নয়াদিল্লি: উত্তরাখণ্ডের বনাঞ্চলে দাবানলের প্রকোপে পড়ে গাছ, বন্যপ্রাণ এবং পাখির নিধন সমানে অব্যাহত। এ বিষযে দ্রুত কার্যকরী ব্যবস্থা নেওয়ার আর্জি জানিয়ে দাখিল হওয়া আবেদন গ্রহণের পর শুনানির দিন বরাদ্দ করল সুপ্রিম কোর্ট। মঙ্গলবার সর্বোচ্চ আদালত জানায়, “দাবানল একটি সাংঘাতিক বিষয়, বৃষ্টির জন্য প্রার্থনা করুন”। একই সঙ্গে জানানো হয়, আগামী ২৪ জুন এই আবেদনের উপর শুনানি হবে।

আইনজীবী ঋতুপর্ণ উনিয়ালের দাখিল করা আবেদন গ্রহণ করে সুপ্রিম কোর্টের অবসরকালীন বেঞ্চের বিচারপতি দীপক গুপ্তা এবং বিচারপতি সূর্য কান্ত জানান, আবেদনটির গুরুত্ব রয়েছে। আগামী ২৪ জুন এই আবেদনের উপর শুনানি হবে।

বিচারপতিদ্বয়ের কথায়, “আগামী সোমবার (২৪ জুন) আমরা আবেদনটি শুনব। এটা একটা সাংঘাতিক বিষয়। এই সময়ে আপনারা বৃষ্টির জন্য প্রার্থনা করুন”।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার উত্তরাখণ্ডের ক্রমবর্ধমান দাবানলের হাত থেকে গাছপালা, বন্যপ্রাণ এবং পরিবেশকে রক্ষার স্বার্থে সর্বোচ্চ আদালতে যান ঋতুপর্ণ। তিনি এই বিষয়ের উপর জরুরি ভিত্তিতে শুনানির আবেদন জানান।

আবেদনে জানানো হয়েছে, এই ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের বিরুদ্ধে মোকাবিলা করতে কেন্দ্রীয় সরকার, উত্তরাখণ্ড বন বিভাগ এবং রাজ্য সরকারের সংশ্লিষ্ট সমস্ত দফতরকে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হোক। আগুন লাগার আগে বা আগুনের লেলিহান শিখা বিস্তার লাভের আগে, কী কী করণীয়- সে সব বিষয়েই কার্যকরী পদক্ষেপ নেওয়া হোক।

[ ভয়াবহ দাবানলে ক্ষতিগ্রস্ত অতি পরিচিত পাহাড়ি রাজ্য, নষ্ট বনাঞ্চল ]

একই সঙ্গে দাবি করেছেন, এই ঘটনার নেপথ্যে প্রকৃত কারণ খুঁজে বের করতে নিরপেক্ষ সংস্থাকে দিয়ে তদন্ত করানোর নির্দেশ দিক সুপ্রিম কোর্ট। ঐতিহাসিক ভাবে উত্তরাখণ্ডের বনাঞ্চলের বৈচিত্র রয়েছে। কিন্তু প্রতি বছর যে ভাবে দাবানলের প্রকোপে পড়ে অংসখ্য জীব বৈচিত্র ছাই হচ্ছে। জঙ্গলের বাস্তুতন্ত্রে ব্যাপক প্রভাব পড়ার পাশাপাশি উদ্ভিজ-প্রাণীজ মিলিয়ে প্রচুর অর্থনৈতিক সম্পদ যে ভাবে হানি হচ্ছে, তা রোধ করা হোক।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here