Omar Abdullah
ওমর আবদুল্লার আগেকার ছবি তাঁর twitter account থেকে নেওয়া।

শ্রীনগর: আপ (আম আদমি পার্টি) তো সুবিধাবাদী। কিন্তু কংগ্রেসের আচরণ তো পরস্পর-বিরোধী। দিল্লির মন্ত্রী মণীশ সিসোদিয়াকে সিবিআই অভিযুক্ত করার বিষয়ে কংগ্রেসের প্রতিক্রিয়াকে এ ভাবেই ব্যাখ্যা করলেন ন্যাশনাল কনফারেন্সের নেতা ওমর আবদুল্লা।

দিল্লির মাদক নীতি নিয়ে তদন্ত করতে গিয়ে সিবিআই যে এফআইআর দায়ের করেছে তাতে দিল্লির উপ-মুখ্যমন্ত্রী মণীশ সিসোদিয়ার নাম এক নং অভিযুক্ত হিসাবে রাখা হয়েছে। এই কারণে সিসোদিয়ার পদত্যাগ দাবি করেছে কংগ্রেস। কংগ্রেসের এই আচরণকেই পরস্পর-বিরোধী ও দুমুখো বলে ব্যাখ্যা করেছেন জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লা।

ওমর বলেন, “যখন এই সব এজেন্সি কংগ্রেসের পিছনে লাগে, তখন তাদের সমালোচনা করা হয় আর যখন তারা ‘আপ’-এর পিছনে লাগে তখন তাদের বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়ে কোনো প্রশ্ন তোলা হয় না। এটা কেমন ব্যাপার?”

ওমর বলেন, “আমি আপ-এর সুবিধাবাদী রাজনীতি নিয়ে কোনো বিতর্ক তুলছি না। তাদের সুবিধাবাদের প্রথম প্রমাণ জম্মু-কাশ্মীর ২০১৯-এই পেয়েছিল।”

বিরোধী শিবিরে অনৈক্য

ন্যাশনাল হেরাল্ড মামলায় এনফোর্সমেন্ট ডায়রেক্টোরেট (ইডি) সনিয়া গান্ধীকে জেরা করায় তার প্রতিবাদে রাস্তায় নেমেছিল কংগ্রেস। তার কয়েক দিন পরেই মণীশ সিসোদিয়ার বাড়িতে সিবিআই হানা দিল। কিন্তু তার বিন্দুমাত্র সমালোচনা করল না কংগ্রেস। উলটে মণীশের পদত্যাগ দাবি করে বসল তারা। এতেই বিরোধীদের মধ্যে অনৈক্যের ছবিটা স্পষ্ট হয়ে যায়।

রবিবার আপ নেতা মণীশ সিসোদিয়ার পদত্যাগ দাবি করে কংগ্রেস বলেছে, শিক্ষানীতি নিয়ে বিতর্কের আড়ালে আপ নিজেকে লুকিয়ে রাখতে পারবে না।

সিসোদিয়ার বিরুদ্ধে সিবিআই যে পদক্ষেপ করেছে, তার তীব্র নিন্দা করেছে সিপিএম, তৃণমূল কংগ্রেস। আর ও-দিকে বিজেপি এই বিতর্কে টেনে এনেছে তেলঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাওকে (কেসিআর)। বিজেপির দাবি, দিল্লির মাদক নীতি নিয়ে বৈঠকে কেসিআর-এর পরিবারের সদস্যরা হাজির ছিলেন এবং হায়দরাবাদের কিছু মানুষ দিল্লিতে মাদক-লাইসেন্স পেয়েছেন।

মণীশ সিসোদিয়ার বিরুদ্ধে সিবিআইয়ের এই কাজকে ‘রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’ বলে অভিহিত করেছে আপ। তদন্তে সম্পূর্ণ সহযোগিতা করার আশ্বাস দিয়ে মণীশ বলেছেন, কেন্দ্র আসলে এখন কেজরিওয়ালকে টার্গেট করছেন। কারণ ২০২৪-এর নির্বাচন হবে নরেন্দ্র মোদী বনাম অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

আরও পড়তে পারেন    

যন্তর মন্তরে কিষান সমাবেশ, রাকেশ টিকায়েত আটক, দিল্লিতে কড়া নিরাপত্তা

সন্তানকে ১৭ বছর বয়স পর্যন্ত বেসরকারি স্কুলে পড়ানোর খরচ প্রায় ৩০ লক্ষ, বলছে সমীক্ষা

ভারত-চিন সম্পর্কে এই বিষয়টি আর গোপন নয়, জানালেন বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন