ওয়েবডেস্ক: ভয়াবহ দাবানলের কবলে পড়েছে উত্তরাখণ্ড। বন দফতরের আধিকারিকরা জানিয়েছেন, গত এক সপ্তাহে রাজ্যে দু’হাজারের বেশি দাবানলের ঘটনা ঘটেছে। এর ফলে আগুনের গ্রাসে চলে গিয়েছে রাজ্যের ১৭০০ হেক্টর বনাঞ্চল।

গ্রীষ্মের শুরু থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় দাবানল শুরু হয়। কিন্তু ২১ মে’র পর থেকে সেটা চরম আকার ধারণ করেছে। ফরেস্ট সার্ভে অব ইন্ডিয়ার থেকে পাওয়া তথ্যে জানা গিয়েছে, এই বুধবার পর্যন্ত গত এক সপ্তাহে ২,১৮১টা দাবানলের ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে ৬৪টা দাবানল সাংঘাতিক ভয়বাহ আকার ধারণ করে। দাবানলের জেরে সব থেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত টেহরি জেলার জঙ্গল। যদিও গোটা গাড়োয়াল অঞ্চলই সামগ্রিক ভাবে ক্ষয়ক্ষতির মুখোমুখি হয়েছে।

https://twitter.com/himwant/status/1133434533460578309

গত এক সপ্তাহ ধরে রাজ্যের পারদ ক্রমশ চড়ছে। উত্তরাখণ্ড মূলত পাহাড়ি রাজ্য হলেও, সমুদ্রতলের কাছাকাছি থাকা এলাকায় পারদ ৪০ ছাড়িয়ে গিয়েছে। এর ফলেই আগুন ক্রমশ ছড়িয়ে যাচ্ছে জঙ্গলগুলিতে। এই পরিস্থিতি থেকে মুক্তি পেতে একমাত্র বৃষ্টিই ভরসা, যদিও আগামী অন্তত এক সপ্তাহ বৃষ্টির কোনো সম্ভাবনাই নেই বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর।

আরও পড়ুন অনাস্থা প্রস্তাব নিয়ে ধন্ধুমার কাণ্ড দার্জিলিং পুরসভায়

এ দিকে রাজ্যের বন দফতরের আধিকারিকরা জানিয়েছেন, এই আগুনের জেরে ১,৭৯৮ হেক্টর জঙ্গল নষ্ট হয়ে গিয়েছে। এর মধ্যে ১,৩৪১ হেক্টর সংরক্ষিত বনাঞ্চল নষ্ট হয়ে গিয়েছে। এই বনাঞ্চল আবার কী ভাবে পুনরায় গড়ে উঠবে সেই নিয়ে চিন্তিত উত্তরাখণ্ড প্রশাসন।  

এই দাবানলের জেরে কোনো রকমে একটি বড়ো দুর্ঘটনা এড়ানো গিয়েছে। দাবানলের ধোঁয়ায় দৃশ্যমানতা কমে যাওয়ায় হেমকুন্ড সাহেবগামী একটি হেলিকপ্টারকে চামোলিতে জরুরি অবতরণ করতে হয়েছে। অবতরণ না করলে একটা বড়ো দুর্ঘটনা ঘটতে পারত বলে জানাচ্ছে ওয়াকিবহাল মহল।

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here