বেছে বেছে ভ্রূণহত্যা? গত তিন মাসে উত্তরাখণ্ডের একাধিক গ্রামে জন্মায়নি কোনো শিশুকন্যা!

0

ওয়েবডেস্ক: গত তিন মাসে জন্মগ্রহণ করা শিশুপুত্রের সংখ্যা ২১৬, একই সময়ে জন্মগ্রহণ করা শিশুকন্যার সংখ্যা ০। উত্তরাখণ্ডের উত্তরকাশী জেলার ১৩২টা গ্রামে এই আজব কাণ্ডটি ঘটে চলেছে। ২০০-এর বেশি ছেলে জন্মালেও কেন কোনো মেয়ে জন্মায়নি, সেটাই ভাবিয়ে তুলছে জেলা প্রশাসনকে। মনে করা হচ্ছে, লিঙ্গনির্ণয় করে বেছে বেছে ভ্রূণহত্যার জন্যই এই ঘটনাটি ঘটছে।

শুধু ভ্রূণহত্যাই নয়, মেয়ে জন্মানোর পরেই তাকে মেরে দেওয়া হচ্ছে এমনও সন্দেহ প্রকাশ করা হয়েছে। উত্তরকাশীর জেলাশাসক আশিস চৌহান বলেন, “ব্যাপারটা খুব সন্দেহজনক এবং এই ঘটনা কন্যাভ্রূণ হত্যার দিকেই আঙুল তুলছে।”

তিনি আরও বলেন, “আগামী ৬ মাস আমরা সবার ওপরে নজর রাখব। পর্যবেক্ষণ বাড়াব। পরিস্থিতি যদি না বদলায় তা হলে আশাকর্মীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেব। পাশাপাশি কন্যাভ্রূণ হত্যা যারা করছে, সেই পরিবারের বিরুদ্ধেও আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

আরও পড়ুন আরও বাড়ল মৃতের সংখ্যা, জল কমলেও অসমের পরিস্থিতির বিশেষ উন্নতি নেই

উল্লেখ্য, উত্তরাখণ্ড রাজ্যে প্রতি ১০০০ পুরুষে মহিলার সংখ্যা ৯৬৩। আর উত্তরকাশী জেলায় সেই মহিলাদের সংখ্যা কমে ৯৫৮। নারী-পুরুষ অনুপাতের বিচারে রাজ্যের মধ্যে নবম স্থানে রয়েছে এই জেলা। অথচ ১০০ বছর আগে পরিস্থিতি সম্পূর্ণ অন্য রকম ছিল। তখন নারীদের পক্ষেই ছিল এই অনুপাত।

১৯০১ থেকে ১৯৩১ পর্যন্ত জনগণনায় দেখা গিয়েছে প্রতি ১০০০ পুরুষে মহিলাদের সংখ্যা ১০১৫। ১৯৩১-এর পর থেকেই এই অনুপাত পুরুষদের পক্ষ নিতে শুরু করে। ২০১১-তে সেটা কমে হয় ৯৫৮। যদিও এখন আবার একটু বেড়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here