padmavati

ওয়েবডেস্ক: এ যেন ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি!

আলাউদ্দিন খিলজির চিতোর আগ্রাসনের শেষ পর্বে তাকালে দেখা যায়, তখন আর লড়াইটা রানি পদ্মিনীর একার ছিল না। তাঁর জন্য চিতোরগড়ের পুরুষরা প্রাণ দিয়েছিল যুদ্ধক্ষেত্রে। আর সব নারী তাঁর সঙ্গে নিজেকে সঁপে দিয়েছিল জহরের পুণ্য অগ্নিগ্রাসে।

এবার ঠিক সে ভাবেই ছায়াছবির রানির সুরক্ষার জন্য জোট বাঁধলেন সারা ভারতের চলচ্চিত্র নির্মাতারা। যখনই মুখ ফুটে বললেন দীপিকা পাড়ুকোন- ‘এরকম পরিস্থিতিতে আমি সুরক্ষার অভাব বোধ করছি’, তখনই শুরু হল জেহাদ। তাঁদের সঙ্গে যোগ দিয়েছিলেন ছোটো পর্দার সঙ্গে জড়িত শিল্পীরাও। রবিবার শুধু মাত্র পথে নেমে বিক্ষোভ দেখিয়েই শেষ হয়নি তাঁদের প্রতিবাদ। পাশাপাশি, সারা ভারতেই ১৫ মিনিট ধরে পালন করা হয় ব্ল্যাক আউট। বিকেল ৪টে ১৫ থেকে সাড়ে ৪টে পর্যন্ত বন্ধ থাকে সব ছবির শুটিং।

জানা গিয়েছে, মুখ্যত এই প্রতিবাদের আয়োজন করা হয়েছিল ইন্ডিয়ান ফিল্মস অ্যান্ড টিভি ডায়রেক্টরস অ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোগে। সঙ্গে যোগ দিয়েছিল আরও ১৯টি সংস্থা। সম্মিলিত এই উদ্যোগে প্রায় ১০০০ জন মানুষ পথে নেমে বিক্ষোভ দেখান। প্রশ্ন তোলেন তাঁরা- আমরা কি সত্যিই স্বাধীন? পাশাপাশি প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন ইন্ডিয়ান ফিল্মস অ্যান্ড টিভি ডায়রেক্টরস অ্যাসোসিয়েশনের মুখপাত্র অশোক পণ্ডিত- ‘দেশে কি গণতন্ত্র বলে কিছুই নেই?’

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here