াইজ উমর ফারুক, ইয়াসিন মালিক প্রমুখ নেতা আগামী ৫ তারিখ পর্যন্ত হরতালের ডাক দিয়েছেন। সেই নির্দেশ না মানলে উপত্যকাবাসীদের কড়া শাস্তি পেতে হবে বলেও জানিয়ে দিয়েছে তারা।

কাশ্মীর পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল এসজেএম গিলানি জানিয়েছেন, এই পোস্টারগুলি দেওয়ার পিছনে কাদের হাত রয়েছে তা জানার জন্য তদন্ত করা হচ্ছে। উপত্যকাবাসী যেন কোনও ভাবেই এই সব হুমকিতে ভয় না পান। তাঁরা যেন স্বাভাবিক জীবনযাপন করেন। মেয়েদেরও অনুরোধ করা হয়েছে যে কোনও দু’চাকার গাড়িতে চড়ে যাতায়াত করার জন্য। তিনি আরও জানান, এই সব ফতোয়া রুখতে যা আইনি ব্যবস্থা নেওয়া দরকার তাঁরা সবই নেবেন।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন