মধ্যপ্রদেশে মান্দসোরে কৃষক বিক্ষোভে গুলি, হত ৬, আহত বহু

0
329

ভোপাল : মধ্যপ্রদেশে গুলিতে নিহত ৬ জন কৃষক। আহত অনেকে। উৎপাদিত শস্যের ন্যায্য মূল্যের দাবিতে মঙ্গলবার মধ্যপ্রদেশের মান্দসোর জেলার পিপলিয়া টোল নাকায় বিক্ষোভ দেখানোর সময় তাদের ওপর গুলি চলে। ভোপাল থেকে ৩৫০ কিলোমিটার দূরে এই এলাকা। খরাগ্রস্ত এলাকায় ঋণের দায়ে আত্মহত্যা করছে কৃষকরা। এই প্রেক্ষিতে সপ্তাহব্যাপী চলছে কৃষকদের এই আন্দোলন। তাদের দাবি সরকারকে ন্যায্য মূল্যে তাদের শস্য কিনতে হবে, খরায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের ক্ষতিপূরণের জন্য উপযুক্ত খামার প্যাকেজ দিতে হবে আর কৃষিঋণ মুকুব করতে হবে। কৃষকরা এর আগে বেশ কিছুক্ষণ রাস্তা অবরোধ করে রেখেছিল। পুলিশ জানিয়েছে, নিহতরা প্রত্যেকেই মান্দসোরের বাসিন্দা।

এক জন পুলিশ আধিকারিক জানান, ঘটনা ঘিরে গুজব আটকাতে গোটা এলাকার ইন্টারনেট যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে খবর, সরকারের দায়িত্বহীনতায় ক্ষিপ্ত কৃষকরা পিপলিয়া থানা ঘিরে বিক্ষোভ দেখায়। ২৭টি গাড়িতে আগুন দেওয়া হয়। এর পর পুলিশ তাদের ছত্রভঙ্গ করার জন্য কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে। ও পরে গুলি চালাতে শুরু করে। তাতেই গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হয় চার জন। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। গোটা এলাকায় কারফিউ জারি করা হয়েছে।

কিন্তু রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ভুপেন্দ্র সিংহ পুলিশের হস্তক্ষেপের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন। তিনি বলেন, এই আন্দোলনের পেছনে বেশ কিছু সমাজবিরোধীর হাত রয়েছে। তাদেরই জব্দ করতে কঠোর ব্যবস্থা নিয়েছে পুলিশ।

অন্ যদিকে কংগ্রেস নেতা তথা গুনার এমপি জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া বলেন, মুখ্যমন্ত্রী নিজে এক জন কৃষকের ছেলে, অথচ তারই পুলিশ কৃষকদের হত্যা করল। তিনি এই ঘটনার বিচারবিভাগীয় তদন্তের দাবি জানিয়েছেন।

কংগ্রেসের সহ-সভাপতি রাহুল গান্ধী টুইট করে বলেন, “এই সরকার আমাদের দেশের কৃষকদের সঙ্গে যুদ্ধ করছে।”

 

মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিংহ চৌহান ঘটনায় বিচারবিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। মৃতদের পরিবার পিছু ১০ লক্ষ টাকা ও আহতদের ১ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন।

 

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here