উত্তরপ্রদেশে কৃষকদের বিক্ষোভে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর কনভয়, হত ৪, পরবর্তী হিংসাত্মক ঘটনায় হত ৪

0
ছবি টুইটার থেকে নেওয়া।

লখনউ: রবিবার উত্তরপ্রদেশের লখিমপুর খেরিতে ভয়াবহ হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হল। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অজয় কুমার মিশ্রের কনভয়ের সামনে কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ প্রদর্শন করছিলেন কৃষকরা। অভিযোগ, সেই সময় মন্ত্রীর ছেলে আশিস মিশ্রর গাড়ি তাদের উপর দিয়ে চালিয়ে দেওয়া হয়। ফলে চার জন প্রাণ হারান বলে কৃষক সংগঠনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

এই ঘটনার পর ক্ষুব্ধ কৃষকরা মন্ত্রীর ছেলের গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয়। তাতে চার জন প্রাণ হারিয়েছেন বলে দাবি করা হয়েছে। ওই চার জনের মধ্যে তিন জন তাদের দলের কর্মী বলে বিজেপি জানিয়েছে। ঘটনার জেরে রাজ্যের নানা জায়গায় হিংসাত্মক ঘটনা ঘটে।

লখিমপুর খেরির ঘটনায় সব মিলিয়ে আট জনের মৃত্যুর খবর স্বীকার করেছে উত্তরপ্রদেশ পুলিশের সদর দফতর। তারা জানিয়েছে, যে আট জনের মৃত্যু হয়েছে তাঁদের মধ্যে চার জন বিক্ষোভরত কৃষক ও বাকি চার জন ওই গাড়ির আরোহী।   

গোটা ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। তদন্তের পরে যারা দোষী সাব্যস্ত হবে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। রাজ্যে শান্তি বজায় রাখার জন্য আবেদন জানিয়েছেন যোগী।

ও দিকে প্রতিবাদী কৃষকদের পক্ষ থেকে সমাজকর্মী যোগেন্দ্র যাদব জানিয়েছেন, উত্তরপ্রদেশের ঘটনার প্রতিবাদে সোমবার দেশ জুড়ে সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত জেলাশাসকদের অফিসের সামনে বিক্ষোভ দেখানো হবে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অজয় কুমার মিশ্র ওরফে টেনির দিক থেকে যারা এই ঘটনায় জড়িত তাদের বিরুদ্ধে অবিলম্বে হত্যা-মামলা দায়ের করার জন্য সংযুক্ত কিষান মোর্চার তরফ থেকে দাবি জানানো হয়েছে।     

ঘটনা পরম্পরা

জানা গিয়েছে, লখিমপুর খেরির বনবীরপুর স্থানীয় এমপি তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অজয় কুমার মিশ্র ওরফে টেনির স্বগ্রাম। সেখানে একটি কুস্তি প্রতিযোগিতায় বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল রাজ্যের উপ-মুখ্যমন্ত্রী কেশব প্রসাদ মৌর্যকে।

ক্রান্তিকারী কিষান ইউনিয়নের নেতা দর্শন পাল জানান, বনবীরপুরে রাজ্যের উপ-মুখ্যমন্ত্রীর আসা ঠেকাতে স্থানীয় অগ্রসেন গ্রাউন্ডের হেলিপ্যাড ঘেরাও করার প্রতিবাদ কর্মসূচি ছিল প্রতিবাদী কৃষকদের। প্রতিবাদ-বিক্ষোভ দেখানোর পর কৃষকরা যখন ফিরে যাচ্ছিল, তখন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অজয় মিশ্রর কনভয়ের গাড়ি প্রতিবাদী কৃষকদের চাপা দিয়ে দেয়।

ওই গাড়িতে অজয় মিশ্রের ছেলে আশিস মিশ্র ছিল বলে কৃষক নেতারা দাবি করেছেন। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অবশ্য এই দাবি নস্যাৎ করে বলেছেন, তাঁর ছেলে ওই গাড়িতে ছিল না।

ছবি টুইটার থেকে নেওয়া।

মন্ত্রীর ছেলের বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ

সন্ধ্যায় এক ভার্চুয়াল সাংবাদিক বৈঠকে সংযুক্ত কিষান মোর্চা (এসকেএম) তিনটি দাবি জানিয়েছে। এ কথা জানান দর্শন পাল। দাবি তিনটি হল –

এক, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পরিষদ থেকে অজয় কুমার মিশ্রকে অবিলম্বে বহিষ্কার করতে হবে।

দুই, তাঁর ছেলে এবং আর যে সব ‘গুণ্ডা’কে তিনি সঙ্গে এনেছিলেন তাদের বিরুদ্ধে ৩০২ ধারায় এফআইআর দায়ের করতে হবে।

তিন, সুপ্রিম কোর্টের কোনো কর্মরত বিচারপতিকে দিয়ে ঘটনার তদন্ত করাতে হবে।

লখিমপুর খেরির ঘটনায় যাঁরা নিহত হয়েছেন তাঁদের নাম জানিয়েছে সংযুক্ত কিষান মোর্চা (এসকেএম)। এঁরা হলেন লাভপ্রীত সিং (২০), নচত্তর সিং (৬০), দলজিৎ সিং (৩৫) এবং গুরবিন্দর সিং (১৯)।

ওই ঘটনায় আট জন কৃষক গুরুতর আহত হয়েছেন বলে এসকেএম-এর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। এঁদের মধ্যে মোর্চার নেতা তেজিন্দর সিং বিরকও আছেন। এঁদের লখিমপুর খেরির হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে।        

ঘটনাস্থলে পুলিশের বড়ো কর্তারা     

ওই ঘটনার পর লখনউ থেকে ৩ কোম্পানি পুলিশ লখিমপুর খেরিতে পৌঁছেছে। উত্তরপ্রদেশ পুলিশের অ্যাডিশনাল ডিরেক্টর জেনারেল (এডিজি) (আইনশৃঙ্খলা) প্রশান্ত কুমার-সহ পুলিশের একগুচ্ছ উচ্চপদস্থ অফিসার ঘটনাস্থল গেছেন। সারা উত্তরপ্রদেশ জুড়ে সন্ধ্যা থেকে কৃষকদের বিক্ষোভ আর মিছিল চলছে। উত্তরপ্রদেশ সরকার ইন্টারনেট সংযোগ বন্ধ করে দিয়েছে। সিসৌলিতে কৃষক পঞ্চায়েত শুরু করেছে কৃষকেরা।

সংযুক্ত মোর্চার নেতা রাকেশ টিকাইত সঙ্গে সঙ্গে গাজিপুর সীমান্ত থেকে লখিমপুরের উদ্দেশে রওনা হয়েছেন। রওনা হওয়ার আগে টিকাইত বলেছেন, এই ঘটনায় সরকারের নৃশংস ও অগণতান্ত্রিক মুখটা প্রকাশ হয়ে পড়ল। তিনি বলেন, কৃষকদের ধৈর্যের পরীক্ষা নেওয়া উচিত নয় সরকারের। প্রতিবাদী কৃষকদের প্রতি শান্তিরক্ষার আবেদন জানিয়ে টিকাইত বলেছেন, “জয় আপনাদেরই হবে”।

আরও পড়তে পারেন

অদ্ভুত কাণ্ড! রক্তদান শিবিরেই দলবদল বিজেপি নেতার

বিধানসভা ভোটের প্রচারে তৃণমূলের খরচ দেড়শো কোটি টাকা, জানা যায়নি বিজেপির ব্যয়

নন্দীগ্রামে ষড়যন্ত্র, জবাব দিল ভবানীপুর: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

রেকর্ড ভেঙে বিশাল জয়, ভবানীপুরের কোনো ওয়ার্ডেই কম ভোট পায়নি তৃণমূল!

   

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন