আগুনে পুড়তে থাকা সিমলিপালে স্বস্তির বৃষ্টি, আনন্দে নেচে উঠলেন মহিলা বন আধিকারিক

0

খবরঅনলাইন ডেস্ক: প্রকৃতিকে রক্ষা করার দায়িত্ব প্রকৃতিই নিয়ে নিল। আর সেই আনন্দে নেচে উঠল মানুষ। এমনই ঘোষণা ঘটেছে বুধবার ওড়িশার সিমলিপাল জাতীয় উদ্যানে।

গত দুই সপ্তাহ ধরে ভয়াবহ আগুনের গ্রাসে ছিল এই জাতীয় উদ্যান। দাবানলে পুড়ে ছারখার হয়ে গিয়েছে এই ন্যাশনাল পার্কের অনেকটা অংশ। কতো যে বন্যপ্রানের মৃত্যু হয়েছে তার হিসেব নেই। সেই আগুন নেভাতে গিয়ে বন আধিকারিক এবং দমকল যখন অসহায়, তখনই নামল স্বস্তির বৃষ্টি।

বুধবার দুপুরের পর থেকে সিমলিপালের অনেকটা অংশ জুড়ে জোর বৃষ্টি হয়েছে। কোথায় কোথাও শিলাবৃষ্টিও হয়েছে। এতে আগুন অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে এসে গিয়েছে।

সিমলিপালে বৃষ্টি শুরু হওয়ার পর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে একটি ভিডিও। সেখানে দেখা গিয়েছে,  বনবিভাগের এক মহিলা আধিকারিক আনন্দে নাচতে শুরু করেছেন। আকাশের দিকে হাত তুলে নাচতে নাচতে উদাত্ত কণ্ঠে তিনি বলছেন, “বহুত যাদা বর্ষা দে”, অর্থাৎ আরও বেশি বৃষ্টি দাও।

ইন্ডিয়ান ফরেস্ট অফিসার রমেশ পাণ্ডে এই ভিডিও শেয়ার করেছেন টুইটারে। ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন, “এই রকম পরিস্থিতিতে বৃষ্টি হওয়া ঈশ্বরের অসীম কৃপা। ওই মহিলা অফিসার কেন এতটা খুশি সেটা আমরা সবাই আন্দাজ করতে পারছি। আগুন অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে এসে গিয়েছে। সাম্প্রতিক স্যালেটাইট ডেটা থেকে তেমনটাই জানা গিয়েছে।”

প্রাথমিক ভাবে টুইটারে এই ভিডিয়ো শেয়ার করেছিলেন ডক্টর যুগল কিশোর মহান্ত। তিনি জানিয়েছিলেন, এই মহিলা আধিকারিকের নাম স্নেহা ঢাল। সিমলিপাল জাতীয় উদ্যানে দাবানলের পর আগুন নেভানোর কাজে সর্বক্ষণের জন্য রয়েছেন স্নেহা।

আরও আনন্দের কথা হল শনিবার পর্যন্ত প্রায় রোজই দুপুরের পর সিমলিপাল অঞ্চলে ঝড়বৃষ্টি হতে পারে। ফলে আগুন যে একদমই নিভে যাবে তা বলাই বাহুল্য।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

৫ বছরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সম্পদ কমে প্রায় অর্ধেক!

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন