তীব্র হচ্ছে কৃষক বিক্ষোভ, এনডিএ-র উপর চাপ বাড়াচ্ছে শরিকরা

0

খবর অনলাইন ডেস্ক: কৃষক বিক্ষোভ আরও তীব্র হচ্ছে দেশ জুড়ে। এমন পরিস্থিতিতে ‘দ্রুত সমস্যা সমাধানের দাবি’তে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ-র উপর চাপ বাড়াচ্ছে বিভিন্ন রাজ্যের শরিক দলগুলি।

বিতর্কিত তিনটি কৃষি আইন প্রত্যাহার অথবা প্রয়োজনে সেগুলি সংশোধনের দাবিতে ‘দিল্লি চলো’র ডাক দিয়েছিলেন পঞ্জাবের কৃষকরা। পরে সেই আন্দোলন কর্মসূচি ক্রমশ আকারে বিস্তৃত হচ্ছে। সরকারের প্রস্তাবে সাড়া দিয়ে একাংশের বিক্ষোভকারীরা আলোচনায় বসতে রাজি হলেও তাদের মূল দাবি মানার কোনো ইঙ্গিত এখনও দেয়নি সরকার। সব মিলিয়ে জটিলতা কাটার লক্ষণ নেই।

হরিয়ানায় হুঁশিয়ার

মঙ্গলবার কৃষক বিক্ষোভ নিয়ে স্পষ্ট বার্তা দেয় হরিয়ানায় বিজেপির দোসর জননায়ক জনতা পার্টি। তারা বলে,
কৃষকদের সমস্যা সমাধানের জন্য “দ্রুত এবং সর্বসম্মত সমাধান” খুঁজে বের করার কেন্দ্রীয় সরকারের প্রথম লক্ষ্য হওয়া উচিত।

জেজেপির প্রতিষ্ঠাতা অজয় চৌতালা সংবাদ সংস্থা এএনআই-কে জানান, “বিক্ষোভরত কৃষকদের দাবিগুলিতে আলোকপাত করে সর্বসম্মত সমাধান দ্রুত কার্যকর করা উচিত কেন্দ্রের। কৃষকদেক সমস্যা যত তাড়াতাড়ি সমাধান করা হবে, ততই মঙ্গল। আমরা সরকারের সঙ্গে থেকেই এই অনুরোধ জানাচ্ছি”।

বিজেপির সদ্য প্রাক্তন সহযোগী আরও এক নির্দল বিধায়ক সম্বির সঙ্গওয়ান হুঁশিয়ারি দিয়ে এ দিন বলেন, “এই কৃষক বিরোধী সরকারের উপর থেকে আমি সমর্থন প্রত্যাহার করে নিয়েছি। এই সরকারের কাছ থেকে সহানুভূতির পরিবর্তে জল কামান, কাঁদানে গ্যাসের মতো পদক্ষেপগুলি দেখা গিয়েছে। দিল্লি যাওয়ার পথে কৃষকদের আটকাতে এ ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছিল। আমি এমন সরকারকে সমর্থন জানাতে পারছি না”।

রাজস্থানেও বিক্ষোভের আঁচ

শুধু হরিয়ানা নয়, রাজস্থানেও শরিকি প্রতিবাদের মুখে পড়তে হচ্ছে বিজেপি-কে। সেখানে রাষ্ট্রীয় লোকতান্ত্রিক পার্টির প্রধান এবং রাজস্থানের সাংসদ হনুমান বেনিওয়াল দাবি করেছেন, কৃষকদের ব্যাপক বিক্ষোভের পর ওই কৃষক-বিরোধী তিনটি আইন প্রত্যাহার করা হোক। এ ব্যাপারে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের উদ্দেশে সোজাসাপটা একটি টুইটও করেছেন বেনিওয়াল।

ওই টুইটে আরএলপি প্রধান লিখেছেন, “আরএলপি হল এনডিএ অঙ্গ, তবে আমাদের দলের মূল শক্তি কৃষক ও জওয়ানরা। এ বিষয়ে যদি তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা না নেওয়া হয়, তবে কৃষকদের স্বার্থে আমাকে এনডিএ-র অংশীদার হিসেবে থাকা, না-থাকার বিষয়টি নিয়ে ভাবতে হবে”।

সঙ্গ-ত্যাগ করেছে অকালি দল

গত সেপ্টেম্বর সংসদে ওই কৃষি বিলগুলিকে কেন্দ্র করে বিতর্কের জেরে এনডিএ থেকে বেরিয়ে যায় শিরোমণি অকালি দল।

এনডিএ-ছাড়ার কারণ হিসেবে অকালি দলের প্রধান সুখবীর সিং বাদল বলেন, দলের মূল ভোটাদাতারাই হলেন কৃষককুল। আর এই তিনটি বিল কৃষককুলের কাছে ‘প্রাণঘাতী ও সর্বনাশা’। (আরও পড়তে পারেন: বিতর্কিত কৃষি বিলের বিরোধিতায় বিজেপি-সঙ্গ ত্যাগ করল অকালি দল) এখনও আরও বেশ কয়েকটি দলের হুঁশিয়ারি কেন্দ্রের শাসক জোটের উচ্চ নেতৃত্বকে নতুন করে ভাবাচ্ছে।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন